লঞ্চের যাত্রীদের চিৎকারেও থামেনি কার্গোটি
jugantor
লঞ্চের যাত্রীদের চিৎকারেও থামেনি কার্গোটি

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

০৮ এপ্রিল ২০২১, ১৮:৪৪:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর কয়লাঘাট এলাকায় লাইটার (কার্গো) জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চডুবির ঘটনায় জেলা প্রসাশক ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত দুই তদন্ত কমিটির গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুনানিতে দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে যাওয়া যাত্রীরা এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লঞ্চের যাত্রীরা চিৎকার করে থামতে বললেও কার্গোটি লঞ্চের উপর দিয়ে চলে যায়।

বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত গণশুনানি করেন তদন্ত কমিটির প্রধান নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আব্দুস সাত্তার শেখ।

তিনি জানান, লঞ্চ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শী বেশ কয়েকজনের গণশুনানিতে সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে ৭ সদস্যবিশিষ্ট গঠিত তদন্ত কমিটি প্রত্যেকের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে তা বিশ্লেষণ করে রিপোর্ট আকারে সাত দিনের মধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হবে।

অন্যদিকে লঞ্চ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শীতলক্ষ্যায় লাইটার জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটে। লঞ্চের যাত্রীরা চিৎকার করে থামতে বললেও জাহাজটি লঞ্চের উপর দিয়ে চলে যায়। নদীপথে আইন কঠোর করা হলে দুর্ঘটনা অনেকটা কমে আসবে বলে জানান তারা।

গণশুনানিতে আরও উপস্থিত ছিলেন- জেলা প্রশাসকের তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খাদিজা তাহেরা ববি, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা বারিক, ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফিন সিদ্দিকীসহ নৌপুলিশ, কোস্টগার্ড ও স্থানীয়রা।

লঞ্চের যাত্রীদের চিৎকারেও থামেনি কার্গোটি

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
০৮ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর কয়লাঘাট এলাকায় লাইটার (কার্গো) জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চডুবির ঘটনায় জেলা প্রসাশক ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত দুই তদন্ত কমিটির গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শুনানিতে দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে যাওয়া যাত্রীরা এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লঞ্চের যাত্রীরা চিৎকার করে থামতে বললেও কার্গোটি লঞ্চের উপর দিয়ে চলে যায়।

বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত গণশুনানি করেন তদন্ত কমিটির প্রধান নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আব্দুস সাত্তার শেখ। 

তিনি জানান, লঞ্চ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শী বেশ কয়েকজনের গণশুনানিতে সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে ৭ সদস্যবিশিষ্ট গঠিত তদন্ত কমিটি প্রত্যেকের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে তা বিশ্লেষণ করে রিপোর্ট আকারে সাত দিনের মধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হবে।

অন্যদিকে লঞ্চ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শীতলক্ষ্যায় লাইটার জাহাজের ধাক্কায় লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটে। লঞ্চের যাত্রীরা চিৎকার করে থামতে বললেও জাহাজটি লঞ্চের উপর দিয়ে চলে যায়। নদীপথে আইন কঠোর করা হলে দুর্ঘটনা অনেকটা কমে আসবে বলে জানান তারা। 

গণশুনানিতে আরও উপস্থিত ছিলেন- জেলা প্রশাসকের তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খাদিজা তাহেরা ববি, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা বারিক, ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফিন সিদ্দিকীসহ নৌপুলিশ, কোস্টগার্ড ও স্থানীয়রা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন