খালের মাঝখানে টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক!
jugantor
খালের মাঝখানে টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক!

  সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৩ মে ২০২১, ২২:১৯:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নের বাহাদিয়া খালের মাঝখানে এক প্রভাবশালী ব্যক্তি টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ শুরু করেছেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিন সোমবার দুপুরে দেখা যায়, বাহাদিয়া গ্রামের মৃত হায়েত আলী খানের পুত্র নাসির উদ্দিন বাড়ির উত্তর পাশে খালের মাঝখানে বড় আকারের টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ করছেন। নাসির উদ্দিন এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় স্থানীয়রা এ নিয়ে প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছেন না।

প্রতিবেশী আলতাব খান বলেন, খালের মাঝখানে টয়লেটের ট্যাংক নির্মাণ অযৌক্তিক। এতে দূষণের কবলে পড়বে পুরো এলাকা।

ওই এলাকার রুবিয়া খাতুন বলেন, এ খালের পানি আমরা গোসলসহ গৃহস্থালির কাজে ব্যবহার করি। এছাড়া খালটি থেকে আমরা প্রতি বছর মাছ ধরে খাই। টয়লেটের সেপটিক ট্যাংকটি নির্মাণ করা হলে পানি দূষণের কারণে গোসল ও গৃহস্থালির কাজে ব্যবহার তো দূরের কথা এলাকায় বসবাস করাও দায় হয়ে পড়বে।

স্থানীয় আনোয়ার, সিরাজ ভাণ্ডারী, ফরিদ, মঞ্জুর আলী ও জিন্নত খানসহ এলাকাবাসী খালের মাঝখানে টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ বন্ধে প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ট্যাংক নির্মাণকারী নাসির উদ্দিন বলেন, খাল হলেও আমার রেকর্ডের জমির মধ্যে ট্যাংক নির্মাণ করছি। টয়লেটের ময়লা আবর্জনা যাতে বের না হয় সেজন্য ঢাকনা দিয়ে আটকে দেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জয়মন্টপ ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. আইয়ুব আলী বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হবে।

এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেহের নিগার সুলতানা বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

খালের মাঝখানে টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক!

 সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৩ মে ২০২১, ১০:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নের বাহাদিয়া খালের মাঝখানে এক প্রভাবশালী ব্যক্তি টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ শুরু করেছেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিন সোমবার দুপুরে দেখা যায়, বাহাদিয়া গ্রামের মৃত হায়েত আলী খানের পুত্র নাসির উদ্দিন বাড়ির উত্তর পাশে খালের মাঝখানে বড় আকারের টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ করছেন। নাসির উদ্দিন এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় স্থানীয়রা এ নিয়ে প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছেন না।

প্রতিবেশী আলতাব খান বলেন, খালের মাঝখানে টয়লেটের ট্যাংক নির্মাণ অযৌক্তিক। এতে দূষণের কবলে পড়বে পুরো এলাকা।

ওই এলাকার রুবিয়া খাতুন বলেন, এ খালের পানি আমরা গোসলসহ গৃহস্থালির কাজে ব্যবহার করি। এছাড়া খালটি থেকে আমরা প্রতি বছর মাছ ধরে খাই। টয়লেটের সেপটিক ট্যাংকটি নির্মাণ করা হলে পানি দূষণের কারণে গোসল ও গৃহস্থালির কাজে ব্যবহার তো দূরের কথা এলাকায় বসবাস করাও দায় হয়ে পড়বে।

স্থানীয় আনোয়ার, সিরাজ ভাণ্ডারী, ফরিদ, মঞ্জুর আলী ও জিন্নত খানসহ এলাকাবাসী খালের মাঝখানে টয়লেটের সেপটিক ট্যাংক নির্মাণ বন্ধে প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ট্যাংক নির্মাণকারী নাসির উদ্দিন বলেন, খাল হলেও আমার রেকর্ডের জমির মধ্যে ট্যাংক নির্মাণ করছি। টয়লেটের ময়লা আবর্জনা যাতে বের না হয় সেজন্য ঢাকনা দিয়ে আটকে দেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জয়মন্টপ ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. আইয়ুব আলী বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হবে।

এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেহের নিগার সুলতানা বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন