মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট, ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার
jugantor
মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট, ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৬ এপ্রিল ২০২১, ১৩:২৫:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উদ্দিন ওরফে ফয়েজ মারজান। এ ঘটনায় তাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দীপঙ্কর কান্তি দে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মামুনুল হকের পক্ষে দেওয়া পোস্টটি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের জানিয়েছিলাম। পরে সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ফয়েজকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের শৃঙ্খলাপরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় ফয়েজকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

জেলা ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের একটি রিসোর্টে হেফাজত নেতা মামুনুল হক তার দ্বিতীয় স্ত্রীসহ ঘেরাওয়ের পর ফয়েজ মারজান তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে একাধিক পোস্ট দেন। পোস্টে তিনি মামুনুল হকের পক্ষে নানা কথা বলেন। স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতারা তখন বিষয়টি সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিকে জানান।

ফয়েজ মারজান সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার জাউয়াবাজার ইউনিয়নের জাউয়াবাজার এলাকার বাসিন্দা। তিনি জাউয়াবাজার ডিগ্রি কলেজে পড়াশোনা করেছেন। ফেসবুকে মামুনুল হককে নিয়ে দেওয়া পোস্টগুলো তিনিই দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন। তবে বহিষ্কারের বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে পোস্ট, ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৬ এপ্রিল ২০২১, ০১:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উদ্দিন ওরফে ফয়েজ মারজান। এ ঘটনায় তাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দীপঙ্কর কান্তি দে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি বলেন, মামুনুল হকের পক্ষে দেওয়া পোস্টটি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের জানিয়েছিলাম। পরে সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ফয়েজকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের শৃঙ্খলাপরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় ফয়েজকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

জেলা ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের একটি রিসোর্টে হেফাজত নেতা মামুনুল হক তার দ্বিতীয় স্ত্রীসহ ঘেরাওয়ের পর ফয়েজ মারজান তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে একাধিক পোস্ট দেন। পোস্টে তিনি মামুনুল হকের পক্ষে নানা কথা বলেন। স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতারা তখন বিষয়টি সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিকে জানান।

ফয়েজ মারজান সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার জাউয়াবাজার ইউনিয়নের জাউয়াবাজার এলাকার বাসিন্দা। তিনি জাউয়াবাজার ডিগ্রি কলেজে পড়াশোনা করেছেন। ফেসবুকে মামুনুল হককে নিয়ে দেওয়া পোস্টগুলো তিনিই দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন। তবে বহিষ্কারের বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন