আধিপত্য বিস্তার নিয়ে টঙ্গীতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ
jugantor
আধিপত্য বিস্তার নিয়ে টঙ্গীতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ

  টঙ্গী পূর্ব থানা প্রতিনিধি  

২২ এপ্রিল ২০২১, ১৩:০১:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে টঙ্গীতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ

গাজীপুর মহানগরের টঙ্গী পূর্ব থানাধীন হিমারদীঘি কেরানিরটেক বস্তিতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদার স্মৃতি সংসদ ক্লাবের নাম পরিবর্তন এবং আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও আহতদের বরাত দিয়ে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে যুবলীগকর্মী আক্তার হোসেন (৪০), নূর মোহাম্মদ (৪৫) গ্রুপ এবং সাদ্দাম (২৫), বিপ্লব হোসেন (৩২) গ্রুপের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়।

ওই ঘটনা কেন্দ্র করে বুধবার রাতে সাদ্দাম, বিপ্লব হোসেন, আবু সাঈদ, রাসেল, আকাশ ও সিয়াম তাদের গ্রুপের ১০-১২ যুবলীগকর্মী নিয়ে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করার জন্য তার বাসার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন।

এ সময় আক্তার হোসেন ও নূর মোহাম্মদ গ্রুপের ৪০-৫০ যুবলীগকর্মী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ তাদের ওপর হামলা করে।

হামলায় সাদ্দাম, বিপ্লব, আবু সাঈদ, রাসেল, আকাশ, সিয়াম গুরুতর আহত হন। আহতদের দ্রুত চিকিৎসার জন্য শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সাদ্দাম, বিপ্লব, আবু সাঈদ— এই তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ওই ঘটনা কেন্দ্র করে বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার তদন্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, কী কারণে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে— আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করেই এমনটি ঘটেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে টঙ্গীতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ

 টঙ্গী পূর্ব থানা প্রতিনিধি 
২২ এপ্রিল ২০২১, ০১:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আধিপত্য বিস্তার নিয়ে টঙ্গীতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ
ছবি: যুগান্তর

গাজীপুর মহানগরের টঙ্গী পূর্ব থানাধীন হিমারদীঘি কেরানিরটেক বস্তিতে যুবলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদার স্মৃতি সংসদ ক্লাবের নাম পরিবর্তন এবং আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও আহতদের বরাত দিয়ে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে যুবলীগকর্মী আক্তার হোসেন (৪০), নূর মোহাম্মদ (৪৫) গ্রুপ এবং সাদ্দাম (২৫), বিপ্লব হোসেন (৩২) গ্রুপের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়।

ওই ঘটনা কেন্দ্র করে বুধবার রাতে সাদ্দাম, বিপ্লব হোসেন, আবু সাঈদ, রাসেল, আকাশ ও সিয়াম তাদের গ্রুপের ১০-১২ যুবলীগকর্মী নিয়ে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করার জন্য তার বাসার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন।

এ সময় আক্তার হোসেন ও নূর মোহাম্মদ গ্রুপের ৪০-৫০ যুবলীগকর্মী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ তাদের ওপর হামলা করে।

হামলায় সাদ্দাম, বিপ্লব, আবু সাঈদ, রাসেল, আকাশ, সিয়াম গুরুতর আহত হন।  আহতদের দ্রুত চিকিৎসার জন্য শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সাদ্দাম, বিপ্লব, আবু সাঈদ—  এই তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ওই ঘটনা কেন্দ্র করে বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার তদন্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, কী কারণে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে— আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করেই এমনটি ঘটেছে।  আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন