মানবাকৃতির বিশাল মিষ্টি আলু
jugantor
মানবাকৃতির বিশাল মিষ্টি আলু

  হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি  

০৭ এপ্রিল ২০২১, ০০:০২:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বাজার থেকে মিষ্টি আলু আনছিলেন রান্না করে খেতে। আর তা খেয়ে আলুর মুখ কেটে ফেলে দেয় ঘরের পাসের বালুর স্তুপে। সে থেকে মিষ্টি আলুর গাছ উঠে বড় হতে লাগলো।

আর সে গাছ থেকেই শাক তুলে খেয়েছেন তারা। তার পরে মাটির নিচে জন্মালো মিষ্টি আলু। তাও আবার মানবাকৃতির ৫ কেজি ওজনের আলু। যা সত্যি বিশ্বাস করার মত নয়।

মঙ্গলবার হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার রান্ধুনীমুড়া মুন্সী বাড়ি গিয়ে দেখা গেল ওই মানবাকৃতির মিষ্টি আলু। ঠিক দেখতে মানুষের মতো। এ আলু দেখতে এলাকার মানুষ সেখানে ছুটে যাচ্ছে সে বাড়িতে।

হাজীগঞ্জ পৌরসভার রান্ধুনীমুড়া গ্রামের মুন্সী বাড়ির সামছুজ্জামান মুন্সীর ঘরের পাশের বালুর স্তুপে এ আলু জন্মায়।

সামছুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, গত কয়েক মাস আগে হাজীগঞ্জ বাজার থেকে কিছু মিষ্টি আলু কিনে আনেন। আলু খেয়ে তার চামড়া ও মুখের অংশ কেটে ঘরের পাশের বালুরস্তুপে রেখে দেই। পরে ধীরে ধীরে ওই স্তূপ থেকে আলু গাছ উঠতে শুরু করে। এভাবে অনেকগুলো গাছ হলে সে থেকে শাক তুলে রান্না করা হতো। ক দিন যেতেই মাটির নীচে কিছু লাল মিষ্টি আলু দেখে মাটি খুড়ে এ আলুর সন্ধান পাই।

তিনি বলেন, এখানে প্রায় পাঁচ হাত জায়গা খুঁড়ে ২০ কেজি আলু পাই। তার মধ্যে মানুষের আকৃতি এ ৫ কেজি আলু পাই। এ আলু খেতে অনেক সুস্বাদু।

মানবাকৃতির বিশাল মিষ্টি আলু

 হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি 
০৭ এপ্রিল ২০২১, ১২:০২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাজার থেকে মিষ্টি আলু আনছিলেন রান্না করে খেতে। আর তা খেয়ে আলুর মুখ কেটে ফেলে দেয় ঘরের পাসের বালুর স্তুপে। সে থেকে মিষ্টি আলুর গাছ উঠে বড় হতে লাগলো।

আর সে গাছ থেকেই শাক তুলে খেয়েছেন তারা। তার পরে মাটির নিচে জন্মালো মিষ্টি আলু। তাও আবার মানবাকৃতির ৫ কেজি ওজনের আলু। যা সত্যি বিশ্বাস করার মত নয়।

মঙ্গলবার হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার রান্ধুনীমুড়া মুন্সী বাড়ি গিয়ে দেখা গেল ওই মানবাকৃতির মিষ্টি আলু। ঠিক দেখতে মানুষের মতো। এ আলু দেখতে এলাকার মানুষ সেখানে ছুটে যাচ্ছে সে বাড়িতে।

হাজীগঞ্জ পৌরসভার রান্ধুনীমুড়া গ্রামের মুন্সী বাড়ির সামছুজ্জামান মুন্সীর ঘরের পাশের বালুর স্তুপে এ আলু জন্মায়।

সামছুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, গত কয়েক মাস আগে হাজীগঞ্জ বাজার থেকে কিছু মিষ্টি আলু কিনে আনেন। আলু খেয়ে তার চামড়া ও মুখের অংশ কেটে ঘরের পাশের বালুরস্তুপে রেখে দেই। পরে ধীরে ধীরে ওই স্তূপ থেকে আলু গাছ উঠতে শুরু করে। এভাবে অনেকগুলো গাছ হলে সে থেকে শাক তুলে রান্না করা হতো। ক দিন যেতেই মাটির নীচে কিছু লাল মিষ্টি আলু দেখে মাটি খুড়ে এ আলুর সন্ধান পাই।

তিনি বলেন, এখানে প্রায় পাঁচ হাত জায়গা খুঁড়ে ২০ কেজি আলু পাই। তার মধ্যে মানুষের আকৃতি এ ৫ কেজি আলু পাই। এ আলু খেতে অনেক সুস্বাদু।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন