হেফাজতের আরও ২ নেতার বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
হেফাজতের আরও ২ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

  যুগান্তর প্রতিবেদন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া  

০৫ মে ২০২১, ০২:০০:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের দুই নেতার বিরুদ্ধে মামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের দুই নেতার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

তারা হলেন - নবীনগর উপজেলা হেফাজতে ইসলামের সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক মুফতি আমজাদ হোসাইন আশরাফী। এই দুই নেতা ছাড়াও আরও একজনকে আসামি করা হয়েছে মামলাতে।

তিনি হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের কে.দাস মোড়ের বাসিন্দা সানাউল হক চৌধুরী (৫৫)।

মঙ্গলবার রাত সোয়া ১১টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানায় মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসির অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা মুহাম্মদ শাহজাহান এসব তথ্য যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত সোমবার ছাত্রলীগ সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল থানায় মামলার এজাহারটি জমা দেন। পরদিন এটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়েছে। আসামিদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আসামিরা ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংগঠিত হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের প্রত্যক্ষ মদদদাতা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর মানহানি এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এবং আইনশৃঙ্খলা অবনতির জন্য মাওলানা মেহেদী হাসান তার ফেসবুক আইডি থেকে একটি পোস্ট দেন। মেহেদী তার পোস্টে মোকতাদির চৌধুরীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসায় হামলাকারী উল্লেখ করে ফাঁসি দাবি করেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি ঘটানোর অভিপ্রায়ে বাকি দুই আসামি মেহেদীর ওই পোস্ট প্রচার করেন বলে এজাহারে উল্লেখ করেন বাদী।

হেফাজতের আরও ২ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

 যুগান্তর প্রতিবেদন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া 
০৫ মে ২০২১, ০২:০০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের দুই নেতার বিরুদ্ধে মামলা
মাওলানা মেহেদী হাসান ও মুফতি আমজাদ হোসাইন আশরাফী (বাঁ থেকে)

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের দুই নেতার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

তারা হলেন - নবীনগর উপজেলা হেফাজতে ইসলামের সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক মুফতি আমজাদ হোসাইন আশরাফী। এই দুই নেতা ছাড়াও আরও একজনকে আসামি করা হয়েছে মামলাতে।

তিনি হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের কে.দাস মোড়ের বাসিন্দা সানাউল হক চৌধুরী (৫৫)।

মঙ্গলবার রাত সোয়া ১১টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানায় মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসির অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা মুহাম্মদ শাহজাহান এসব তথ্য যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত সোমবার ছাত্রলীগ সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল থানায় মামলার এজাহারটি জমা দেন। পরদিন এটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়েছে। আসামিদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আসামিরা ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংগঠিত হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের প্রত্যক্ষ মদদদাতা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর মানহানি এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এবং আইনশৃঙ্খলা অবনতির জন্য মাওলানা মেহেদী হাসান তার ফেসবুক আইডি থেকে একটি পোস্ট দেন। মেহেদী তার পোস্টে মোকতাদির চৌধুরীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসায় হামলাকারী উল্লেখ করে ফাঁসি দাবি করেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি ঘটানোর অভিপ্রায়ে বাকি দুই আসামি মেহেদীর ওই পোস্ট প্রচার করেন বলে এজাহারে উল্লেখ করেন বাদী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন