বিএসএফের গুলিতে আহত ভারতীয় কিশোরকে হস্তান্তর
jugantor
বিএসএফের গুলিতে আহত ভারতীয় কিশোরকে হস্তান্তর

  ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি  

১২ এপ্রিল ২০২১, ১৫:০৮:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বিএসএফের গুলিতে আহত ভারতীয় কিশোরকে হস্তান্তর

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী সীমান্তের ওপারে বিএসএফের গুলিতে ভারতীয় কিশোরকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে গুরুতর আহতাবস্থায় ফেরত দিয়েছে পুলিশ ও বিজিবি।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তের ৯৪৬/৩ পিলারের কাছে বড়াইয়েরতল দিয়ে ফেরত দেওয়া হয় তাকে।

গুলিবিদ্ধ মো. মিলন মিয়া (১৮) ভারতের কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানার সীমান্তবর্তী শাহিদালের কুঠি গ্রামের মো. জগু আলমের ছেলে।

পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ রাজীব কুমার রায়, নাগেশ্বরী থানার ওসি রওশন কবির, ১৫ বিজিবি লালমনিরহাট কাশিপুর কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার ইকবাল হোসেন, নায়েক সুবেদার মমতাজ উদ্দিন ও ভারতের পক্ষে ১৯২ বিএসএফের এসি নিতিশ কুমার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, শনিবার রাত ৮টার দিকে মাদকসহ বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ভারতীয় ১৯২ বিএসএফ ঝিকরি বিওপির সদস্যরা টহলরত অবস্থায় দেখতে পেয়ে মিলনকে গুলি করে। পরে তিনি মারাত্মক আহতাবস্থায় গোপনে বাংলাদেশে তার নানাবাড়ি জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ দোয়ালীপাড়া গ্রামের মকবুল হোসেনের বাড়িতে যান।

পরে তার অবস্থার অবনতি হলে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। তার ডান হাতে ও বুকের ডান পাশে গুলি লাগে।

বিএসএফের গুলিতে আহত ভারতীয় কিশোরকে হস্তান্তর

 ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি 
১২ এপ্রিল ২০২১, ০৩:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিএসএফের গুলিতে আহত ভারতীয় কিশোরকে হস্তান্তর
ছবি: যুগান্তর

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী সীমান্তের ওপারে বিএসএফের গুলিতে ভারতীয় কিশোরকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে গুরুতর আহতাবস্থায় ফেরত দিয়েছে পুলিশ ও বিজিবি।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তের ৯৪৬/৩ পিলারের কাছে বড়াইয়েরতল দিয়ে ফেরত দেওয়া হয় তাকে।

গুলিবিদ্ধ মো. মিলন মিয়া (১৮) ভারতের কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানার সীমান্তবর্তী শাহিদালের কুঠি গ্রামের মো. জগু আলমের ছেলে।

পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ রাজীব কুমার রায়, নাগেশ্বরী থানার ওসি রওশন কবির, ১৫ বিজিবি লালমনিরহাট কাশিপুর কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার ইকবাল হোসেন, নায়েক সুবেদার মমতাজ উদ্দিন ও ভারতের পক্ষে ১৯২ বিএসএফের এসি নিতিশ কুমার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, শনিবার রাত ৮টার দিকে মাদকসহ বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ভারতীয় ১৯২ বিএসএফ ঝিকরি বিওপির সদস্যরা টহলরত অবস্থায় দেখতে পেয়ে মিলনকে গুলি করে। পরে তিনি মারাত্মক আহতাবস্থায় গোপনে বাংলাদেশে তার নানাবাড়ি জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ দোয়ালীপাড়া গ্রামের মকবুল হোসেনের বাড়িতে যান।

পরে তার অবস্থার অবনতি হলে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয়। তার ডান হাতে ও বুকের ডান পাশে গুলি লাগে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন