পালিয়ে বিয়ে করার ২৫ দিনে লাশ হলো ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী
jugantor
পালিয়ে বিয়ে করার ২৫ দিনে লাশ হলো ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

  টঙ্গী পশ্চিম (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

২৩ এপ্রিল ২০২১, ০১:১৩:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

টঙ্গীতে পালিয়ে বিবাহ করার ২৫ দিনের মাথায় রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আক্তারের (১৩)। বৃহস্পতিবার রাতে নিহত সুমাইয়ার স্বামী ইয়াসিনকে (১৭) আটক করেছে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশ।

সুমাইয়ার বাবা লাল মিয়া জানান, তিনি পরিবার নিয়ে গাজীপুর মহানগরের ডেগের চালা এলাকায় ভাড়া থাকেন। সেখানে স্থানীয় একটি স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়তো সুমাইয়া। স্কুলে যাওয়া-আসার পথে পাশের একটি ওয়ার্কশপের কর্মচারী ইয়াসিন সুমাইয়াকে উত্ত্যক্ত করতো। এক পর্যায়ে ইয়াসিন প্রায় ২৫ দিন আগে সুমাইয়াকে ফুসলিয়ে বাড়ি থেকে নিয়ে উধাও হয়।

গত ১ এপ্রিল টঙ্গী পশ্চিম থানার মুদাফার সালাউদ্দিনের টিনশেড বাড়ির একটি রুম ভাড়া নিয়ে তারা অপরিণত বয়সে সংসার জীবন শুরু করে তারা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ইয়াসিন সুমাইয়ার বাবাকে ফোনে জানায়, সুমাইয়ার অবস্থা ভাল নয়, সে টঙ্গীর গুশুলিয়া হাসপাতালে আছে। এর পর বিকালে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের ফোন পেয়ে তারা থানায় সুমাইয়ার লাশ দেখতে যান।

এদিকে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুতকারী জিএমপির টঙ্গী পশ্চিম থানার এসআই উত্তম কুমার সূত্রধর জানান, নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন ছিল। তিনি গুশুলিয়া হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মার্গে পাঠিয়েছেন।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় নিহতের স্বামী ইয়াসিনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে সুমাইয়ার মৃত্যুর সুস্পষ্ট কোনো কারণ স্বীকার করছে না ইয়াসিন। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীনে আছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

পালিয়ে বিয়ে করার ২৫ দিনে লাশ হলো ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

 টঙ্গী পশ্চিম (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
২৩ এপ্রিল ২০২১, ০১:১৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টঙ্গীতে পালিয়ে বিবাহ করার ২৫ দিনের মাথায় রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আক্তারের (১৩)। বৃহস্পতিবার রাতে নিহত সুমাইয়ার স্বামী ইয়াসিনকে (১৭) আটক করেছে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশ।

সুমাইয়ার বাবা লাল মিয়া জানান, তিনি পরিবার নিয়ে গাজীপুর মহানগরের ডেগের চালা এলাকায় ভাড়া থাকেন। সেখানে স্থানীয় একটি স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়তো সুমাইয়া। স্কুলে যাওয়া-আসার পথে পাশের একটি ওয়ার্কশপের কর্মচারী ইয়াসিন সুমাইয়াকে উত্ত্যক্ত করতো। এক পর্যায়ে ইয়াসিন প্রায় ২৫ দিন আগে সুমাইয়াকে ফুসলিয়ে বাড়ি থেকে নিয়ে উধাও হয়।

গত ১ এপ্রিল টঙ্গী পশ্চিম থানার মুদাফার সালাউদ্দিনের টিনশেড বাড়ির একটি রুম ভাড়া নিয়ে তারা অপরিণত বয়সে সংসার জীবন শুরু করে তারা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ইয়াসিন সুমাইয়ার বাবাকে ফোনে জানায়, সুমাইয়ার অবস্থা ভাল নয়, সে টঙ্গীর গুশুলিয়া হাসপাতালে আছে। এর পর বিকালে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের ফোন পেয়ে তারা থানায় সুমাইয়ার লাশ দেখতে যান।

এদিকে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুতকারী জিএমপির টঙ্গী পশ্চিম থানার এসআই উত্তম কুমার সূত্রধর জানান, নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন ছিল। তিনি গুশুলিয়া হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মার্গে পাঠিয়েছেন।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় নিহতের স্বামী ইয়াসিনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে সুমাইয়ার মৃত্যুর সুস্পষ্ট কোনো কারণ স্বীকার করছে না ইয়াসিন। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীনে আছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন