গণপিটুনিতে জিন বাহিনীর ১০ ক্যাডার আহত
jugantor
গণপিটুনিতে জিন বাহিনীর ১০ ক্যাডার আহত

  রাজশাহী ব্যুরো  

১১ এপ্রিল ২০২১, ২১:৪৮:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাগমারায় রাতের আঁধারে সরকারি বিলের মাছ লুটের সময় গণপিটুনিতে বহুল আলোচিত জিন বাহিনীর ১০ ক্যাডার আহত হয়েছে। আহতদের ৩ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতদের অন্যতম- বেলাল হোসেন (৫৫), রুবেল হোসেন (৩০) ও বিপুল মিয়া (১৬)। বাকিরা পালিয়ে গিয়ে রাজশাহীতে চিকিৎসা নিয়েছেন।

শনিবার গভীর রাতে উপজেলার বড়বিহানালী ইউনিয়নের বিলসুতি বিলে এ ঘটনা ঘটেছে। বিলটি নিয়ে কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগের একাধিক গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব সংঘাত হয়ে আসছে। বাগমারায় নানাবিধ অপকর্মে জিন বাহিনী বহুল আলোচিত।

স্থানীয়রাসহ পুলিশ জানায়, শনিবার দিনগত গভীর রাতে জিন বাহিনীর ১৫ থেকে ২০ জনের সশস্ত্র একটি দল বিলসুতির বিলে জাল ও অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে মাছ লুট শুরু করে। ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকাবাসী একজোট হয়ে লাঠিসোটা নিয়ে জিন বাহিনীর ক্যাডারদের ধাওয়া করে। একপর্যায়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষ বাধে।

এলাকাবাসীর গণপিটুনি খেয়ে বিলের মধ্যে দিয়ে জিন বাহিনী সদস্যরা পালাতে থাকে। এলাকাবাসী ১০ জনকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে ছেড়ে দেন। জিন বাহিনীর ঢাল ও সড়কিসহ বিভিন্ন উপকরণ বিলের মধ্যেই থেকে যায়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার মদদপুষ্ট এই সন্ত্রাসী বাহিনীটি বাগমারায় জিন বাহিনী নামে পরিচিতি পেয়েছে। তারা সরকারি জমি পুকুর বিল দখল ছাড়াও রাতের আঁধারে মাছ লুট করে। গাছ কেটে বিক্রি করে। চাঁদা আদায় করে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে। পুলিশে অভিযোগ দিয়েও এদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানিয়েছেন, ঘটনার খবর শুনেছেন কিন্তু কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

গণপিটুনিতে জিন বাহিনীর ১০ ক্যাডার আহত

 রাজশাহী ব্যুরো 
১১ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাগমারায় রাতের আঁধারে সরকারি বিলের মাছ লুটের সময় গণপিটুনিতে বহুল আলোচিত জিন বাহিনীর ১০ ক্যাডার আহত হয়েছে। আহতদের ৩ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতদের অন্যতম- বেলাল হোসেন (৫৫), রুবেল হোসেন (৩০) ও বিপুল মিয়া (১৬)। বাকিরা পালিয়ে গিয়ে রাজশাহীতে চিকিৎসা নিয়েছেন।

শনিবার গভীর রাতে উপজেলার বড়বিহানালী ইউনিয়নের  বিলসুতি বিলে এ ঘটনা ঘটেছে। বিলটি নিয়ে কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগের একাধিক গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব সংঘাত হয়ে আসছে। বাগমারায় নানাবিধ অপকর্মে জিন বাহিনী বহুল আলোচিত।

স্থানীয়রাসহ পুলিশ জানায়, শনিবার দিনগত গভীর রাতে জিন বাহিনীর ১৫ থেকে ২০ জনের সশস্ত্র একটি দল বিলসুতির বিলে জাল ও অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে মাছ লুট শুরু করে। ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকাবাসী একজোট হয়ে লাঠিসোটা নিয়ে জিন বাহিনীর ক্যাডারদের ধাওয়া করে। একপর্যায়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষ বাধে।

এলাকাবাসীর গণপিটুনি খেয়ে বিলের মধ্যে দিয়ে জিন বাহিনী সদস্যরা পালাতে থাকে। এলাকাবাসী ১০ জনকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে ছেড়ে দেন। জিন বাহিনীর ঢাল ও সড়কিসহ বিভিন্ন উপকরণ বিলের মধ্যেই থেকে যায়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার মদদপুষ্ট এই সন্ত্রাসী বাহিনীটি বাগমারায় জিন বাহিনী নামে পরিচিতি পেয়েছে। তারা সরকারি জমি পুকুর বিল দখল ছাড়াও রাতের আঁধারে মাছ লুট করে। গাছ কেটে বিক্রি করে। চাঁদা আদায় করে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে। পুলিশে অভিযোগ দিয়েও এদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানিয়েছেন, ঘটনার খবর শুনেছেন কিন্তু কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন