বাঞ্ছারামপুরের কিশোরীদের দেশসেরা হওয়ার স্বপ্ন
jugantor
বাঞ্ছারামপুরের কিশোরীদের দেশসেরা হওয়ার স্বপ্ন

  সাব্বির আহমেদ সুবীর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে   

১৬ এপ্রিল ২০২১, ২২:১৩:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বাঞ্ছারামপুরের কিশোরী ফুটবলাররা স্বপ্ন দেখেন দেশসেরা হওয়ার। তাদের এই স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে প্রয়াস চালাচ্ছে ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম ফুটবল ক্লাব। দেশসেরা হওয়ার স্বপ্নে তারা নিয়মিত কঠোর পরিশ্রম করছে।

এই ক্লাবের অনেক মেধাবী খেলোয়াড় ইতোমধ্যে দৃষ্টি কেড়েছে জাতীয় দলের নির্বাচক কমিটিকে। অনেকেই ইতোমধ্যে বিকেএসপিতে ভর্তি হতে পেরেছেন তাদের যোগ্যতার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে। এই ক্লাবের কিশোরীরা চলতি বছর জাতীয় পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসে রানার্সআপ হয়ে চমক দেখিয়েছে। টাইব্রেকারে হেরে চ্যাম্পিয়ন না হওয়ার কষ্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের। পুরো টুর্নামেন্ট দুর্দান্ত খেলে গোটা দেশের নারী ফুটবলারদের মাঝে রীতিমতো চমক লাগিয়ে দিয়েছে তারা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলামের নামে ২০১৫ সালে গঠন করা হয় ‘ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম ফুটবল ক্লাব’। এ ক্লাবটি স্থানীয় ফুটবল খেলায় বেশ ভালো ভূমিকা পালন করে আসছে। ক্লাবের মেয়েরা ২০১৯ সালে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে বাঞ্ছারামপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পক্ষে খেলে জাতীয় পর্যায়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করে। ক্যাপ্টেন তাজুল ইসলামের সহযোগিতায় এই ক্লাবের মেয়েরা এগিয়ে যাচ্ছে দুর্বারগতিতে। বর্তমানে এই ক্লাবে ৪০ জন কিশোরী খেলোয়াড় রয়েছে।

বাঞ্ছারামপুর সরকারি এসএম পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রতিদিন সকালে মেয়েরা অনুশীলন করছে। ফুটবল খেলার নানান কলাকৌশল শিক্ষা দিচ্ছেন কোচ মো. রফিকুল ইসলাম, তাইবুর হাসান মাসুম, সুনীল দে। প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত পুরোদমে খেলোয়াড়দের অনুশীলন করাচ্ছেন।

সংসদ সদস্য ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম বলেন, আমি চাই এসব ছোট্ট সোনামণিরা দেশসেরা খেলোয়াড় হবে। তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমি কাজ করে যাচ্ছি এবং আগামীতেও কাজ করে যাব। আমি প্রতিদিনই তাদের মাঠের অনুশীলনের খোঁজখবর রাখছি এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছি। আমি আশা করি ওরা দেশসেরা খেলোয়াড় হয়ে বাঞ্ছারামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে।

ক্লাবের সভাপতি মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম তুষার বলেন, আমাদের ক্লাব গঠনের অন্যতম লক্ষ্য তৃণমূল থেকে মেধাবী খেলোয়াড় তুলে আনা। ইতোমধ্যে আমরা একঝাঁক প্রতিভাবান কিশোরীকে মাঠে প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। তারা বঙ্গবন্ধু ৯ম গেমসে রানার্সআপ হয়েছে।

বাঞ্ছারামপুরের কিশোরীদের দেশসেরা হওয়ার স্বপ্ন

 সাব্বির আহমেদ সুবীর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে  
১৬ এপ্রিল ২০২১, ১০:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাঞ্ছারামপুরের কিশোরী ফুটবলাররা স্বপ্ন দেখেন দেশসেরা হওয়ার। তাদের এই স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে প্রয়াস চালাচ্ছে ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম ফুটবল ক্লাব। দেশসেরা হওয়ার স্বপ্নে তারা নিয়মিত কঠোর পরিশ্রম করছে।

এই ক্লাবের অনেক মেধাবী খেলোয়াড় ইতোমধ্যে দৃষ্টি কেড়েছে জাতীয় দলের নির্বাচক কমিটিকে। অনেকেই ইতোমধ্যে বিকেএসপিতে ভর্তি হতে পেরেছেন তাদের যোগ্যতার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে। এই ক্লাবের কিশোরীরা চলতি বছর জাতীয় পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসে রানার্সআপ হয়ে চমক দেখিয়েছে। টাইব্রেকারে হেরে চ্যাম্পিয়ন না হওয়ার কষ্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের। পুরো টুর্নামেন্ট দুর্দান্ত খেলে গোটা দেশের নারী ফুটবলারদের মাঝে রীতিমতো চমক লাগিয়ে দিয়েছে তারা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলামের নামে ২০১৫ সালে গঠন করা হয় ‘ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম ফুটবল ক্লাব’। এ ক্লাবটি স্থানীয় ফুটবল খেলায় বেশ ভালো ভূমিকা পালন করে আসছে। ক্লাবের মেয়েরা ২০১৯ সালে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে বাঞ্ছারামপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পক্ষে খেলে জাতীয় পর্যায়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করে। ক্যাপ্টেন তাজুল ইসলামের সহযোগিতায় এই ক্লাবের মেয়েরা এগিয়ে যাচ্ছে দুর্বারগতিতে। বর্তমানে এই ক্লাবে ৪০ জন কিশোরী খেলোয়াড় রয়েছে।

বাঞ্ছারামপুর সরকারি এসএম পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রতিদিন সকালে মেয়েরা অনুশীলন করছে। ফুটবল খেলার নানান কলাকৌশল শিক্ষা দিচ্ছেন কোচ মো. রফিকুল ইসলাম, তাইবুর হাসান মাসুম, সুনীল দে। প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত পুরোদমে খেলোয়াড়দের অনুশীলন করাচ্ছেন। 

সংসদ সদস্য ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম বলেন, আমি চাই এসব ছোট্ট সোনামণিরা দেশসেরা খেলোয়াড় হবে। তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমি কাজ করে যাচ্ছি এবং আগামীতেও কাজ করে যাব। আমি প্রতিদিনই তাদের মাঠের অনুশীলনের খোঁজখবর রাখছি এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছি। আমি আশা করি ওরা দেশসেরা খেলোয়াড় হয়ে বাঞ্ছারামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। 

ক্লাবের সভাপতি মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম তুষার বলেন, আমাদের ক্লাব গঠনের অন্যতম লক্ষ্য তৃণমূল থেকে মেধাবী খেলোয়াড় তুলে আনা। ইতোমধ্যে আমরা একঝাঁক প্রতিভাবান কিশোরীকে মাঠে প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। তারা বঙ্গবন্ধু ৯ম গেমসে রানার্সআপ হয়েছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন