গভীররাতে স্ট্যাটাস দিয়ে বহিষ্কার কেশবপুর আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক
jugantor
গভীররাতে স্ট্যাটাস দিয়ে বহিষ্কার কেশবপুর আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক

  যশোর ব্যুরো ও কেশবপুর প্রতিনিধি  

২২ এপ্রিল ২০২১, ১৫:৫৫:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

গভীর রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে সাময়িক বহিষ্কার হলেন যশোরের কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা।

বৃহস্পতিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। দুপুরে বিষয়টি দৈনিক যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন এসএম রুহুল আমিন।

তবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে কেন্দ্রকে অবহিত করতে হবে। একমাত্র কেন্দ্রই বহিষ্কার করতে পারবে। জেলা কিংবা উপজেলা কমিটির বহিষ্কার করার সুযোগ নেই। গাজী গোলাম মোস্তফার বরখাস্তের বিষয়ে আমার জানা নেই। উপজেলা সভাপতি বহিষ্কার করলে সেটি যথাযথ হয়নি।

বৃহস্পতিবার কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত ওই সাময়িক বহিষ্কার আদেশের চিঠিতে বলা হয়েছে, গাজী গোলাম মোস্তফা মোবাইলে তার ফেসবুকে ২২ এপ্রিল রাত ১টা ৩৪ মিনিটে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যা তাৎক্ষণিকভাবে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও যশোর-৬ ( কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমার (সভাপতি, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ) দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

স্ট্যাটাসটি নিম্নরূপ ‘অভিশপ্ত এক মঞ্জিলে শেখ পরিবারের এক সদস্যের রাত্রিযাপন !!!!!! কি এমন কারণ!!!!!’ তার নিচে একজনের মুখে টেপ আটা।

চিঠিতে আরও বলা হয়, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের জড়িয়ে এহেন কুরুচিপূর্ণ, চাঞ্চল্যকর ও বিভ্রান্তিমূলক মোবাইল স্ট্যাটাস প্রদান করা দলের দায়িত্বশীল ব্যক্তি হিসেবে দলের শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং দলকে নৈরাজ্যের দিকে ঠেলে দেওয়ার হীন চক্রান্ত বলে বিবেচিত হওয়ায় আপনাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হল।

গভীররাতে স্ট্যাটাস দিয়ে বহিষ্কার কেশবপুর আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক

 যশোর ব্যুরো ও কেশবপুর প্রতিনিধি 
২২ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গভীর রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে সাময়িক বহিষ্কার হলেন যশোরের কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা।

বৃহস্পতিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। দুপুরে বিষয়টি দৈনিক যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন এসএম রুহুল আমিন।

তবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে কেন্দ্রকে অবহিত করতে হবে। একমাত্র কেন্দ্রই বহিষ্কার করতে পারবে। জেলা কিংবা উপজেলা কমিটির বহিষ্কার করার সুযোগ নেই। গাজী গোলাম মোস্তফার বরখাস্তের বিষয়ে আমার জানা নেই। উপজেলা সভাপতি বহিষ্কার করলে সেটি যথাযথ হয়নি।

বৃহস্পতিবার কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত ওই সাময়িক বহিষ্কার আদেশের চিঠিতে বলা হয়েছে, গাজী গোলাম মোস্তফা মোবাইলে তার ফেসবুকে ২২ এপ্রিল রাত ১টা ৩৪ মিনিটে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যা তাৎক্ষণিকভাবে  যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও যশোর-৬ ( কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমার (সভাপতি, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ) দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

স্ট্যাটাসটি নিম্নরূপ ‘অভিশপ্ত এক মঞ্জিলে শেখ পরিবারের এক সদস্যের রাত্রিযাপন !!!!!! কি এমন কারণ!!!!!’ তার নিচে একজনের মুখে টেপ আটা।

চিঠিতে আরও বলা হয়, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের জড়িয়ে এহেন কুরুচিপূর্ণ, চাঞ্চল্যকর ও বিভ্রান্তিমূলক মোবাইল স্ট্যাটাস প্রদান করা দলের দায়িত্বশীল ব্যক্তি হিসেবে দলের শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং দলকে নৈরাজ্যের দিকে ঠেলে দেওয়ার হীন চক্রান্ত বলে বিবেচিত হওয়ায় আপনাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর