সম্পত্তির জন্য বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করল ছেলে-পুত্রবধূ
jugantor
সম্পত্তির জন্য বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করল ছেলে-পুত্রবধূ

  ফেনী প্রতিনিধি   

০২ মে ২০২১, ১৭:৫৮:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ফেনীতে সম্পত্তি বিরোধ নিয়ে ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৫) ও পুত্রবধূ নাছিমা আক্তার পলির লাঠির আঘাত ও এলোপাতাড়ি মারধরে পিতা সামছুল হক (৮০) নিহত হয়েছেন। শনিবার রাতে সদর উপজেলার শর্শদি ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ফেনী মডেল থানা পুলিশ জানায়, সামছুল হকের চার ছেলের বাবা। সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের কারণে ছেলেরা পৃথকভাবে বসবাস করেন। কিন্তু সম্পত্তি নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হতো। শনিবার বিকালে গাছের কাঁঠাল নিয়ে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ছেলে ও পুত্রবধূ সামছুল হককে গালমন্দ করতে থাকেন।

বাবা ঘর থেকে বের হয়ে এর প্রতিবাদ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বৃদ্ধের ওপর হামলা করে। কিল-ঘুষি ও লাঠি দিয়ে তাকে পেটাতে দেখে বড় ছেলে বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী এগিয়ে আসেন। এ সময় তাকেও মারধর করা হয়। পরে বাড়ির অন্যান্য লোকজন সামছুল হককে ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।


সেখানে জরুরি বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক সাহাব উদ্দিন তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ফেনী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

ফেনী মডেল থানার ওসি নিজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ছেলে ও পুত্রবধূ পলাতক রয়েছেন।

সম্পত্তির জন্য বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করল ছেলে-পুত্রবধূ

 ফেনী প্রতিনিধি  
০২ মে ২০২১, ০৫:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফেনীতে সম্পত্তি বিরোধ নিয়ে ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৫) ও পুত্রবধূ নাছিমা আক্তার পলির লাঠির আঘাত ও এলোপাতাড়ি মারধরে পিতা সামছুল হক (৮০) নিহত হয়েছেন। শনিবার রাতে সদর উপজেলার শর্শদি ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ফেনী মডেল থানা পুলিশ জানায়, সামছুল হকের চার ছেলের বাবা। সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের কারণে ছেলেরা পৃথকভাবে বসবাস করেন। কিন্তু সম্পত্তি নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হতো। শনিবার বিকালে গাছের কাঁঠাল নিয়ে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ছেলে ও পুত্রবধূ সামছুল হককে গালমন্দ করতে থাকেন। 

বাবা ঘর থেকে বের হয়ে এর প্রতিবাদ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বৃদ্ধের ওপর হামলা করে। কিল-ঘুষি ও লাঠি দিয়ে তাকে পেটাতে দেখে বড় ছেলে বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী এগিয়ে আসেন। এ সময় তাকেও মারধর করা হয়। পরে বাড়ির অন্যান্য লোকজন সামছুল হককে ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। 


সেখানে জরুরি বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক সাহাব উদ্দিন তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ফেনী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। 

ফেনী মডেল থানার ওসি নিজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ছেলে ও পুত্রবধূ পলাতক রয়েছেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন