রিকশায় মাস্কবিহীন যুবক, নামতে বলায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি
jugantor
রিকশায় মাস্কবিহীন যুবক, নামতে বলায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি

  ফেনী প্রতিনিধি  

১৯ এপ্রিল ২০২১, ২০:১৩:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনের মধ্যে রিকশায় যাচ্ছিলেন এক যুবক। তার মুখেও মাস্ক ছিল না। এসময় পুলিশ তাকে নামতে বলেন। এতে পুলিশের সঙ্গে ওই যুবকের ধস্তাধস্তি হয়। রোববার দুপুরে ফেনী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ওই যুবকের নাম মো. শহিদ। তিনি ফেনী সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের বাসিন্দা ও সাবেক ছাত্রলীগ কর্মী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হওয়ায় শহরের ট্রাঙ্ক রোডে ফেনী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটের সামনে একটি রিকশা থামান মডেল থানার এসআই যশোমন্ত মজুমদার ও পুলিশ সদস্যরা। এ সময় রিকশায় বসে থাকা মাস্কবিহীন শহিদকে নামতে বলেন। শহিদ না নেমে পুলিশের সঙ্গে তর্ক শুরু করেন। তর্কের একপর্যায়ে তার শার্টের কলার ধরে রিকশা থেকে নিচে নামায় পুলিশ।

এ সময় পুলিশের সঙ্গে শহিদের হাতাহাতি লেগে যায়। একপর্যায়ে একাধিক পুলিশ সদস্য যুবককে জাপটে ধরেন এবং হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে দেন।

পুলিশ জানায়, এর আগেও পুলিশকে গালিগালাজ করায় শহরের শহীদ মিনারের সামনে থেকে শহিদকে আটক হয়েছিল। বেশ কিছুদিন ধরেই মাঝেমধ্যে এমন আচরণ করেন শহিদ।

ওই যুবকের মানসিক সমস্যা আছে উল্লেখ করে ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ওমর হায়দার বলেন, রোববার মডেল স্কুলের সামনে থেকে শহিদকে আটক করে পুলিশ। পরে মুচলেকা নিয়ে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

রিকশায় মাস্কবিহীন যুবক, নামতে বলায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি

 ফেনী প্রতিনিধি 
১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৮:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনের মধ্যে রিকশায় যাচ্ছিলেন এক যুবক। তার মুখেও মাস্ক ছিল না। এসময় পুলিশ তাকে নামতে বলেন। এতে পুলিশের সঙ্গে ওই যুবকের ধস্তাধস্তি হয়। রোববার দুপুরে ফেনী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ওই যুবকের নাম মো. শহিদ। তিনি ফেনী সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের বাসিন্দা ও সাবেক ছাত্রলীগ কর্মী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হওয়ায় শহরের ট্রাঙ্ক রোডে ফেনী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটের সামনে একটি রিকশা থামান মডেল থানার এসআই যশোমন্ত মজুমদার ও পুলিশ সদস্যরা। এ সময় রিকশায় বসে থাকা মাস্কবিহীন শহিদকে নামতে বলেন। শহিদ না নেমে পুলিশের সঙ্গে তর্ক শুরু করেন। তর্কের একপর্যায়ে তার শার্টের কলার ধরে রিকশা থেকে নিচে নামায় পুলিশ। 

এ সময় পুলিশের সঙ্গে শহিদের হাতাহাতি লেগে যায়। একপর্যায়ে একাধিক পুলিশ সদস্য যুবককে জাপটে ধরেন এবং হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে দেন।

পুলিশ জানায়, এর আগেও পুলিশকে গালিগালাজ করায় শহরের শহীদ মিনারের সামনে থেকে শহিদকে আটক হয়েছিল। বেশ কিছুদিন ধরেই মাঝেমধ্যে এমন আচরণ করেন শহিদ।

ওই যুবকের মানসিক সমস্যা আছে উল্লেখ করে ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ওমর হায়দার বলেন, রোববার মডেল স্কুলের সামনে থেকে শহিদকে আটক করে পুলিশ। পরে মুচলেকা নিয়ে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন