শ্রমিক লীগের অফিসে ছাত্রলীগ নেতার হামলা, আহত ৪
jugantor
শ্রমিক লীগের অফিসে ছাত্রলীগ নেতার হামলা, আহত ৪

  শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

২৮ এপ্রিল ২০২১, ১৯:২৭:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার এমসি বাজারে শ্রমিক লীগ তেলিহাটি ইউনিয়ন শাখার কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় শ্রমিক লীগের চার নেতা আহত হন।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতদের দাবি স্থানীয় শ্রমিক লীগের অফিসের দখল নিতে গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর সরকারের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তেলিহাটি ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিক সরকার বাদী হয়ে ছাত্রলীগ নেতাসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে অভিযুক্ত করে শ্রীপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হামলায় আহতরা হলেন- তেলিহাটি ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিক সরকার, আজিজুল হক, হাফিজ উদ্দিন সরকার ও জহিরুল ইসলাম। এদের মধ্যে গুরুতর আহত শফিক সরকার ও জহিরুল ইসলামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

শ্রমিক লীগ নেতা শফিক সরকার জানান, প্রায় ১৪ বছর যাবৎ উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের এমসি বাজারে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে জাতীয় শ্রমিক লীগ একটি কার্যালয় স্থাপন করে রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করত। সম্প্রতি এমসি বাজারের নতুন ইজারাদার গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার মঙ্গলবার রাত ৮টায় শ্রমিক লীগের ওই অফিসটি দখলে নিতে লোকজন নিয়ে হামলা চালায়।

এ সময় অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করে অফিসে আজিজুল হক, হাফিজ উদ্দিন সরকারকে মারধর করে। শফিক সরকার ঘটনাস্থলে আসলে তাকেও কুপিয়ে আহত করা হয়। এ সময় অভিযুক্তরা অফিসের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সাংসদের ছবিও ভাংচুর করে। পাশাপাশি অফিসের সামনে থাকা শ্রমিক লীগের নাম সংবলিত সাইনবোর্ড মুছে ফেলে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনার জের ধরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকারের নির্দেশে আকরাম হোসেনের নেতৃত্বে পার্শ্ববর্তী মো. আজিজুল ইসলামের মালিকানাধীন এমলি ইলেকট্রনিক্সেও হামলা চালায়। এ সময় দোকানে থাকা জহিরুল ইসলামকে মারধর করেন অভিযুক্তরা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার জানান, কার্যালয়টি শ্রমিক লীগের নয়, এটা এমসি বাজারের ইজারাদারের অফিস। মঙ্গলবার রাতে এমসি বাজারের ইজারাদারের পক্ষে ওই কার্যালয়ে গেলে রফিকুল ইসলাম মোড়লের নেতৃত্বে আমার লোকজনের ওপর হামলা চালায়। হামলায় তারও লোকজন আহত হয়েছেন বলে জানান। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানান।

শ্রীপুর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, হামলা, মারধর ও ভাংচুরের ঘটনায় পৃথক তিনটি অভিযোগ পাওয়া গেছে; যা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শ্রমিক লীগের অফিসে ছাত্রলীগ নেতার হামলা, আহত ৪

 শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
২৮ এপ্রিল ২০২১, ০৭:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার এমসি বাজারে শ্রমিক লীগ তেলিহাটি ইউনিয়ন শাখার কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় শ্রমিক লীগের চার নেতা আহত হন। 

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতদের দাবি স্থানীয় শ্রমিক লীগের অফিসের দখল নিতে গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর সরকারের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তেলিহাটি ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিক সরকার বাদী হয়ে ছাত্রলীগ নেতাসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে অভিযুক্ত করে শ্রীপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হামলায় আহতরা হলেন- তেলিহাটি ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিক সরকার, আজিজুল হক, হাফিজ উদ্দিন সরকার ও জহিরুল ইসলাম। এদের মধ্যে গুরুতর আহত শফিক সরকার ও জহিরুল ইসলামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

শ্রমিক লীগ নেতা শফিক সরকার জানান, প্রায় ১৪ বছর যাবৎ উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের এমসি বাজারে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে জাতীয় শ্রমিক লীগ একটি কার্যালয় স্থাপন করে রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করত। সম্প্রতি এমসি বাজারের নতুন ইজারাদার গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার মঙ্গলবার রাত ৮টায় শ্রমিক লীগের ওই অফিসটি দখলে নিতে লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। 

এ সময় অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করে অফিসে আজিজুল হক, হাফিজ উদ্দিন সরকারকে মারধর করে। শফিক সরকার ঘটনাস্থলে আসলে তাকেও কুপিয়ে আহত করা হয়। এ সময় অভিযুক্তরা অফিসের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সাংসদের ছবিও ভাংচুর করে। পাশাপাশি অফিসের সামনে থাকা শ্রমিক লীগের নাম সংবলিত সাইনবোর্ড মুছে ফেলে। 

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনার জের ধরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকারের নির্দেশে আকরাম হোসেনের নেতৃত্বে পার্শ্ববর্তী মো. আজিজুল ইসলামের মালিকানাধীন এমলি ইলেকট্রনিক্সেও হামলা চালায়। এ সময় দোকানে থাকা জহিরুল ইসলামকে মারধর করেন অভিযুক্তরা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকার জানান, কার্যালয়টি শ্রমিক লীগের নয়, এটা এমসি বাজারের ইজারাদারের অফিস। মঙ্গলবার রাতে এমসি বাজারের ইজারাদারের পক্ষে ওই কার্যালয়ে গেলে রফিকুল ইসলাম মোড়লের নেতৃত্বে আমার লোকজনের ওপর হামলা চালায়। হামলায় তারও লোকজন আহত হয়েছেন বলে জানান। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানান।

শ্রীপুর থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, হামলা, মারধর ও ভাংচুরের ঘটনায় পৃথক তিনটি অভিযোগ পাওয়া গেছে; যা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন