লক্ষ্মীপুরে ১০ দোকান পুড়ে ছাই
jugantor
লক্ষ্মীপুরে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

  লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি  

১০ এপ্রিল ২০২১, ১৪:১১:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

আগুন

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় আগুনে ১০ দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে অন্তত অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের।

শনিবার ভোরে উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বাজারের কোনো একটি দোকানে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়। তাৎক্ষণিকভাবে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে লক্ষ্মীপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে ২ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে।

এরআগেই মালামালসহ বাজারের আদর্শ লাইব্রেরি, অভিরুচি সুইটস, শিউলি মেডিকেল, হারুন স্টোর ও পত্রিকার এজেন্ট আলাউদ্দিন স্টোরসহ ১০টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

তবে বাজারের খাল থেকে পানি সরবরাহ পথ না থাকায় আগুন নেভাতে বিলম্ব হয়েছে। পরে প্রতাপগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের পুকুর থেকে পানি সরবরাহ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এদিকে আগুনে মালামালসহ দোকান পুড়ে অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে।

চন্দ্রগঞ্জ বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুছ জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পানি সরবরাহে সমস্যা হয়েছিল। তবে দ্রুত খালপাড়ে সিঁড়ি ও অগ্নিনির্বাপক সামগ্রীর ব্যবস্থা করা হয়।

লক্ষ্মীপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার ওয়াসি আজাদ জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পৌঁছাই। তবে পানি সরবরাহে বিলম্ব হয়। পরে একটি পুকুর থেকে পানি সরবরাহ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

তবে এরআগে ১০টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করে জানানো হবে।

লক্ষ্মীপুরে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

 লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি 
১০ এপ্রিল ২০২১, ০২:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আগুন
ছবি: যুগান্তর

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় আগুনে ১০ দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে অন্তত অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের।

শনিবার ভোরে উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বাজারের কোনো একটি দোকানে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়। তাৎক্ষণিকভাবে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে লক্ষ্মীপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে ২ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনে।

এরআগেই মালামালসহ বাজারের আদর্শ লাইব্রেরি, অভিরুচি সুইটস, শিউলি মেডিকেল, হারুন স্টোর ও পত্রিকার এজেন্ট আলাউদ্দিন স্টোরসহ ১০টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

তবে বাজারের খাল থেকে পানি সরবরাহ পথ না থাকায় আগুন নেভাতে বিলম্ব হয়েছে। পরে প্রতাপগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের পুকুর থেকে পানি সরবরাহ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এদিকে আগুনে মালামালসহ দোকান পুড়ে অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে।

চন্দ্রগঞ্জ বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুছ জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পানি সরবরাহে সমস্যা হয়েছিল। তবে দ্রুত খালপাড়ে সিঁড়ি ও অগ্নিনির্বাপক সামগ্রীর ব্যবস্থা করা হয়।

লক্ষ্মীপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার ওয়াসি আজাদ জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পৌঁছাই। তবে পানি সরবরাহে বিলম্ব হয়। পরে একটি পুকুর থেকে পানি সরবরাহ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

তবে এরআগে ১০টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করে জানানো হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন