গাইবান্ধায় বাড়িতে বিস্ফোরণে নিহত ৩
jugantor
গাইবান্ধায় বাড়িতে বিস্ফোরণে নিহত ৩

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি  

২৪ মার্চ ২০২১, ১৮:৫৮:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের মেকুরাই নয়াপাড়া গ্রামের আবুল কাসেম প্রধানের বাড়িতে বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

এ বিস্ফোরণে অহেদুল ইসলাম (৩৬), কুয়েত প্রবাসী বোরহান উদ্দিন প্রধান (৩৬) ও অজ্ঞাত একজন নিহত হয়েছেন।

নিহত বোরহান উদ্দিন প্রধান ওই গ্রামের আবুল কাসেম প্রধানের ছেলে, অহেদুল ইসলাম একই গ্রামের কবির উদ্দিনের ছেলে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অপর নিহত ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া যায়নি।

নিহত বোরহান উদ্দিনের স্ত্রী হিরা বেগম জানান, বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বোরহান উদ্দিন বাড়ির কিছুটা দুরে জমিতে কাজ করতে যান। এ সময় অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি বোরহান উদ্দিনের বাড়িতে আসেন। কিছুক্ষণ পর একই গ্রামের অহেদুল ইসলামও ওই বাড়িতে আসেন। এ সময় বোরহান উদ্দিনকে বাড়িতে না পেয়ে জমি থেকে ডেকে আনেন অহেদুল।

বোরহান উদ্দিনের স্ত্রী হিরা বেগম আরও জানান, অহেদুল জমি থেকে আমার স্বামী বোরহানকে বাড়িতে ডেকে এনে বাড়ির একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে যায়। আমি তখন অন্য একটি ঘরে কাজ করছিলাম। কিছুক্ষণ পর বিকট শব্দ হয়। শব্দ শুনে ঘর থেকে দৌড়ে বের হয়ে দেখতে পাই বিস্ফোরণে ঘরের টিনের চালা উড়ে গেছে এবং ঘরের পাশে দুজনের লাশ পড়ে আছে। পরে আরেকজনের অপরিচিত ব্যক্তির আহত অবস্থায় ছটফট করছিল।

এলাকাবাসীও জানান, ঘটনার কিছু আগে ৩ থেকে ৪ জন অপরিচিত ব্যক্তি আবুল কাসেম প্রধানের বাড়িতে আসেন। এর কিছু পর বাড়ির মধ্যে শোরগোল শোনা যায়। পরে বিকট শব্দে বিস্ফোরণে আবুল কাসেমের একটি ঘরের টিনের চাল উড়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে বাড়িটি ঘেরাও করে রাখে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান ৩ জন নিহত হওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, এখানে সিআইডির টিম ও বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ দল না আসা পর্যন্ত ঘটনার উৎস সম্পর্কে কিছু বলা যাচ্ছে না।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু সাঈদ জানান, ঘটনার কারণ সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে। বিস্ফোরক টিম ঢাকা থেকে রওনা দিয়েছে। তারা এসে তদন্ত করলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এ ঘটনায় গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন ও পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান।

এব্যাপারে জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন জানান, বিস্ফোরণে তিনজন নিহত হয়েছে। তবে কি কারণে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে তা জানা যায়নি। বিস্ফোরক দল ঘটনাস্থলে আসলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে। পুলিশ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

ওই এলাকার সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, এলাকাটি জামায়াত অধ্যুষিত এলাকা। অতীতে ওই এলাকায় অনেক নাশকতামূলক ঘটনা ঘটেছে। এটাও নাশকতামূলক ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে।

গাইবান্ধায় বাড়িতে বিস্ফোরণে নিহত ৩

 গাইবান্ধা প্রতিনিধি 
২৪ মার্চ ২০২১, ০৬:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের মেকুরাই নয়াপাড়া গ্রামের আবুল কাসেম প্রধানের বাড়িতে বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

এ বিস্ফোরণে অহেদুল ইসলাম (৩৬), কুয়েত প্রবাসী বোরহান উদ্দিন প্রধান (৩৬) ও অজ্ঞাত একজন নিহত হয়েছেন।

নিহত বোরহান উদ্দিন প্রধান ওই গ্রামের আবুল কাসেম প্রধানের ছেলে, অহেদুল ইসলাম একই গ্রামের কবির উদ্দিনের ছেলে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অপর নিহত ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া যায়নি।
 
নিহত বোরহান উদ্দিনের স্ত্রী হিরা বেগম জানান, বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বোরহান উদ্দিন বাড়ির কিছুটা দুরে জমিতে কাজ করতে যান। এ সময় অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি বোরহান উদ্দিনের বাড়িতে আসেন। কিছুক্ষণ পর একই গ্রামের অহেদুল ইসলামও ওই বাড়িতে আসেন। এ সময় বোরহান উদ্দিনকে বাড়িতে না পেয়ে জমি থেকে ডেকে আনেন অহেদুল।

বোরহান উদ্দিনের স্ত্রী হিরা বেগম আরও জানান, অহেদুল জমি থেকে আমার স্বামী বোরহানকে বাড়িতে ডেকে এনে বাড়ির একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে যায়। আমি তখন অন্য একটি ঘরে কাজ করছিলাম। কিছুক্ষণ পর বিকট শব্দ হয়। শব্দ শুনে ঘর থেকে দৌড়ে বের হয়ে দেখতে পাই বিস্ফোরণে ঘরের টিনের চালা উড়ে গেছে এবং ঘরের পাশে দুজনের লাশ পড়ে আছে। পরে আরেকজনের অপরিচিত ব্যক্তির আহত অবস্থায় ছটফট করছিল।
 
এলাকাবাসীও জানান, ঘটনার কিছু আগে ৩ থেকে ৪ জন অপরিচিত ব্যক্তি আবুল কাসেম প্রধানের বাড়িতে আসেন। এর কিছু পর বাড়ির মধ্যে শোরগোল শোনা যায়। পরে বিকট শব্দে বিস্ফোরণে আবুল কাসেমের একটি ঘরের টিনের চাল উড়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে বাড়িটি ঘেরাও করে রাখে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান ৩ জন নিহত হওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, এখানে সিআইডির টিম ও বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ দল না আসা পর্যন্ত ঘটনার উৎস সম্পর্কে কিছু বলা যাচ্ছে না।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু সাঈদ জানান, ঘটনার কারণ সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে। বিস্ফোরক টিম ঢাকা থেকে রওনা দিয়েছে। তারা এসে তদন্ত করলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।
 
এ ঘটনায় গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন ও পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান।

এব্যাপারে জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন জানান, বিস্ফোরণে তিনজন নিহত হয়েছে। তবে কি কারণে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে তা জানা যায়নি। বিস্ফোরক দল ঘটনাস্থলে আসলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে। পুলিশ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

ওই এলাকার সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, এলাকাটি জামায়াত অধ্যুষিত এলাকা। অতীতে ওই এলাকায় অনেক নাশকতামূলক ঘটনা ঘটেছে। এটাও নাশকতামূলক ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন