ফেরির টিকিটে অতিরিক্ত টাকা নেয়ায় কর্মকর্তাকে জরিমানা
jugantor
ফেরির টিকিটে অতিরিক্ত টাকা নেয়ায় কর্মকর্তাকে জরিমানা

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

০৭ মে ২০২১, ২২:৪৫:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারাপারের টিকিটে নির্ধারিত মূল্যের অতিরিক্ত টাকা নেয়ার অভিযোগে বিআইডব্লিউটিসির একজন কর্মকর্তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা করা হয়েছে।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার
(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম দৌলতদিয়া ট্রাক বুকিং কাউন্টারে অভিযান পরিচালনা করে টার্মিনাল সুপারিনটেনডেন্ট (টিএস) পদধারী গোলাম মোস্তফা (৫৮) নামের ওই কর্মকর্তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এ প্রসঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, যথাযথ তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এ জরিমানা করা হয়েছে। নৌপথে পণ্যবাহী ট্রাকসহ সব যানবাহনের ক্ষেত্রে নির্ধারিত ফি ব্যতীত অতিরিক্ত কোনো টাকা নেয়া যাবে না। এরপরও যারা এ কাজের সাথে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত থাকবে।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক খোরশেদ আলম দাবি করেন, পুরো বিষয়টি ভুল বোঝাবুঝির কারণে ঘটেছে।

এ বিষয়ে কথা বলতে বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের এজিএম মো. ফিরোজ শেখের ফোনে কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

ফেরির টিকিটে অতিরিক্ত টাকা নেয়ায় কর্মকর্তাকে জরিমানা

 গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি  
০৭ মে ২০২১, ১০:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারাপারের টিকিটে নির্ধারিত মূল্যের অতিরিক্ত টাকা নেয়ার অভিযোগে বিআইডব্লিউটিসির একজন কর্মকর্তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা করা হয়েছে।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার 
(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম দৌলতদিয়া ট্রাক বুকিং কাউন্টারে অভিযান পরিচালনা করে টার্মিনাল সুপারিনটেনডেন্ট (টিএস) পদধারী গোলাম মোস্তফা (৫৮) নামের ওই কর্মকর্তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এ প্রসঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, যথাযথ তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এ জরিমানা করা হয়েছে। নৌপথে পণ্যবাহী ট্রাকসহ সব যানবাহনের ক্ষেত্রে নির্ধারিত ফি ব্যতীত অতিরিক্ত কোনো টাকা নেয়া যাবে না। এরপরও যারা এ কাজের সাথে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত থাকবে।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক খোরশেদ আলম দাবি করেন, পুরো বিষয়টি ভুল বোঝাবুঝির কারণে ঘটেছে। 

এ বিষয়ে কথা বলতে বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের এজিএম মো. ফিরোজ শেখের ফোনে কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন