দুটি কিডনি হারিয়ে নির্বাক মেধাবী কোরবান
jugantor
দুটি কিডনি হারিয়ে নির্বাক মেধাবী কোরবান

  রংপুর ব্যুরো  

০৭ এপ্রিল ২০২১, ২০:৪৬:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের বদরগঞ্জে দুটি কিডনি হারিয়ে অর্থের অভাবে নির্বাক হয়ে হাসপাতালের বেডে পড়ে আছেন মেধাবী ছাত্র কোরবান আলী এরশাদুল। ছেলের এমন করুণ দশা দেখে দিশেহারা হয়ে পড়েছে তার মা বাবাসহ পরিবারের সদস্যরা। কোরবান আলীকে সুস্থ করতে বিত্তবানদের এগিয়ে আহ্বান জানান তারা।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণপুর ইউনিয়নের লালবাড়ি কচুবাড়ি গ্রামের আবু তাদের ও মঞ্জুয়ারা দম্পতির দুই ছেলে এক মেয়ের মধ্যে সবার ছোট কোরবান আলী এরশাদুল। তিনি একই উপজেলার লালবাড়ি কচুবাড়ি হাই স্কুল থেকে এসএসসি ও দিনাজপুরের পার্বতীপুর আদর্শ কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে এইচএসসি পাশ করেছেন।

পড়া লেখার পাশাপাশি ফুটবল খেলাও পারদর্শী ছিল। দরিদ্র পরিবারের সন্তান হলেও ইচ্ছে ছিল ছেলেকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার। কিন্তু সব আশা আজ ধ্বংসের পথে। দুটি কিডনি হারিয়ে তিনি এখন নির্বাক।

কোরবান আলী এরশাদুলের বাবা আবু তাহের জানান, গত বছরের মে মাসে হঠাৎ করে তার ছেলে কোরবান আলী এরশাদুল বাড়িতে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় তাকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নেয়া হয়। চিকিৎসক বিভিন্ন পরীক্ষা শেষে জানান তার দুটি কিডনিতে সমস্যা দেখা দিয়েছে দ্রুত তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাতে। চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে রংপুরের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তি করার আজ ১১ মাস। এই ১১ মাসে সংসারের যতটুকু সম্বল ছিল সব বিক্রি করে ছেলের চিকিৎসা চলছে।

তিনি আরও জানান, চিকিৎসায় তার ছেলের কোনো উন্নতি হয়নি এজন্য চিকিৎসকরা বলেছেন তাকে বাঁচাতে আরও উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। এজন্য তাকে বিদেশে নিতে হবে। কিন্তু আমার যা ছিল সবই তো শেষ। এখন কিভাবে চিকিৎসা করাবো, কিভাবে বিদেশে নিবো সেটা ভেবে পাচ্ছি না।

কোরবানের মা মঞ্জুয়ারা বেগম বলেন, ছেলে এখনও বলে ‘মা আমি আবারও স্বাভাবিক জীবনে আসবো। তোমাদের সবার মুখে হাসি ফোটাবো।’ কিন্তু আজ আমরা নিঃস্ব। যা সহায় সম্বল ছিল তা সবই শেষ। এখন সকলের দোয়া ও সহযোগিতা তাকে সুস্থ জীবনে ফেরানো অসম্ভব। তাই আমি মা হয়ে আমার মেধাবী ছেলের দিকে তাকিয়ে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি।

দুটি কিডনি হারিয়ে নির্বাক মেধাবী কোরবান

 রংপুর ব্যুরো 
০৭ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের বদরগঞ্জে দুটি কিডনি হারিয়ে অর্থের অভাবে নির্বাক হয়ে হাসপাতালের বেডে পড়ে আছেন মেধাবী ছাত্র কোরবান আলী এরশাদুল। ছেলের এমন করুণ দশা দেখে দিশেহারা হয়ে পড়েছে তার মা বাবাসহ পরিবারের সদস্যরা। কোরবান আলীকে সুস্থ করতে বিত্তবানদের এগিয়ে আহ্বান জানান তারা।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার বিষ্ণপুর ইউনিয়নের লালবাড়ি কচুবাড়ি গ্রামের আবু তাদের ও মঞ্জুয়ারা দম্পতির দুই ছেলে এক মেয়ের মধ্যে সবার ছোট কোরবান আলী এরশাদুল। তিনি একই উপজেলার লালবাড়ি কচুবাড়ি হাই স্কুল থেকে এসএসসি ও দিনাজপুরের পার্বতীপুর আদর্শ কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে এইচএসসি পাশ করেছেন।

পড়া লেখার পাশাপাশি ফুটবল খেলাও পারদর্শী ছিল। দরিদ্র পরিবারের সন্তান হলেও ইচ্ছে ছিল ছেলেকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার। কিন্তু সব আশা আজ ধ্বংসের পথে। দুটি কিডনি হারিয়ে তিনি এখন নির্বাক।

কোরবান আলী এরশাদুলের বাবা আবু তাহের জানান, গত বছরের মে মাসে হঠাৎ করে তার ছেলে কোরবান আলী এরশাদুল বাড়িতে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এ সময় তাকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নেয়া হয়। চিকিৎসক বিভিন্ন পরীক্ষা শেষে জানান তার দুটি কিডনিতে সমস্যা দেখা দিয়েছে দ্রুত তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাতে। চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে রংপুরের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তি করার আজ ১১ মাস। এই ১১ মাসে সংসারের যতটুকু সম্বল ছিল সব বিক্রি করে ছেলের চিকিৎসা চলছে।

তিনি আরও জানান, চিকিৎসায় তার ছেলের কোনো উন্নতি হয়নি এজন্য চিকিৎসকরা বলেছেন তাকে বাঁচাতে আরও উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। এজন্য তাকে বিদেশে নিতে হবে। কিন্তু আমার যা ছিল সবই তো শেষ। এখন কিভাবে চিকিৎসা করাবো, কিভাবে বিদেশে নিবো সেটা ভেবে পাচ্ছি না।

কোরবানের মা মঞ্জুয়ারা বেগম বলেন, ছেলে এখনও বলে ‘মা আমি আবারও স্বাভাবিক জীবনে আসবো। তোমাদের সবার মুখে হাসি ফোটাবো।’ কিন্তু আজ আমরা নিঃস্ব। যা সহায় সম্বল ছিল তা সবই শেষ। এখন সকলের দোয়া ও সহযোগিতা তাকে সুস্থ জীবনে ফেরানো অসম্ভব। তাই আমি মা হয়ে আমার মেধাবী ছেলের দিকে তাকিয়ে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ  বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন