কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের সময় আটক গৃহশিক্ষক  
jugantor
কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের সময় আটক গৃহশিক্ষক  

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি  

২০ মার্চ ২০২১, ২১:৪৩:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের সময় জনতার হাতে আটক হয়েছেন আবু সাইদ মোল্লা নামে এক গৃহশিক্ষক।

পরে গণধোলাই খেয়ে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গ্রেফতার হন তিনি।

শনিবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শুক্রবার মামলা দায়ের করেন। গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লা উপজেলার তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের মৃত জাফর মোল্লার ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে মেয়েকে বাড়িতে একা রেখে তার বাবা-মা নিজেদের চায়ের দোকান পরিচালনায় ব্যস্ত ছিলেন। এ সময় গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লা ওই ছাত্রীকে পড়াতে আসেন এবং বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেন।

পরে ভিকটিমের চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে গৃহশিক্ষককে হাতেনাতে আটক করে গণপিটুনি দেন। এতে তিনি আহত হলে হাসপাতালে ভর্তি হন।

পরে শুক্রবার বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে পাহারায় রাখে পুলিশ।

তাড়াশ থানার ওসি ফজলে আশিক জানান, শনিবার দুপুরে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের সময় আটক গৃহশিক্ষক  

 সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি 
২০ মার্চ ২০২১, ০৯:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের সময় জনতার হাতে আটক হয়েছেন আবু সাইদ মোল্লা নামে এক গৃহশিক্ষক। 

পরে গণধোলাই খেয়ে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গ্রেফতার হন তিনি। 

শনিবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শুক্রবার মামলা দায়ের করেন। গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লা উপজেলার তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের মৃত জাফর মোল্লার ছেলে। 

মামলার বিবরণে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে মেয়েকে বাড়িতে একা রেখে তার বাবা-মা নিজেদের চায়ের দোকান পরিচালনায় ব্যস্ত ছিলেন। এ সময় গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লা ওই ছাত্রীকে পড়াতে আসেন এবং বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। 

পরে ভিকটিমের চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে গৃহশিক্ষককে হাতেনাতে আটক করে গণপিটুনি দেন। এতে তিনি আহত হলে হাসপাতালে ভর্তি হন।

পরে শুক্রবার বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে পাহারায় রাখে পুলিশ। 

তাড়াশ থানার ওসি ফজলে আশিক জানান, শনিবার দুপুরে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন