শরণখোলায় আগুনে পুড়ল ১০ দোকান
jugantor
শরণখোলায় আগুনে পুড়ল ১০ দোকান

  শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি  

০৫ এপ্রিল ২০২১, ১৫:০৯:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

আগুন

বাগেরহাটের শরণখোলার রসুলপুর বাজারে আগুন লেগে ১০ দোকান ও দুটি বসতবাড়ি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

রোববার রাত ৯টার দিকে উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের সুন্দরবনসংলগ্ন বাজারটিতে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিসকর্মী ও স্থানীয়রা দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করেন। আগুনে প্রায় ৩৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্তরা জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, আবহাওয়া খারাপ হওয়ায় রাত ৯টার মধ্যে বেশিরভাগ ব্যবসায়ী দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যান। তখন হঠাৎ এসাহাক চাপরাশির লন্ড্রির দোকান থেকে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে ওঠে। বিদ্যুৎ না থাকায় বেখেয়ালে মোমবাতি জ্বালিয়ে রেখে দোকান বন্ধ করে বের হওয়ায় সেই আগুন থেকে অগ্নিকাণ্ড ঘটে বলে তাদের ধারণা।

বাজারের ওষুধ ব্যবসায়ী আক্তার আকন জানান, তার চার লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।

মিজান তালুকদার জানান, ফটোস্ট্যাট মেশিন, কম্পিউটার, মোবাইল যন্ত্রাংশ ও স্টেশনারি মালামাল পুড়ে তার ক্ষতি হয়েছে প্রায় সাত লাখ টাকা। ১০টি দোকান ও দুটি বসতঘরের অবকাঠামো ও মালামাল নিয়ে কমপক্ষে ৩৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীদের দাবি।

শরণখোলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবুবকর সিদ্দিক জানান, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে। আগুনে ১০টি দোকান ও দুটি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। সময়মতো পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে পারায় বড় ধরনের ক্ষতির হাত থেকে বাজারটি রক্ষা পেয়েছে।

শরণখোলায় আগুনে পুড়ল ১০ দোকান

 শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি 
০৫ এপ্রিল ২০২১, ০৩:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আগুন
ছবি: যুগান্তর

বাগেরহাটের শরণখোলার রসুলপুর বাজারে আগুন লেগে ১০ দোকান ও দুটি বসতবাড়ি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

রোববার রাত ৯টার দিকে উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের সুন্দরবনসংলগ্ন বাজারটিতে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিসকর্মী ও স্থানীয়রা দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করেন। আগুনে প্রায় ৩৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্তরা জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, আবহাওয়া খারাপ হওয়ায় রাত ৯টার মধ্যে বেশিরভাগ ব্যবসায়ী দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যান। তখন হঠাৎ এসাহাক চাপরাশির লন্ড্রির দোকান থেকে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে ওঠে। বিদ্যুৎ না থাকায় বেখেয়ালে মোমবাতি জ্বালিয়ে রেখে দোকান বন্ধ করে বের হওয়ায় সেই আগুন থেকে অগ্নিকাণ্ড ঘটে বলে তাদের ধারণা।

বাজারের ওষুধ ব্যবসায়ী আক্তার আকন জানান, তার চার লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।

মিজান তালুকদার জানান, ফটোস্ট্যাট মেশিন, কম্পিউটার, মোবাইল যন্ত্রাংশ ও স্টেশনারি মালামাল পুড়ে তার ক্ষতি হয়েছে প্রায় সাত লাখ টাকা। ১০টি দোকান ও দুটি বসতঘরের অবকাঠামো ও মালামাল নিয়ে কমপক্ষে ৩৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীদের দাবি।

শরণখোলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবুবকর সিদ্দিক জানান, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে। আগুনে ১০টি দোকান ও দুটি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। সময়মতো পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে পারায় বড় ধরনের ক্ষতির হাত থেকে বাজারটি রক্ষা পেয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন