ইভার মেডিকেল কলেজে ভর্তির দায়িত্ব নিলেন ইউএনও
jugantor
ইভার মেডিকেল কলেজে ভর্তির দায়িত্ব নিলেন ইউএনও

  বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি  

২১ এপ্রিল ২০২১, ১৮:০৬:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউএনও-ইভা

যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশের পর নাটোরের বাগাতিপাড়া থেকে মাগুরা মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পাওয়া মেধাবী ছাত্রী ইভা খাতুনের মেডিকেল কলেজে ভর্তির দায়িত্ব নিয়েছেন বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রিয়াংকা দেবী পাল।

একই সঙ্গে ‘আমার হৃদয়ে নাটোর’ ও ‘পুসান’ নামে দুটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও তাকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। বুধবার দুপুরে ইউএনও প্রিয়াংকা দেবী পাল ইভা খাতুনকে ফোনে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভর্তির সার্বিক আর্থিক সহযোগিতা প্রদানের কথা জানিয়েছেন।

এ সময় ইউএনও যুগান্তরের বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধিকেও ফোন করে মানবিক রিপোর্টের জন্য তাকে এবং যুগান্তর পরিবারকে ধন্যবাদ জানান।

এদিকে ‘আমার হৃদয়ে নাটোর’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে ইভার লেখাপড়ার খরচ চালাতে নিয়মিত সহযোগিতার আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

সংগঠনটির সংগঠক নাটোর প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফারাজী আহম্মদ রফিক বাবন বলেন, মেধাবী ইভার পড়াশুনা যেন অর্থাভাবে থমকে না যায় সেজন্য তার সংগঠনের পক্ষ থেকে শিক্ষাবৃত্তির আওতায় এনে মাসিকভাবে সাধ্যমতো তাকে সহযোগিতা করা হবে।

অপরদিকে পুসান (পাবলিক ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব নাটোর, বাংলাদেশ) নামের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের নিয়ে গঠিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকেও ইভার মেডিকেলে ভর্তি ও মাসিক বৃত্তির আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সংগঠনটির সভাপতি তানভীর আনোয়ার মুঠো ফোনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, প্রায় আড়াই বছর বয়সে বাগাতিপাড়ার সলইপাড়া গ্রামের ইভা খাতুন বাবাকে হারিয়ে তার স্বল্প শিক্ষিত মায়ের টিউশনির টাকায় পড়ালেখার খরচ চালায়। মেডিকেল কলেজে পড়ার সুযোগ পেয়েও ভর্তি নিয়ে ইভা খাতুনের দুশ্চিন্তায় দিন কাটার মানবিক বিষয় তুলে ধরে বুধবার দৈনিক যুগান্তরের প্রিন্ট সংস্করণে ‘দরিদ্রতা ইভার ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণে বাধা’ এবং মঙ্গলবার যুগান্তরের অনলাইন সংস্করণে ‘মেডিকেলে চান্স পেয়ে অর্থাভাবে ভর্তি অনিশ্চিত ইভার’ শিরোনামে সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হলে বিষয়টি সবার দৃষ্টিগোচর হয়।

ইভার মেডিকেল কলেজে ভর্তির দায়িত্ব নিলেন ইউএনও

 বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি 
২১ এপ্রিল ২০২১, ০৬:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউএনও-ইভা
ইউএনও-ইভা। ছবি: সংগৃহীত

যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশের পর নাটোরের বাগাতিপাড়া থেকে মাগুরা মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পাওয়া মেধাবী ছাত্রী ইভা খাতুনের মেডিকেল কলেজে ভর্তির দায়িত্ব নিয়েছেন বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রিয়াংকা দেবী পাল। 

একই সঙ্গে ‘আমার হৃদয়ে নাটোর’ ও ‘পুসান’ নামে দুটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও তাকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। বুধবার দুপুরে ইউএনও প্রিয়াংকা দেবী পাল ইভা খাতুনকে ফোনে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভর্তির সার্বিক আর্থিক সহযোগিতা প্রদানের কথা জানিয়েছেন। 

এ সময় ইউএনও যুগান্তরের বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধিকেও ফোন করে মানবিক রিপোর্টের জন্য তাকে এবং যুগান্তর পরিবারকে ধন্যবাদ জানান। 

এদিকে ‘আমার হৃদয়ে নাটোর’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে ইভার লেখাপড়ার খরচ চালাতে নিয়মিত সহযোগিতার আশ্বাস দেয়া হয়েছে। 

সংগঠনটির সংগঠক নাটোর প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফারাজী আহম্মদ রফিক বাবন বলেন, মেধাবী ইভার পড়াশুনা যেন অর্থাভাবে থমকে না যায় সেজন্য তার সংগঠনের পক্ষ থেকে শিক্ষাবৃত্তির আওতায় এনে মাসিকভাবে সাধ্যমতো তাকে সহযোগিতা করা হবে। 

অপরদিকে পুসান (পাবলিক ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব নাটোর, বাংলাদেশ) নামের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের নিয়ে গঠিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকেও ইভার মেডিকেলে ভর্তি ও মাসিক বৃত্তির আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সংগঠনটির সভাপতি তানভীর আনোয়ার মুঠো ফোনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

প্রসঙ্গত, প্রায় আড়াই বছর বয়সে বাগাতিপাড়ার সলইপাড়া গ্রামের ইভা খাতুন বাবাকে হারিয়ে তার স্বল্প শিক্ষিত মায়ের টিউশনির টাকায় পড়ালেখার খরচ চালায়। মেডিকেল কলেজে পড়ার সুযোগ পেয়েও ভর্তি নিয়ে ইভা খাতুনের দুশ্চিন্তায় দিন কাটার মানবিক বিষয় তুলে ধরে বুধবার দৈনিক যুগান্তরের প্রিন্ট সংস্করণে ‘দরিদ্রতা ইভার ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণে বাধা’ এবং মঙ্গলবার যুগান্তরের অনলাইন সংস্করণে ‘মেডিকেলে চান্স পেয়ে অর্থাভাবে ভর্তি অনিশ্চিত ইভার’ শিরোনামে সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হলে বিষয়টি সবার দৃষ্টিগোচর হয়। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন