পুঠিয়ায় বিএনপির পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা
jugantor
পুঠিয়ায় বিএনপির পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

  পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

১২ এপ্রিল ২০২১, ১৪:১৫:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আল মামুন

রাজশাহীর পুঠিয়ায় বিএনপির পৌর মেয়র আল মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

রোববার রাত সাড়ে ১১টায় মামলাটি করেছেন ভুক্তভোগী এক নারী।

মামলাসূত্রে জানা গেছে, গত ২০১৯ সালে দুর্গাপুর থানার বাসিন্দা ওই নার্স পুঠিয়ার সদরের একটি ক্লিনিকে কাজ করতেন। এই সুবাদে মামুনের সঙ্গে ওই নাসের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

তার পর তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণ করতেন।

রোববার বিকালে মেয়েটি মামুনের চেম্বারে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন। মেয়র বিয়ে করতে অস্বীকার করেন। এ সময়ে নার্সকে নির্যাতন করে বের করে দেওয়া হয়। ওই ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে পুঠিয়া থানায় নিয়ে আসে।

পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভুক্তভোগী নার্স বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেন।

এ বিষয়ে বিএনপির পৌর মেয়র আল মামুন ধর্ষণের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে নার্সকে দিয়ে মিথ্যা মামলা করেছে।

এ ব্যাপারে পুঠিয়া থানার ওসি সোহরাওয়ার্দী হোসেন জানান, মেয়েটি নিজে বাদী হয়ে এজাহার দিয়েছে। এ বিষয়ে থানায় তার এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত আসামিকে আটকের চেষ্টা করছে।

পুঠিয়ায় বিএনপির পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

 পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
১২ এপ্রিল ২০২১, ০২:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আল মামুন
আল মামুন। ছবি: যুগান্তর

রাজশাহীর পুঠিয়ায় বিএনপির পৌর মেয়র আল মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

রোববার রাত সাড়ে ১১টায় মামলাটি করেছেন ভুক্তভোগী এক নারী।

মামলাসূত্রে জানা গেছে, গত ২০১৯ সালে দুর্গাপুর থানার বাসিন্দা ওই নার্স পুঠিয়ার সদরের একটি ক্লিনিকে কাজ করতেন। এই সুবাদে মামুনের সঙ্গে ওই নাসের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

তার পর তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণ করতেন।

রোববার বিকালে মেয়েটি মামুনের চেম্বারে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন। মেয়র বিয়ে করতে অস্বীকার করেন। এ সময়ে নার্সকে নির্যাতন করে বের করে দেওয়া হয়। ওই ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে পুঠিয়া থানায় নিয়ে আসে।

পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভুক্তভোগী নার্স বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেন।

এ বিষয়ে বিএনপির পৌর মেয়র আল মামুন ধর্ষণের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে নার্সকে দিয়ে মিথ্যা মামলা করেছে।   

এ ব্যাপারে পুঠিয়া থানার ওসি সোহরাওয়ার্দী হোসেন জানান, মেয়েটি নিজে বাদী হয়ে এজাহার দিয়েছে। এ বিষয়ে থানায় তার এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত আসামিকে আটকের চেষ্টা করছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন