মানিকগঞ্জে চলছে কঠোর লকডাউন
jugantor
মানিকগঞ্জে চলছে কঠোর লকডাউন

  মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৭ এপ্রিল ২০২১, ১৫:১৫:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

সারাদেশের মতো মানিকগঞ্জেও কঠোর লকডাউন অব্যাহত রয়েছে। কেউ বিনা প্রয়োজনে বের হলে পুলিশের জেরার মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

লকডাউনে যানবাহনসহ মানুষজনের চলাচল নিয়ন্ত্রণেও পুলিশ এবং র‌্যাবের ভ্রাম্যমান টিম কাজ করছে।

এদিকে লকডাউনে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়াতে ফেরি পারাপার বন্ধ থাকলেও জরুরি পণ্যবাহী গাড়ি, রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স এবং অতি জরুরি ও রাষ্ট্রীয় কাজে ব্যবহৃত যানবাহন পারাপারে সীমিতভাবে ফেরি চলাচলের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

লকডাউনে মানুষজনকে ঘরে রাখতে পুলিশ সর্বাত্মক চেষ্টা করছে। মানিকগঞ্জ শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, রাস্তায় কেউ বের হলে তিনি পুলিশের জেরার মুখে পড়ছেন। পুলিশ তাদের বাড়িতে অবস্থান করতে বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছেন।

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান সাংবাদিকদের বলেন, লকডাউন কার্যকর করতে মহাসড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। এছাড়া পাটুরিয়া ফেরিঘাটে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনীয় গাড়ি এবং লকডাউন আওতার বাইরে রয়েছে এমন যানবাহন ছাড়া সকাল ৬টার পর থেকে অন্য কোনো যানবাহনই চলতে দেওয়া হচ্ছে না। প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের না হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

পাটুরিয়া ঘাট এলাকাসহ ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে জেলার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের তল্লাশি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে।

লকডাউনের আওতামুক্ত গাড়ি ছাড়া অন্য যানবাহনগুলোকে চলাচল এবং ফেরিতে পারাপার করতে দেওয়া হচ্ছে না।

মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় শুধু ওষুধ ও ফলের দোকান এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান খোলা থাকতে দেখা গেছে। এ ছাড়া জেলা শহরের প্রধান সড়ক শহীদ রফিক সড়কেও বিভিন্ন শপিং মল, বিপণিবিতান ও দোকানপাট বন্ধ রয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ভারপ্রাপ্ত) জিল্লুর রহমান জানান, শুধু জরুরি প্রয়োজনীয় ও লকডাউন আওতার বাইরে থাকা গাড়িগুলোকেই পারাপারের টিকিট দেওয়া হচ্ছে। মাত্র দুটি ফেরিতে জরুরি পারাপার করা হচ্ছে।

মানিকগঞ্জে চলছে কঠোর লকডাউন

 মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সারাদেশের মতো মানিকগঞ্জেও কঠোর লকডাউন অব্যাহত রয়েছে। কেউ বিনা প্রয়োজনে বের হলে পুলিশের জেরার মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

লকডাউনে যানবাহনসহ মানুষজনের চলাচল নিয়ন্ত্রণেও পুলিশ এবং র‌্যাবের ভ্রাম্যমান টিম কাজ করছে।  

এদিকে লকডাউনে পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়াতে ফেরি পারাপার বন্ধ থাকলেও জরুরি পণ্যবাহী গাড়ি, রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স এবং অতি জরুরি ও রাষ্ট্রীয় কাজে ব্যবহৃত যানবাহন পারাপারে সীমিতভাবে ফেরি চলাচলের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

লকডাউনে মানুষজনকে ঘরে রাখতে পুলিশ সর্বাত্মক চেষ্টা করছে। মানিকগঞ্জ শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, রাস্তায় কেউ বের হলে তিনি পুলিশের জেরার মুখে পড়ছেন। পুলিশ তাদের বাড়িতে অবস্থান করতে বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছেন।

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান সাংবাদিকদের বলেন, লকডাউন কার্যকর করতে মহাসড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। এছাড়া পাটুরিয়া ফেরিঘাটে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনীয় গাড়ি এবং লকডাউন আওতার বাইরে রয়েছে এমন যানবাহন ছাড়া সকাল ৬টার পর থেকে অন্য কোনো যানবাহনই চলতে দেওয়া হচ্ছে না। প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের না হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

পাটুরিয়া ঘাট এলাকাসহ ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে জেলার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের তল্লাশি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে।

লকডাউনের আওতামুক্ত গাড়ি ছাড়া অন্য যানবাহনগুলোকে চলাচল এবং ফেরিতে পারাপার করতে দেওয়া হচ্ছে না।

মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় শুধু ওষুধ ও ফলের দোকান এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান খোলা থাকতে দেখা গেছে। এ ছাড়া জেলা শহরের প্রধান সড়ক শহীদ রফিক সড়কেও বিভিন্ন শপিং মল, বিপণিবিতান ও দোকানপাট বন্ধ রয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ভারপ্রাপ্ত) জিল্লুর রহমান জানান, শুধু জরুরি প্রয়োজনীয় ও লকডাউন আওতার বাইরে থাকা গাড়িগুলোকেই পারাপারের টিকিট দেওয়া হচ্ছে। মাত্র দুটি ফেরিতে জরুরি পারাপার করা হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন