বিদেশি নাগরিকের কাছে ড্রোন ক্যামেরা, খতিয়ে দেখছে পুলিশ
jugantor
বিদেশি নাগরিকের কাছে ড্রোন ক্যামেরা, খতিয়ে দেখছে পুলিশ

  কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২০ এপ্রিল ২০২১, ১৮:১৮:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় মাঠে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ড্রোন ক্যামেরা উদ্ধার করা হয়েছে। ইতোমধ্যে বিদেশি এক নাগরিক ওই ড্রোনটি তার বলে দাবি করেছেন, তবে এটি ব্যবহারে পূর্বানুমতি নেওয়া হয়নি বলে পুলিশ জানিয়েছে।

একই সাথে দেশবিরোধী কোনো তথ্য, ছবি কিংবা ভিডিও পাচারের ক্ষেত্রে এর ব্যবহার হচ্ছিল কিনা- এটি পুলিশ এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি।

সোমবার বিকালে ড্রোনটি কুয়াকাটা পর্যটন কেন্দ্র এবং দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সাবমেরিন কেবল ল্যান্ডিং স্টেশনের অদূরে লক্ষ্মীপাড়া গ্রামের মাঠে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

মহিপুর থানার পুলিশ যুগান্তরকে জানান, মাঠে পাওয়া ড্রোনটি সোমবার রাতে লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। এরপর ড্রোনের মালিকানা দাবি করে মিখাইল নামে বেলজিয়ামের নাগরিক তার দুজন সহকর্মীকে নিয়ে থানায় আসেন।

মিখাইল দাবি করেছেন, এই ড্রোন পায়রা সমুদ্রবন্দর এলাকায় ড্রেজিংয়ের সার্ভে কাজে ব্যবহারের জন্য বিদেশ থেকে আনা হয়েছে। ওই বেলজিয়ামের নাগরিক কুয়াকাটার সিকদার রিসোর্টের একটি ভিলায় অবস্থানের সময় সোমবার দুপুরে ড্রোনটি পরীক্ষামূলক আকাশে উড়িয়েছিলেন বলেও দাবি করেছেন। এ সময় ড্রোনটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভূপাতিত হয়েছে বলে ওই বিদেশি নাগরিকের দাবি।

পুলিশ জানিয়েছে, মিখাইল পায়রা সমুদ্র বন্দরের নদী খনন কাজে নিয়োজিত রয়েছেন।

প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে এটি আকাশে উড্ডয়নের জন্য পূর্বানুমতি নেওয়া হয়নি জানিয়ে মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া ড্রোনের মালিক একজন বেলজিয়ামের নাগরিক। তবে এটি কোনো দেশবিরোধী কাজে ব্যবহার হয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বিদেশি নাগরিকের কাছে ড্রোন ক্যামেরা, খতিয়ে দেখছে পুলিশ

 কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২০ এপ্রিল ২০২১, ০৬:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় মাঠে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ড্রোন ক্যামেরা উদ্ধার করা হয়েছে। ইতোমধ্যে বিদেশি এক নাগরিক ওই ড্রোনটি তার বলে দাবি করেছেন, তবে এটি ব্যবহারে পূর্বানুমতি নেওয়া হয়নি বলে পুলিশ জানিয়েছে।

একই সাথে দেশবিরোধী কোনো তথ্য, ছবি কিংবা ভিডিও পাচারের ক্ষেত্রে এর ব্যবহার হচ্ছিল কিনা- এটি পুলিশ এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি।

সোমবার বিকালে ড্রোনটি কুয়াকাটা পর্যটন কেন্দ্র এবং দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সাবমেরিন কেবল ল্যান্ডিং স্টেশনের অদূরে লক্ষ্মীপাড়া গ্রামের মাঠে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

মহিপুর থানার পুলিশ যুগান্তরকে জানান, মাঠে পাওয়া ড্রোনটি সোমবার রাতে লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। এরপর ড্রোনের মালিকানা দাবি করে মিখাইল নামে বেলজিয়ামের নাগরিক তার দুজন সহকর্মীকে নিয়ে থানায় আসেন।

মিখাইল দাবি করেছেন, এই ড্রোন পায়রা সমুদ্রবন্দর এলাকায় ড্রেজিংয়ের সার্ভে কাজে ব্যবহারের জন্য বিদেশ থেকে আনা হয়েছে। ওই বেলজিয়ামের নাগরিক কুয়াকাটার সিকদার রিসোর্টের একটি ভিলায় অবস্থানের সময় সোমবার দুপুরে ড্রোনটি পরীক্ষামূলক আকাশে উড়িয়েছিলেন বলেও দাবি করেছেন। এ সময় ড্রোনটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভূপাতিত হয়েছে বলে ওই বিদেশি নাগরিকের দাবি।

পুলিশ জানিয়েছে, মিখাইল পায়রা সমুদ্র বন্দরের নদী খনন কাজে নিয়োজিত রয়েছেন।

প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে এটি আকাশে উড্ডয়নের জন্য পূর্বানুমতি নেওয়া হয়নি জানিয়ে মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া ড্রোনের মালিক একজন বেলজিয়ামের নাগরিক। তবে এটি কোনো দেশবিরোধী কাজে ব্যবহার হয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন