বিধবার মাথা গোজার ঠাঁইটুকু কেড়ে নিল আগুন
jugantor
বিধবার মাথা গোজার ঠাঁইটুকু কেড়ে নিল আগুন

  আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  

২৬ এপ্রিল ২০২১, ১৭:৫৪:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

বিধবা মনোয়ারা বেগমের একমাত্র মাথা গোজার ঠাঁইটুকু আগুনের লেলিহান শিখায় কেড়ে নিয়েছে। দুই সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছে বিধবা। দুই চোখে শুধুই অন্ধকার দেখছে। সোমবার সকালে আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নের কালিবাড়ী গ্রামে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ২০১০ সালে উপজেলা কালিবাড়ী গ্রামের সুলতান হাওলাদার দুই সন্তান রেখে মারা যান। তার মৃত্যুর পরে এতিম দুই সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়ে বিধবা মনোয়ারা বেগম। অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে দুই সন্তান নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে দিনাতিপাত করছেন বিধবা।

সোমবার ভোররাতে সেহেরি খেয়ে মনোয়ারা সন্তান নিয়ে ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। সকাল ৬টার দিকে রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ওই বিধবার রান্না ঘর ও বসতঘর সম্পূর্ণ এবং নগদ টাকা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। স্থানীয়রা চেষ্টা করেও রক্ষা করতে পারেনি। মাথা গোজার ঠাঁইটুকু হারিয়ে দিশেহারা বিধবা মনোয়ারা বেগম।

প্রত্যক্ষদর্শী কবির হাওলাদার বলেন, বিধবা মনোয়ারার একমাত্র সম্ভবটুকু আগুন লেগে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ওই গ্রামের দেলোয়ার মাস্টার বলেন, বিধবা মনোয়ারা এলাকায় মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে দিনাতিপাত করছে। বিভিন্ন মানুষের সহযোগিতায় মনোয়ারা গত তিন বছর আগে ঘর তুলেছে। ওই ঘরটি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। পরিদর্শন শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিধবার মাথা গোজার ঠাঁইটুকু কেড়ে নিল আগুন

 আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি 
২৬ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিধবা মনোয়ারা বেগমের একমাত্র মাথা গোজার ঠাঁইটুকু আগুনের লেলিহান শিখায় কেড়ে নিয়েছে। দুই সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছে বিধবা। দুই চোখে শুধুই অন্ধকার দেখছে। সোমবার সকালে আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নের কালিবাড়ী গ্রামে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ২০১০ সালে উপজেলা কালিবাড়ী গ্রামের সুলতান হাওলাদার দুই সন্তান রেখে মারা যান। তার মৃত্যুর পরে এতিম দুই সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়ে বিধবা মনোয়ারা বেগম। অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে দুই সন্তান নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে দিনাতিপাত করছেন বিধবা।

সোমবার ভোররাতে সেহেরি খেয়ে মনোয়ারা সন্তান নিয়ে ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। সকাল ৬টার দিকে রান্না ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ওই বিধবার রান্না ঘর ও বসতঘর সম্পূর্ণ এবং নগদ টাকা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। স্থানীয়রা চেষ্টা করেও রক্ষা করতে পারেনি। মাথা গোজার ঠাঁইটুকু হারিয়ে দিশেহারা বিধবা মনোয়ারা বেগম।

প্রত্যক্ষদর্শী কবির হাওলাদার বলেন, বিধবা মনোয়ারার একমাত্র সম্ভবটুকু আগুন লেগে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

ওই গ্রামের দেলোয়ার মাস্টার বলেন, বিধবা মনোয়ারা এলাকায় মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে দিনাতিপাত করছে। বিভিন্ন মানুষের সহযোগিতায় মনোয়ারা গত তিন বছর আগে ঘর তুলেছে। ওই ঘরটি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। পরিদর্শন শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন