বাবার নির্দেশে বোনের প্রেমিককে গুলি
jugantor
বাবার নির্দেশে বোনের প্রেমিককে গুলি

  গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি  

৩০ এপ্রিল ২০২১, ২৩:১৭:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় বাবার নির্দেশে বোনের প্রেমিক সোহাগ বাবুকে (২৫) গুলি ও মারধর করেছে আপন ভাই (২৮) এবং তার চাচাতো ভাই। ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজের পরে।

গুরুতর আহত হয়ে সোহাগ বাবু গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সোহাগ বাবু হোসেন্দি ইউনিয়নের আশ্রাব্দি গ্রামের বাবুল সরকারের ছেলে।

জানা গেছে, প্রেমিক সোহাগ বাবু মাগরিবের নামাজ পড়ে প্রেমিকার বাড়ির সামনে থেকে আসার সময় মেয়ের বাবার নির্দেশে তার ছেলে ও মেয়ের চাচাতো ভাই মারধর করে পায়ে ঠেকিয়ে পিস্তল দিয়ে গুলি করে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, এক মেয়ের সঙ্গে দীর্ঘদিন যাবত প্রেমের সম্পর্ক ছিল সোহাগ বাবুর। কিন্তু বিষয়টি মেয়ের বাব, ভাই, চাচাতো ভাই মেনে নিতে পারেননি। দফায় দফায় বিষয়টি নিয়ে শালিস বিচার হয়েছে। এক পর্যায়ে প্রেমিক সোহাগকে গ্রাম ছাড়া করা হয়।

পরবর্তীতে মেয়েকে ১১ ডিসেম্বর অন্যত্র বিবাহ দেয়া হয়। স্বামীকে নিয়ে মেয়ে ঘুরতে যায়। ৮ জানুয়ারি প্রেমিক সোহাগ বাবুকে সেখানে দেখা করতে বলে প্রেমিকা। সোহাগ বাবু সেখান থেকে স্বামীকে মারধর করে প্রেমিকাকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

সোহাগের বাবা বাবুল সরকার জানান, এই ঘটনার পর থেকে ওত পেতে থাকে মেয়ের বাবা ও ভাই। মেয়ের বাবা, ভাই ও চাচাতো ভাই মিলে আমার ছেলে সোহাগ বাবুকে নামাজের পরে বাড়ির সামনে থেকে যাওয়ার সময় অতর্কিত হামলা করে মারধর করে পায়ে ঠেকিয়ে গুলি করে।

গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, ছেলেটির পায়ে গান শুট করা হয়েছে।

এ বিষয়ে প্রেমিকার বাবা জানান, তার ছেলে গুলি করেনি। লাকড়ি দিয়ে পিটিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক হয়েছে। আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি। কিন্তু সেখান থেকে ওই ছেলে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিতে চায়।

গজারিয়ার থানার ওসি মো. রইছ উদ্দিন জানান, মারামারি হয়েছে। গুলির কোনো ঘটনা ঘটেনি। এখনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাবার নির্দেশে বোনের প্রেমিককে গুলি

 গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি 
৩০ এপ্রিল ২০২১, ১১:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় বাবার নির্দেশে বোনের প্রেমিক সোহাগ বাবুকে (২৫) গুলি ও মারধর করেছে আপন ভাই (২৮) এবং তার চাচাতো ভাই। ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজের পরে।

গুরুতর আহত হয়ে সোহাগ বাবু গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সোহাগ বাবু হোসেন্দি ইউনিয়নের আশ্রাব্দি গ্রামের বাবুল সরকারের ছেলে। 

জানা গেছে, প্রেমিক সোহাগ বাবু মাগরিবের নামাজ পড়ে প্রেমিকার বাড়ির সামনে থেকে আসার সময় মেয়ের বাবার নির্দেশে তার ছেলে ও মেয়ের চাচাতো ভাই মারধর করে পায়ে ঠেকিয়ে পিস্তল দিয়ে গুলি করে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, এক মেয়ের সঙ্গে দীর্ঘদিন যাবত প্রেমের সম্পর্ক ছিল সোহাগ বাবুর। কিন্তু বিষয়টি মেয়ের বাব, ভাই, চাচাতো ভাই মেনে নিতে পারেননি। দফায় দফায় বিষয়টি নিয়ে শালিস বিচার হয়েছে। এক পর্যায়ে প্রেমিক সোহাগকে গ্রাম ছাড়া করা হয়।

পরবর্তীতে মেয়েকে ১১ ডিসেম্বর অন্যত্র বিবাহ দেয়া হয়। স্বামীকে নিয়ে মেয়ে ঘুরতে যায়। ৮ জানুয়ারি প্রেমিক সোহাগ বাবুকে সেখানে দেখা করতে বলে প্রেমিকা। সোহাগ বাবু সেখান থেকে স্বামীকে মারধর করে প্রেমিকাকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

সোহাগের বাবা বাবুল সরকার জানান, এই ঘটনার পর থেকে ওত পেতে থাকে মেয়ের বাবা ও ভাই। মেয়ের বাবা, ভাই ও চাচাতো ভাই মিলে আমার ছেলে সোহাগ বাবুকে নামাজের পরে বাড়ির সামনে থেকে যাওয়ার সময় অতর্কিত হামলা করে মারধর করে পায়ে ঠেকিয়ে গুলি করে।

গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, ছেলেটির পায়ে গান শুট করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে প্রেমিকার বাবা জানান, তার ছেলে গুলি করেনি। লাকড়ি দিয়ে পিটিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক হয়েছে। আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি। কিন্তু সেখান থেকে ওই ছেলে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিতে চায়। 

গজারিয়ার থানার ওসি মো. রইছ উদ্দিন জানান, মারামারি হয়েছে। গুলির কোনো ঘটনা ঘটেনি। এখনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন