চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাই
jugantor
চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাই

  মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

০৯ মে ২০২১, ২২:১০:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার মুরাদনগরে চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের সময় সাইফুল ইসলাম (২০) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতে উপজেলা সদর ইউনিয়নের ধনীরামপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভুলুকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয়রা।

আটককৃত সাইফুল ইসলাম (২০) একই গ্রামের শান মিয়ার ছেলে। অটোরিকশাচালক দেলোয়ার হোসেন ওরফে ভুলু (২৪) উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামের মো. মনিরুল হকের ছেলে।

পুলিশ ও চালক ভুলুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজার থেকে অটোরিকশা চালক ভুলুর পূর্বপরিচিত সাইফুল ইসলাম তার সঙ্গীয় আরও দুই বন্ধু সদরের আলীরচর যাওয়ার কথা বলে তার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটি ভাড়া করেন।

পরে উপজেলা সদর ইউনিয়নের ধনীরামপুর পশ্চিমপাড়া এলাকার একটি নির্জন সড়কে গিয়ে জোরপূর্বক সাইফুল ও তার সঙ্গীরা অটোরিকশাটি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে সাইফুল তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে ভুলুর গলায় ও হাতে আঘাত করে অটোরিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় ভুলুর চিৎকার শুনে স্থানীয়রা সাইফুলকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন এবং তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভুলুকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয়রা। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মুরাদনগর থানার ওসি সাদেকুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল থেকে সাইফুল ইসলাম নামের একজনকে আটক করেছি। সে অটোচালক ভুলুকে ছুরি দিয়ে গলায় ও হাতে আঘাত করতে গিয়ে নিজেও আহত হয়েছে। তাকে মুরাদনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রবিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাই

 মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  
০৯ মে ২০২১, ১০:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার মুরাদনগরে চালকের গলা কেটে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের সময় সাইফুল ইসলাম (২০) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। 

শনিবার রাতে উপজেলা সদর ইউনিয়নের ধনীরামপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভুলুকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয়রা।

আটককৃত সাইফুল ইসলাম (২০) একই গ্রামের শান মিয়ার ছেলে। অটোরিকশাচালক দেলোয়ার হোসেন ওরফে ভুলু (২৪) উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামের মো. মনিরুল হকের ছেলে। 

পুলিশ ও চালক ভুলুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজার থেকে অটোরিকশা চালক ভুলুর পূর্বপরিচিত সাইফুল ইসলাম তার সঙ্গীয় আরও দুই বন্ধু সদরের আলীরচর যাওয়ার কথা বলে তার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটি ভাড়া করেন। 

পরে উপজেলা সদর ইউনিয়নের ধনীরামপুর পশ্চিমপাড়া এলাকার একটি নির্জন সড়কে গিয়ে জোরপূর্বক সাইফুল ও তার সঙ্গীরা অটোরিকশাটি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে সাইফুল তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে ভুলুর গলায় ও হাতে আঘাত করে অটোরিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। 

এ সময় ভুলুর চিৎকার শুনে স্থানীয়রা সাইফুলকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন এবং তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভুলুকে উদ্ধার করে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয়রা। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মুরাদনগর থানার ওসি সাদেকুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল থেকে সাইফুল ইসলাম নামের একজনকে আটক করেছি। সে অটোচালক ভুলুকে ছুরি দিয়ে গলায় ও হাতে আঘাত করতে গিয়ে নিজেও আহত হয়েছে। তাকে মুরাদনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রবিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন