পুলিশের ধাওয়ায় গাড়িচাপায় পরিবহন শ্রমিক নিহত
jugantor
পুলিশের ধাওয়ায় গাড়িচাপায় পরিবহন শ্রমিক নিহত

  পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

২৪ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৩১:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সড়ক দুর্ঘটনা

পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালাতে গিয়ে প্রাইভেটকারচাপায় এক পরিবহন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম আবদুল লতিফ (৫৫)।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর এলাকায় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত আবদুল লতিফ নোয়াখালীর সেনভাগ উপজেলার ইদলপুর গ্রামের আবদুর রহিমের ছেলে। তিনি কাভার্ডভ্যানের হেলপার ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাতে বানেশ্বর এলাকায় কয়েকজনের সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছিলেন কাভার্ডভ্যানের হেলপার আবদুল লতিফ।

রাতে পুলিশ নিয়ে লকডাউন বাস্তবায়নে ওই এলাকায় যান পুঠিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরুল হাই মোহাম্মদ আনাছ।

এসময় কয়েকজনের জটলা দেখে পুলিশ ধাওয়া করে। এতে দ্রুত পালাতে আবদুল লতিফ দৌড়ে মহাসড়ক পার হতে গিয়ে রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা প্রাইভেটকারের (ঢাকা মেট্রো-২৬-৩৯২৩) নিচে পড়েন।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পবা হাইওয়ে শিবপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, কাভার্ডভ্যান নিয়ে নোয়াখালী ফিরছিলেন আবদুল লতিফ। পথে বানেশ্বর এলাকায় তিনি রাতের খাবার খেতে নেমেছিলেন। মহাসড়ক পার হতে গিয়ে তিনি দুর্ঘটনার শিকার হন।

প্রাইভেটকারের মালিক রাজশাহীর তানোর পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান বলেন, হঠাৎ ওই ব্যক্তি চলন্ত প্রাইভেটকারের সামনে চলে আসেন। এতে মারাত্মকভাবে আহত হন তিনি। পরে পুলিশ প্রাইভেটকারটি জব্দ করে রেখেছে।

পুলিশের ধাওয়ায় গাড়িচাপায় পরিবহন শ্রমিক নিহত

 পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
২৪ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৩১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সড়ক দুর্ঘটনা
ফাইল ছবি

পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালাতে গিয়ে প্রাইভেটকারচাপায় এক পরিবহন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম আবদুল লতিফ (৫৫)।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর এলাকায় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত আবদুল লতিফ নোয়াখালীর সেনভাগ উপজেলার ইদলপুর গ্রামের আবদুর রহিমের ছেলে। তিনি কাভার্ডভ্যানের হেলপার ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাতে  বানেশ্বর এলাকায় কয়েকজনের সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছিলেন কাভার্ডভ্যানের হেলপার আবদুল লতিফ।

রাতে পুলিশ নিয়ে লকডাউন বাস্তবায়নে ওই এলাকায় যান পুঠিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরুল হাই মোহাম্মদ আনাছ।

এসময় কয়েকজনের জটলা দেখে পুলিশ ধাওয়া করে। এতে দ্রুত পালাতে আবদুল লতিফ দৌড়ে মহাসড়ক পার হতে গিয়ে রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা প্রাইভেটকারের (ঢাকা মেট্রো-২৬-৩৯২৩) নিচে পড়েন।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পবা হাইওয়ে শিবপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, কাভার্ডভ্যান নিয়ে নোয়াখালী ফিরছিলেন আবদুল লতিফ। পথে বানেশ্বর এলাকায় তিনি রাতের খাবার খেতে নেমেছিলেন। মহাসড়ক পার হতে গিয়ে তিনি দুর্ঘটনার শিকার হন।

প্রাইভেটকারের মালিক রাজশাহীর তানোর পৌরসভার সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান বলেন, হঠাৎ ওই ব্যক্তি চলন্ত প্রাইভেটকারের সামনে চলে আসেন। এতে মারাত্মকভাবে আহত হন তিনি। পরে পুলিশ প্রাইভেটকারটি জব্দ করে রেখেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন