প্রেমের বিয়ের ২ মাস পর অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ
jugantor
প্রেমের বিয়ের ২ মাস পর অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ

  যুগান্তর প্রতিবেদন, ভোলা  

০১ এপ্রিল ২০২১, ২২:৪৬:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বিয়ের প্রায় ২ মাস পর ঝুমুর খাতুন (১৯) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটায় নিহতের বাবার বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ঝুমুর খাতুন ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের হাজারীগঞ্জ গ্রামের মো. হারুন মোল্লার মেয়ে এবং একই গ্রামের মো. জুয়েলের দ্বিতীয় স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঝুমুরের সঙ্গে তাদের বাড়ির পার্শ্ববর্তী বাড়ির মো. জুয়েলের দুই বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কের এক পর্যায়ে তাদের শারীরিক সম্পর্ক হলে প্রায় ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে ঝুমুর। পরে বিয়ের জন্য জুয়েলকে চাপ দিলে স্থানীয়দের সহযোগিতায় প্রায় ২ মাস আগে ঝুমুরের সঙ্গে জুয়েলের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে তাদের বনিবনা ছিল না। এ নিয়ে ঝুমুরের পরিবারের সদস্যরা তাকে কথা শুনাতো। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হয়তো ঝুমুর বৃহস্পতিবার তার বাবার ঘরের সামনে বারান্দার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

শশীভূষণ থানার এসআই মো. দেলোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রেমের বিয়ের ২ মাস পর অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ

 যুগান্তর প্রতিবেদন, ভোলা 
০১ এপ্রিল ২০২১, ১০:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিয়ের প্রায় ২ মাস পর ঝুমুর খাতুন (১৯) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটায় নিহতের বাবার বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ঝুমুর খাতুন ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের হাজারীগঞ্জ গ্রামের মো. হারুন মোল্লার মেয়ে এবং একই গ্রামের মো. জুয়েলের দ্বিতীয় স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঝুমুরের সঙ্গে তাদের বাড়ির পার্শ্ববর্তী বাড়ির মো. জুয়েলের দুই বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কের এক পর্যায়ে তাদের শারীরিক সম্পর্ক হলে প্রায় ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে ঝুমুর। পরে বিয়ের জন্য জুয়েলকে চাপ দিলে স্থানীয়দের সহযোগিতায় প্রায় ২ মাস আগে ঝুমুরের সঙ্গে জুয়েলের বিয়ে হয়। 

বিয়ের পর থেকে তাদের বনিবনা ছিল না। এ নিয়ে ঝুমুরের পরিবারের সদস্যরা তাকে কথা শুনাতো। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হয়তো ঝুমুর বৃহস্পতিবার তার বাবার ঘরের সামনে বারান্দার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

শশীভূষণ থানার এসআই মো. দেলোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন