ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে পুড়ে ভিক্ষুকের মৃত্যু
jugantor
ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে পুড়ে ভিক্ষুকের মৃত্যু

  ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি  

২০ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৫৫:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে পুড়ে ভিক্ষুকের মৃত্যু

নীলফামারীর ডোমারে ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে দগ্ধ হয়ে এক ভিক্ষুকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম জোবেদা খাতুন (৬৫)।

মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে ডোমার উপজেলা প্রেসক্লাবসংলগ্ন রেললাইনের ধারে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার রাত ১টার দিকে ডোমার প্রেসক্লাবসংলগ্ন রেললাইনের ধারে থাকা ভিক্ষুক জোবেদা খাতুনের ঝুপড়িঘরে আগুন লাগে। এ সময় বৃদ্ধা জোবেদা খাতুন ঘুমিয়ে ছিলেন।

আগুন দ্রুত চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে ওই ঘরে দগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় জোবেদার।

পরে খবর পেয়ে ডোমার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণসহ ভিক্ষুক জোবেদা খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ডোমার স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজান আলী জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণ করা হচ্ছে— মশা তাড়ানোর কয়েলের আগুন থেকে এর সূত্রপাত। আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ায় দগ্ধ হয়ে ওই বৃদ্ধা মৃত্যুবরণ করেন।

ভিক্ষুক জোবেদা খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ডোমার পৌর কাউন্সিলর আখতারুজ্জামান সুমন জানান, দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে ডোমার প্রেসক্লাবসংলগ্ন রেললাইনের ধারে ঝুপড়িঘর তুলে বসবাস করছিলেন জোবেদা খাতুন। তার পরিবারের কেউ আছে কিনা বা তার প্রকৃত ঠিকানা কি তা আমাদের জানা নেই। ভিক্ষা করেই জীবিকা নির্বাহ করতেন তিনি।

ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে পুড়ে ভিক্ষুকের মৃত্যু

 ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি 
২০ এপ্রিল ২০২১, ০২:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে পুড়ে ভিক্ষুকের মৃত্যু
ছবি: যুগান্তর

নীলফামারীর ডোমারে ঝুপড়িঘরে কয়েলের আগুনে দগ্ধ হয়ে এক ভিক্ষুকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম জোবেদা খাতুন (৬৫)।

মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে ডোমার উপজেলা প্রেসক্লাবসংলগ্ন রেললাইনের ধারে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার রাত ১টার দিকে ডোমার প্রেসক্লাবসংলগ্ন রেললাইনের ধারে থাকা ভিক্ষুক জোবেদা খাতুনের ঝুপড়িঘরে আগুন লাগে। এ সময় বৃদ্ধা জোবেদা খাতুন ঘুমিয়ে ছিলেন।

আগুন  দ্রুত চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে ওই ঘরে দগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় জোবেদার।

পরে খবর পেয়ে ডোমার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণসহ ভিক্ষুক জোবেদা খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ডোমার স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজান আলী জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণ করা হচ্ছে— মশা তাড়ানোর কয়েলের আগুন থেকে এর সূত্রপাত। আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ায় দগ্ধ হয়ে ওই বৃদ্ধা মৃত্যুবরণ করেন।

ভিক্ষুক জোবেদা খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ডোমার পৌর কাউন্সিলর আখতারুজ্জামান সুমন জানান, দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে ডোমার প্রেসক্লাবসংলগ্ন রেললাইনের ধারে ঝুপড়িঘর তুলে বসবাস করছিলেন জোবেদা খাতুন। তার পরিবারের কেউ আছে কিনা বা তার প্রকৃত ঠিকানা কি তা আমাদের জানা নেই। ভিক্ষা করেই জীবিকা নির্বাহ করতেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন