শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবি: অজ্ঞাত কার্গোচালকের নামে মামলা
jugantor
শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবি: অজ্ঞাত কার্গোচালকের নামে মামলা

  বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৭ এপ্রিল ২০২১, ১২:১৯:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবি: ‘অজ্ঞাত’ কার্গোচালকসহ আসামি সংশ্লিষ্টরা

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবিতে ৩৫ জন নিহতের ঘটনায় ‘অজ্ঞাত’ কার্গোর চালকসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

মঙ্গলবার রাতে বন্দর থানায় মামলাটি করেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) উপপরিচলক বাবু লাল বৈদ্য।

বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জ কয়লাঘাট এলাকায় কার্গো জাহাজের ধাক্কায় অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে সাবিত আল হাসান নামে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চটি ডুবে যায়।

এক শ্বাসরুদ্ধকর উদ্ধার অভিযানে ডুবে যাওয়ার ১৮ ঘণ্টা পর সোমবার দুপুর ১২টায় লঞ্চটি টেনে পাড়ে তোলে বিআইডব্লিউটিএর উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়।

এ সময় লঞ্চের ভেতর থেকে একে একে ২১ জনের মরদেহ বের করে আনেন উদ্ধারকর্মীরা। এরপর সোয়া ১টায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেন বিআইডব্লিটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক।

সোমবার সন্ধ্যার দিকে উদ্ধার হয় আরও চারটি মরদেহ। পরের দিন মঙ্গলবার সকালে কয়লাঘাট থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয় পাঁচটি মৃতদেহ। এর আগে দুর্ঘটনার দিন রোববার রাতে পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার মদনগঞ্জ কয়লাঘাট এলাকায় নিহতদের স্বজন, বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের নিয়ে গণশুনানি হবে বলে জানান নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও যুগ্ম সচিব আবদুস সাত্তার শেখ।

শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবি: অজ্ঞাত কার্গোচালকের নামে মামলা

 বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৭ এপ্রিল ২০২১, ১২:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবি: ‘অজ্ঞাত’ কার্গোচালকসহ আসামি সংশ্লিষ্টরা
ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবিতে ৩৫ জন নিহতের ঘটনায় ‘অজ্ঞাত’ কার্গোর চালকসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

মঙ্গলবার রাতে বন্দর থানায় মামলাটি করেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) উপপরিচলক বাবু লাল বৈদ্য।

বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জ কয়লাঘাট এলাকায় কার্গো জাহাজের ধাক্কায় অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে সাবিত আল হাসান নামে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চটি ডুবে যায়।

এক শ্বাসরুদ্ধকর উদ্ধার অভিযানে ডুবে যাওয়ার ১৮ ঘণ্টা পর সোমবার দুপুর ১২টায় লঞ্চটি টেনে পাড়ে তোলে বিআইডব্লিউটিএর উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়।  

এ সময় লঞ্চের ভেতর থেকে একে একে ২১ জনের মরদেহ বের করে আনেন উদ্ধারকর্মীরা।  এরপর সোয়া ১টায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেন বিআইডব্লিটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক।

সোমবার সন্ধ্যার দিকে উদ্ধার হয় আরও চারটি মরদেহ। পরের দিন মঙ্গলবার সকালে কয়লাঘাট থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয় পাঁচটি মৃতদেহ। এর আগে দুর্ঘটনার দিন রোববার রাতে পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার মদনগঞ্জ কয়লাঘাট এলাকায় নিহতদের স্বজন, বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের  নিয়ে গণশুনানি হবে বলে জানান নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও যুগ্ম সচিব আবদুস সাত্তার শেখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন