অপহরণের ১১ দিন পর ডোবায় শিশুর অর্ধগলিত লাশ
jugantor
অপহরণের ১১ দিন পর ডোবায় শিশুর অর্ধগলিত লাশ

  যুগান্তর প্রতিবেদন, নারায়ণগঞ্জ  

০৫ মে ২০২১, ১৭:৫৬:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জে নিখোঁজের ১১ দিন পর মো. রিয়াদ (৭) নামে শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে জালকুড়ি মাদবর বাজার এলাকার নির্মাণাধীন ড্রেনের পাশে পরিত্যক্ত ডোবার মধ্যে থেকে শিশুটির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত রিয়াদ গাইবান্ধার মিয়াপাড়া পূর্ব কমলয় গ্রামের রাজু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় সুজন নামে যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ২৪ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জের রেললাইনের পূর্ব পাশের এ/পি পূর্ব মুনলাইট এলাকায় বাড়ির সামনে থেকে নিখোঁজ হয় রিয়াদ । বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে ২৮ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তার বাবা। এ জিডির প্রেক্ষিতে পুলিশ শিশুটির পরিবার, আত্মীয়-স্বজনদের মোবাইলের কললিস্টের সূত্র ধরে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

পরে একটি নম্বর থেকে মুক্তিপণ দাবি করে শিশুটির পরিবারের কাছে ফোন করলে সে নম্বরের সূত্র ধরে নিহত রিয়াদের চাচাতো খালু সুজনকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিকভাবে সুজন স্বীকার করে ২৪ এপ্রিল রিয়াদকে অপহরণের পর ওইদিন রাতেই তাকে মেরে পরিত্যক্ত ডোবায় ঘাসের নিচে লুকিয়ে রাখে। পরে তার দেখানো তথ্য মতে ভোর সাড়ে ৫টায় সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি মাতবর বাজার এলাকায় নির্মাণাধীন ড্রেনের পাশে একটি পরিত্যক্ত ডোবার মধ্যে লম্বা ঘাসের নিচ থেকে অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমান পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, নিহতের পরিবারের সঙ্গে সুজনের বিভিন্ন বিষয়ে বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে বাড়ির সামনে থেকে সুজন তাকে অপহরণ করে রাতেই হত্যা করে জালকুড়িতে ড্রেনের পাশে ঘাসের নিচে লুকিয়ে রাখে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ বিষয় স্বীকার করেছে আটক সুজন।

অপহরণের ১১ দিন পর ডোবায় শিশুর অর্ধগলিত লাশ

 যুগান্তর প্রতিবেদন, নারায়ণগঞ্জ 
০৫ মে ২০২১, ০৫:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জে নিখোঁজের ১১ দিন পর মো. রিয়াদ (৭) নামে শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে জালকুড়ি মাদবর বাজার এলাকার নির্মাণাধীন ড্রেনের পাশে পরিত্যক্ত ডোবার মধ্যে থেকে শিশুটির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত রিয়াদ গাইবান্ধার মিয়াপাড়া পূর্ব কমলয় গ্রামের রাজু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় সুজন নামে যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ২৪ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জের রেললাইনের পূর্ব পাশের এ/পি পূর্ব মুনলাইট এলাকায় বাড়ির সামনে থেকে নিখোঁজ হয় রিয়াদ । বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে ২৮ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তার বাবা। এ জিডির প্রেক্ষিতে পুলিশ শিশুটির পরিবার, আত্মীয়-স্বজনদের মোবাইলের কললিস্টের সূত্র ধরে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

পরে একটি নম্বর থেকে মুক্তিপণ দাবি করে শিশুটির পরিবারের কাছে ফোন করলে সে নম্বরের সূত্র ধরে নিহত রিয়াদের চাচাতো খালু সুজনকে আটক করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিকভাবে সুজন স্বীকার করে ২৪ এপ্রিল রিয়াদকে অপহরণের পর ওইদিন রাতেই তাকে মেরে পরিত্যক্ত ডোবায় ঘাসের নিচে লুকিয়ে রাখে। পরে তার দেখানো তথ্য মতে ভোর সাড়ে ৫টায় সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি মাতবর বাজার এলাকায় নির্মাণাধীন ড্রেনের পাশে একটি পরিত্যক্ত ডোবার মধ্যে লম্বা ঘাসের নিচ থেকে অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমান পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, নিহতের পরিবারের সঙ্গে সুজনের বিভিন্ন বিষয়ে বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে বাড়ির সামনে থেকে সুজন তাকে অপহরণ করে রাতেই হত্যা করে জালকুড়িতে ড্রেনের পাশে ঘাসের নিচে লুকিয়ে রাখে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ বিষয় স্বীকার করেছে আটক সুজন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন