কুকুরের মৃত্যু নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক
jugantor
কুকুরের মৃত্যু নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

  মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১১ এপ্রিল ২০২১, ১৮:১২:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সিএনজি (অটোরিকশা) চাপায় কুকুর মারা যাওয়ার জের ধরে হবিগঞ্জের মাধবপুরে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। রোববার সকালে উপজেলার ঘিলাতলী ও মিঠাপুকুর গ্রামবাসীর মধ্যে প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে মাধবপুর-চুনারুঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ ও থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে বিপুলসংখ্যক পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মিঠাপুকুর গ্রামের জনৈক অটোরিকশাচালক ঘিলাতলী রাস্তা দিয়ে দ্রুতগতিতে যাওয়ার সময় বাজারের একটি কুকুরকে চাপা দিলে কুকুরটি মারা যায়। এ নিয়ে ঘিলাতলী গ্রামের সুরুজ আলী ও মিঠাপুকুর গ্রামের অটোচালক কাওছারের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়।

এর জের ধরে উভয়গ্রামের মধ্যেই উত্তেজনা দেখা দেয়। গত শুক্রবার রাতে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য সালিশ বৈঠকের দিন নির্ধারণের কথা ছিল। কিন্তু এখানে ওই দিনও দুই গ্রামবাসীর মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এর জের ধরে রোববার সকালে উভয় গ্রামের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হন এর মধ্যে ৬ জনের অবস্থা গুরুতর। আহতদের মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মাধবপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

আদাঐর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুক পাঠান জানান, দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনাটি নিষ্পত্তি করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

কুকুরের মৃত্যু নিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

 মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১১ এপ্রিল ২০২১, ০৬:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিএনজি (অটোরিকশা) চাপায় কুকুর মারা যাওয়ার জের ধরে হবিগঞ্জের মাধবপুরে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। রোববার সকালে উপজেলার ঘিলাতলী ও মিঠাপুকুর গ্রামবাসীর মধ্যে প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে মাধবপুর-চুনারুঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ ও থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে বিপুলসংখ্যক পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মিঠাপুকুর গ্রামের জনৈক অটোরিকশাচালক ঘিলাতলী রাস্তা দিয়ে দ্রুতগতিতে যাওয়ার সময় বাজারের একটি কুকুরকে চাপা দিলে কুকুরটি মারা যায়। এ নিয়ে ঘিলাতলী গ্রামের সুরুজ আলী ও মিঠাপুকুর গ্রামের অটোচালক কাওছারের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়।

এর জের ধরে উভয়গ্রামের মধ্যেই উত্তেজনা দেখা দেয়। গত শুক্রবার রাতে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য সালিশ বৈঠকের দিন নির্ধারণের কথা ছিল। কিন্তু এখানে ওই দিনও দুই গ্রামবাসীর মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এর জের ধরে রোববার সকালে উভয় গ্রামের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হন এর মধ্যে ৬ জনের অবস্থা গুরুতর। আহতদের মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মাধবপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহসিন আল মুরাদ জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

আদাঐর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুক পাঠান জানান, দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনাটি নিষ্পত্তি করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন