বিয়ের পরদিনই বরিশাল ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ
jugantor
ব্যবস্থা নিতে মহানগর আ’লীগের সুপারিশ
বিয়ের পরদিনই বরিশাল ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

  বরিশাল ব্যুরো   

২১ এপ্রিল ২০২১, ১৮:০৪:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন রোববার বিয়ে করেন। এর পরদিন সোমবার রাতে ধষর্ণ এবং গর্ভপাতের অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেন এক তরুণী।

এদিকে তার বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ ওঠায় বিব্রত মহানগর আওয়ামী লীগ। জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটিকে সুপারিশও করা হয়েছে।

এদিকে আজকের মধ্যে ঘরে তুলে না নিলে ধর্ষণ অভিযোগ তুলে নেওয়া দূরের কথা, আগামীকাল সংবাদ সম্মেলন করে নানা অপকর্ম প্রকাশ করার আলটিমেটাম দিয়েছেন ভুক্তভোগী তরুণী।

তরুণীর অভিযোগ, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন জসিম। অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বরিশাল সদর হাসপাতালে গর্ভপাতও করানো হয়।

সোমবার রাতে ওই অভিযোগ দায়েরের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জসিমের সঙ্গে তরুণীর বেশ কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

রোববার পারিবারিকভাবে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন জসিম। আর এরপরই প্রতারণা ও ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন ওই তরুণী। এমনকি বুধবারের মধ্যে তাকে ঘরে না তুললে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারি দিয়েছেন।

ফোনে ওই তরুণী জানান, দীর্ঘ প্রেমের সম্পর্কের পর বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করা হয় তাকে। এরপর গর্ভপাত। তাকে ঘরে তুলে না নিলে জসিমের নানা অপকর্ম তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলন করার কথা বলেন ওই তরুণী।

এ ব্যাপারে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসীম উদ্দিন বলেছেন, রাজনৈতিক চক্রান্তের শিকার আমি। যে মেয়েকে দিয়ে এ অভিযোগ করানো হয়েছে সেই মেয়ে সম্পর্কে আমার আত্মীয় হয়। তাকেই ঢাল বানিয়ে আমার বিয়ের পরেই আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলা হচ্ছে। এর আগেও টপ টেন শো রুম ভাংচুর করে আমার নাম দেয়া হয়েছিল। পরে সাংবাদিকদের অনুসন্ধানে সত্য বেরিয়ে আসে। এবারও এমন ষড়যন্ত্রের শিকার আমি। মানসিকভাবেই আমাকে ধ্বংস করার পাঁয়তারা করছে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা।

বরিশাল এয়ারপোর্ট থানার ওসি কমলেশ চন্দ্র হালদার বলেন, অভিযোগ দিয়েছেন ওই তরুণী। তবে সত্যতা যাচাই চলছে। ওই তরুণীর বাসায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে কিন্তু তিনি থানায় আসতে চাচ্ছেন না।

এদিকে এ ঘটনায় বিব্রত বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ। ভাবমূর্তি রক্ষায় আর বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর। তিনি জানান, এছাড়া ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সুপারিশও করা হয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে।

ব্যবস্থা নিতে মহানগর আ’লীগের সুপারিশ

বিয়ের পরদিনই বরিশাল ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

 বরিশাল ব্যুরো  
২১ এপ্রিল ২০২১, ০৬:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন রোববার বিয়ে করেন। এর পরদিন সোমবার রাতে ধষর্ণ এবং গর্ভপাতের অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেন এক তরুণী। 

এদিকে তার বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ ওঠায় বিব্রত মহানগর আওয়ামী লীগ। জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটিকে সুপারিশও করা হয়েছে। 

এদিকে আজকের মধ্যে ঘরে তুলে না নিলে ধর্ষণ অভিযোগ তুলে নেওয়া দূরের কথা, আগামীকাল সংবাদ সম্মেলন করে নানা অপকর্ম প্রকাশ করার আলটিমেটাম দিয়েছেন ভুক্তভোগী তরুণী।

তরুণীর অভিযোগ, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন জসিম। অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বরিশাল সদর হাসপাতালে গর্ভপাতও করানো হয়। 

সোমবার রাতে ওই অভিযোগ দায়েরের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জসিমের সঙ্গে তরুণীর বেশ কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি ছড়িয়ে পড়ে।

রোববার পারিবারিকভাবে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন জসিম। আর এরপরই প্রতারণা ও ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন ওই তরুণী। এমনকি বুধবারের মধ্যে তাকে ঘরে না তুললে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারি দিয়েছেন। 

ফোনে ওই তরুণী জানান, দীর্ঘ প্রেমের সম্পর্কের পর বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করা হয় তাকে। এরপর গর্ভপাত। তাকে ঘরে তুলে না নিলে জসিমের নানা অপকর্ম তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলন করার কথা বলেন ওই তরুণী। 

এ ব্যাপারে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসীম উদ্দিন বলেছেন, রাজনৈতিক চক্রান্তের শিকার আমি। যে মেয়েকে দিয়ে এ অভিযোগ করানো হয়েছে সেই মেয়ে সম্পর্কে আমার আত্মীয় হয়। তাকেই ঢাল বানিয়ে আমার বিয়ের পরেই আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলা হচ্ছে। এর আগেও টপ টেন শো রুম ভাংচুর করে আমার নাম দেয়া হয়েছিল। পরে সাংবাদিকদের অনুসন্ধানে সত্য বেরিয়ে আসে। এবারও এমন ষড়যন্ত্রের শিকার আমি। মানসিকভাবেই আমাকে ধ্বংস করার পাঁয়তারা করছে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা। 

বরিশাল এয়ারপোর্ট থানার ওসি কমলেশ চন্দ্র হালদার বলেন, অভিযোগ দিয়েছেন ওই তরুণী। তবে সত্যতা যাচাই চলছে। ওই তরুণীর বাসায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে কিন্তু তিনি থানায় আসতে চাচ্ছেন না। 

এদিকে এ ঘটনায় বিব্রত বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ। ভাবমূর্তি রক্ষায় আর বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর। তিনি জানান, এছাড়া ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সুপারিশও করা হয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন