পাবনার পল্লীতে উত্তেজক সিরাপ তৈরির কারখানা
jugantor
পাবনার পল্লীতে উত্তেজক সিরাপ তৈরির কারখানা

  পাবনা প্রতিনিধি  

২০ এপ্রিল ২০২১, ০০:২৯:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

ডিবি পুলিশ সোমবার পাবনা শহরের কৃঞ্চপুরে অভিযান চালিয়ে একটি অবৈধ যৌন উত্তেজক সিরাপ তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই কারখানা থেকে বিপুল পরিমাণ যৌন উত্তেজক সিরাপ, লজেন্স এবং এসব তৈরির উপকরণ জব্দ করা হয়। এ সময় ৩ জনকে আটক করা হয়।

পাবনা ডিবি পুলিশের ওসি আব্দুল হান্নান জানান, শহরের কৃঞ্চপুরে মৃত আক্কাস আলীর ছেলে ইমরুল কায়েস (৪০) দীর্ঘদিন ধরে নিজ বাড়িতে কারখানা স্থাপন করে অবৈধ যৌন উত্তেজক সিরাপ ও লজেন্স তৈরি করছিলেন। এসব অবৈধ যৌন উত্তেজক সিরাপ পাবনা শহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে বাজারজাত করছিলেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খানের নির্দেশে ডিবি পুলিশের একটি টিম সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ইমরুর কায়েসের ওই কারখানায় অভিযান চালায়। এসময় ওই কারখানা থেকে বিপুল পরিমাণ যৌন উত্তেজক সিরাপ, লজেন্স এবং এসব তৈরির উপকরণ জব্দ এবং কারখানা মালিককে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া ১৫ দিনের সশ্রম কারাদণ্ড এবং জরিমানা অনাদায়ে আরও ১৫ দিনের কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত কারখানাটি সিলগালা করে দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম।

এসময় পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম এবং সদর থানার ওসি নাসিম আহম্মদ উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, জেলা পুলিশের উদ্যোগে শহরকে সব ধরণের মাদক, অপরাধ ও সন্ত্রাসমুক্ত করার কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। ভবিষ্যতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পাবনার পল্লীতে উত্তেজক সিরাপ তৈরির কারখানা

 পাবনা প্রতিনিধি 
২০ এপ্রিল ২০২১, ১২:২৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ডিবি পুলিশ সোমবার পাবনা শহরের কৃঞ্চপুরে অভিযান চালিয়ে একটি অবৈধ যৌন উত্তেজক সিরাপ তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই কারখানা থেকে বিপুল পরিমাণ যৌন উত্তেজক সিরাপ, লজেন্স এবং এসব তৈরির উপকরণ জব্দ করা হয়। এ সময় ৩ জনকে আটক করা হয়।

পাবনা ডিবি পুলিশের ওসি আব্দুল হান্নান জানান, শহরের কৃঞ্চপুরে মৃত আক্কাস আলীর ছেলে ইমরুল কায়েস (৪০) দীর্ঘদিন ধরে নিজ বাড়িতে কারখানা স্থাপন করে অবৈধ যৌন উত্তেজক সিরাপ ও লজেন্স তৈরি করছিলেন। এসব অবৈধ যৌন উত্তেজক সিরাপ পাবনা শহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে বাজারজাত করছিলেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খানের নির্দেশে ডিবি পুলিশের একটি টিম সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ইমরুর কায়েসের ওই কারখানায় অভিযান চালায়। এসময় ওই কারখানা থেকে বিপুল পরিমাণ যৌন উত্তেজক সিরাপ, লজেন্স এবং এসব তৈরির উপকরণ জব্দ এবং কারখানা মালিককে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া ১৫ দিনের সশ্রম কারাদণ্ড এবং জরিমানা অনাদায়ে আরও ১৫ দিনের কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত কারখানাটি সিলগালা করে দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম।

এসময় পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম এবং সদর থানার ওসি নাসিম আহম্মদ উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, জেলা পুলিশের উদ্যোগে শহরকে সব ধরণের মাদক, অপরাধ ও সন্ত্রাসমুক্ত করার কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। ভবিষ্যতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন