আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে জমি দখলের অভিযোগ
jugantor
আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে জমি দখলের অভিযোগ

  আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৮ এপ্রিল ২০২১, ১৪:২৯:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সাভারের আশুলিয়ায় দাবিকৃত ছয় লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে সন্ত্রাসীরা একটি পাঁচতলা ভবনের গেট ও দেয়াল ভেঙে এক ফুট জমি দখল করে দেয়াল নির্মাণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সন্ত্রাসী ও কিশোর গ্যাং লিডার আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ ভুক্তভোগী মঞ্জু মিয়ার।

মঞ্জু মিয়া জানান, আশুলিয়ার নরসিংহপুর হামীমের তিন নম্বর গেট এলাকার আবুল বাশারের কাছ থেকে প্রায় ২০ বছর আগে ৭ শতাংশ জমি কিনে পাঁচতলা ভবন করেছেন তিনি।

পাশেই রয়েছে আবুল বাশারের জমি। তিনি প্রায় ৬ মাস আগে দাবি করেন, মঞ্জু মিয়া ভবনের মধ্যে তার এক ফুট জায়গা রয়েছে। এলাকার সালিশবৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে এক ফুট জমির দাম দিতে সম্মত হন মঞ্জু মিয়া।

এ ঘটনা এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাং লিডার আবুল কালাম আজাদ জানতে পেরে আবুল বাশারকে বেশি টাকা পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে একটি নামে মাত্র বায়নানামা দলিল করেন। এর পরই ওই এক ফুট জমির জন্য ছয় লাখ টাকা দাবি করেন সন্ত্রাসী আবুল কালাম আজাদ।

এ টাকা দিতে অস্বীকার করায় মঙ্গলবার ৫০-৬০ জন সন্ত্রাসী নিয়ে মঞ্জুর বাড়িতে হামলা করে পাঁচতলা ভবনের নিচতলার দেয়াল ভেঙে নতুন বাউন্ডারি করেন।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানায় একটি লিখত অভিযোগ করলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ সময় আবুল কালাম আজাদ পুলিশকে জানান, ওই জমি তিনি পাবেন, তাই দখল করে বাউন্ডারি দিয়েছেন।

পুলিশ ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করতে বললে তিনি জানান, পাঁচতলা ভবনের দেয়াল ভেঙে সরাতে হবে। নইলে তাকে মোটা অঙ্কের টাকা দিতে হবে।

স্থানী আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, বিএনপির ওই নেতা কিশোর গ্যাং দিয়ে এলাকায় সন্ত্রাসীর রাজত্ব কায়েম করছে।

গত শবেবরাতের রাতে স্থানীয় মেম্বার আবু সামা মৃধাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করে আবুল কালামের কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীরা।

এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় আবুল কালাম আজাদসহ কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ করেন আবু সামা মৃধা। মেম্বারকে গুলি করার ঘটনার তদন্ত এখনও চলছে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানা পুলিশ জানিয়েছে, পুলিশ কিশোর গ্যাংসহ তাদের দলনেতা আবুল কালাম আজাদকে নজরে রেখেছে, যে কোনো সময় তিনি অস্ত্রসহ গ্রেফতার হতে পারেন।

এদিকে মঞ্জু মিয়া ও তার স্ত্রী বিলকিস এখন আতঙ্কে আছেন তাদের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে নিয়েও। সন্ত্রাসীদের ভয়ে তটস্থ অসহায় পরিবারটি এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

আশুলিয়ায় চাঁদা না পেয়ে জমি দখলের অভিযোগ

 আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৮ এপ্রিল ২০২১, ০২:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাভারের আশুলিয়ায় দাবিকৃত ছয় লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে সন্ত্রাসীরা একটি পাঁচতলা ভবনের গেট ও দেয়াল ভেঙে এক ফুট জমি দখল করে দেয়াল নির্মাণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সন্ত্রাসী ও কিশোর গ্যাং লিডার আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ ভুক্তভোগী মঞ্জু মিয়ার।

মঞ্জু মিয়া জানান, আশুলিয়ার নরসিংহপুর  হামীমের তিন নম্বর গেট এলাকার আবুল বাশারের কাছ থেকে প্রায় ২০ বছর আগে ৭ শতাংশ জমি কিনে পাঁচতলা ভবন করেছেন তিনি।

পাশেই রয়েছে আবুল বাশারের জমি। তিনি প্রায় ৬ মাস আগে দাবি করেন, মঞ্জু মিয়া ভবনের মধ্যে তার এক ফুট জায়গা রয়েছে। এলাকার সালিশবৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে এক ফুট জমির দাম দিতে সম্মত হন মঞ্জু মিয়া।

এ ঘটনা এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাং লিডার আবুল কালাম আজাদ জানতে পেরে আবুল বাশারকে বেশি টাকা পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে একটি নামে মাত্র বায়নানামা দলিল করেন। এর পরই ওই এক ফুট জমির জন্য ছয় লাখ টাকা দাবি করেন সন্ত্রাসী আবুল কালাম আজাদ।

এ টাকা দিতে অস্বীকার করায় মঙ্গলবার ৫০-৬০ জন সন্ত্রাসী নিয়ে মঞ্জুর বাড়িতে হামলা করে পাঁচতলা ভবনের নিচতলার দেয়াল ভেঙে নতুন বাউন্ডারি করেন।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানায় একটি লিখত অভিযোগ করলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ সময় আবুল কালাম আজাদ পুলিশকে জানান, ওই জমি তিনি পাবেন, তাই দখল করে বাউন্ডারি দিয়েছেন।

পুলিশ ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করতে বললে তিনি জানান, পাঁচতলা ভবনের দেয়াল ভেঙে সরাতে হবে। নইলে তাকে মোটা অঙ্কের টাকা দিতে হবে।

স্থানী আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, বিএনপির ওই নেতা কিশোর গ্যাং দিয়ে এলাকায় সন্ত্রাসীর রাজত্ব কায়েম করছে।

গত শবেবরাতের রাতে স্থানীয় মেম্বার আবু সামা মৃধাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করে আবুল কালামের কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীরা।

এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় আবুল কালাম আজাদসহ কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ করেন আবু সামা মৃধা। মেম্বারকে গুলি করার ঘটনার তদন্ত এখনও চলছে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানা পুলিশ জানিয়েছে, পুলিশ কিশোর গ্যাংসহ তাদের দলনেতা আবুল কালাম আজাদকে নজরে রেখেছে, যে কোনো সময় তিনি অস্ত্রসহ গ্রেফতার হতে পারেন।

এদিকে মঞ্জু মিয়া ও তার স্ত্রী বিলকিস এখন আতঙ্কে আছেন তাদের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে নিয়েও। সন্ত্রাসীদের ভয়ে তটস্থ অসহায় পরিবারটি এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন