স্ত্রী-মেয়ের সামনে শিক্ষককে লাঞ্ছিত
jugantor
স্ত্রী-মেয়ের সামনে শিক্ষককে লাঞ্ছিত

  হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

২১ এপ্রিল ২০২১, ১৯:১৫:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার হোমনায় পূর্বশত্রুতার জেরে মেয়ে ও স্ত্রীর সামনে একজন শিক্ষককে লাঞ্ছিত করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়নের পাথালিয়াকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার দুলালপুর চন্দ্রমণি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক এসএএম রাজটিকা ইফতার শেষে তার শ্বশুরবাড়ি ঘনিয়ারচর যাওয়ার সময় রাস্তার মাঝে একই গ্রামের মো. শাহ আলম নকুলের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা তার ওপর হামলা করে। এতে বাধা দিতে গেলে তার স্ত্রী ও দুই মেয়েও লাঞ্ছিত হন। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে হোমনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাদের ভর্তি করা হয়।

এদিকে একজন মানুষ গড়ার কারিগর সবার প্রিয় শিক্ষক ‘রাজটিকা স্যার’কে তার মেয়েদের সামনে এভাবে লাঞ্ছিতের ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন এলাকাবাসী, ছাত্র ও শিক্ষক সমাজ। এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

এ বিষয়ে শিক্ষক এসএএম রাজটিকা জানান, মো. শাহ আলমের নেতৃত্বে আমার ওপর পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাসী হামলা করা হয়েছে। আমার স্ত্রী ও মেয়েদের লাঞ্ছিত করা হয়েছে। বিচার চেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।

এদিকে মো. শাহ আলম নকুল বলেন, তার মেয়ে অপহরণ মামলায় আমার ছেলের নামে মিথ্যা মামলা দিয়েছিলেন। এর পর থেকে রাজটিকার পরিবারের সঙ্গে আমার পরিবারের বিরোধ চলে আসছে। মঙ্গলবার আমি মাগরিবের নামাজ শেষে রাস্তায় বাহির হলে তার স্ত্রী, মেয়েসহ আমাকে মারধর করে আমার জামাকাপড় ছিঁড়ে ফেলে। আমিও থানায় অভিযোগ দিয়েছি।

হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ জানান, পারিবারিক শত্রুতার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। উভয়পক্ষই থানায় অভিযোগ দিয়েছে। তদন্ত ছাড়া এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্ত্রী-মেয়ের সামনে শিক্ষককে লাঞ্ছিত

 হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
২১ এপ্রিল ২০২১, ০৭:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার হোমনায় পূর্বশত্রুতার জেরে মেয়ে ও স্ত্রীর সামনে একজন শিক্ষককে লাঞ্ছিত করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়নের পাথালিয়াকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার দুলালপুর চন্দ্রমণি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক এসএএম রাজটিকা ইফতার শেষে তার শ্বশুরবাড়ি ঘনিয়ারচর যাওয়ার সময় রাস্তার মাঝে একই গ্রামের মো. শাহ আলম নকুলের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা তার ওপর হামলা করে। এতে বাধা দিতে গেলে তার স্ত্রী ও দুই মেয়েও লাঞ্ছিত হন। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে হোমনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাদের ভর্তি করা হয়।

এদিকে একজন মানুষ গড়ার কারিগর সবার প্রিয় শিক্ষক ‘রাজটিকা স্যার’কে তার মেয়েদের সামনে এভাবে লাঞ্ছিতের ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন এলাকাবাসী, ছাত্র ও শিক্ষক সমাজ। এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

এ বিষয়ে শিক্ষক এসএএম রাজটিকা জানান, মো. শাহ আলমের নেতৃত্বে আমার ওপর পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাসী হামলা করা হয়েছে। আমার স্ত্রী ও মেয়েদের লাঞ্ছিত করা হয়েছে। বিচার চেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।

এদিকে মো. শাহ আলম নকুল বলেন, তার মেয়ে অপহরণ মামলায় আমার ছেলের নামে মিথ্যা মামলা দিয়েছিলেন। এর পর থেকে রাজটিকার পরিবারের সঙ্গে আমার পরিবারের বিরোধ চলে আসছে। মঙ্গলবার আমি মাগরিবের নামাজ শেষে রাস্তায় বাহির হলে তার স্ত্রী, মেয়েসহ আমাকে মারধর করে আমার জামাকাপড় ছিঁড়ে ফেলে। আমিও থানায় অভিযোগ দিয়েছি।

হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ জানান, পারিবারিক শত্রুতার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। উভয়পক্ষই থানায় অভিযোগ দিয়েছে। তদন্ত ছাড়া এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন