বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে হারানো নীলগাইটি মধুপুরে
jugantor
বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে হারানো নীলগাইটি মধুপুরে

  মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি  

১০ মে ২০২১, ২৩:২৩:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুর বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে দুই মাস আগে পালিয়ে আসা বিপন্ন প্রজাতির নীলগাই টাঙ্গাইলের মধুপুর থেকে উদ্ধার হয়েছে। সোমবার বিকালে উপজেলার দক্ষিণ লাউফুলা গ্রামের লোকজন অনেক চেষ্টায় এটি আটক করতে সক্ষম হয়।

স্থানীয় বনবিভাগ ও পুলিশের সহযোগিতায় আটক নীলগাইটিকে পুনারায় সাফারি পার্কে পাঠানোর ব্যবস্থা হয়েছে।

৬ ফুট দৈর্ঘ্য, ৪ ফুট উচ্চতা, মুখ লম্বা ও গলার নিচে লম্বা ঘন কেশের বিপন্ন প্রজাতির এই প্রাণিটিকে নীলগাই বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারাসাইটোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. আনিসুজ্জামান। তিনি জানান এ প্রজাতির গরু বাংলাদেশে থাকার কথা নয়। শুধু ইন্ডিয়াতেই নয়, সারা বিশ্বে প্রাণিটি বিপন্নের তালিকায়।

টাঙ্গাইল বনবিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক (মধুপুর) জামাল উদ্দিন তালুকদার ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, গত দুইমাস আগে গাজীপুর বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া নীলগাইটি পালিয়ে যায়। ধারণা করা হচ্ছে গাজীপুর, মির্জাপুর, সখিপুর বনাঞ্চল হয়ে গাইটি মধুপুরে চলে এসেছে।

তিনি আরও জানান, এর আগে গাইটি পঞ্চগড় জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে সাধারণ জনগণ আটক করে। সেখান থেকে এটিকে সাফারি পার্কে আনা হয়।

আলোকদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাইদ তালুকদার দুলাল ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকেলে দক্ষিণ লাউফুলা গ্রামের স্থানীয়দের নজরে বিরল প্রজাতির একটি গরু নজরে আসে। তারপর তারা এটিকে ধাওয়া করে। কয়েক ঘন্টা ধাওয়া খেয়ে পরিশ্রান্ত হয়ে জনৈক ফরমান আলীর বাড়িতে উঠলে সেখান থেকে এটিকে আটক করা হয়। বিরল প্রজাতির এ গরুটিকে দেখতে হাজারো উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়। খবর পেয়ে আলোকদিয়া পুলিশ ফাঁড়ি ও বনবিভাগের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে গাইটিকে উদ্ধার করে তাদের হেফাজতে নেয়।

আলোকদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক এসআই সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের নিকট নীলগাইটিকে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে হারানো নীলগাইটি মধুপুরে

 মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি 
১০ মে ২০২১, ১১:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুর বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে দুই মাস আগে পালিয়ে আসা বিপন্ন প্রজাতির নীলগাই টাঙ্গাইলের মধুপুর থেকে উদ্ধার হয়েছে। সোমবার বিকালে উপজেলার দক্ষিণ লাউফুলা গ্রামের লোকজন অনেক চেষ্টায় এটি আটক করতে সক্ষম হয়।

স্থানীয় বনবিভাগ ও পুলিশের সহযোগিতায় আটক নীলগাইটিকে পুনারায় সাফারি পার্কে পাঠানোর ব্যবস্থা হয়েছে।

৬ ফুট দৈর্ঘ্য, ৪ ফুট উচ্চতা, মুখ লম্বা ও গলার নিচে লম্বা ঘন কেশের বিপন্ন প্রজাতির এই প্রাণিটিকে নীলগাই বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারাসাইটোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. আনিসুজ্জামান। তিনি জানান এ প্রজাতির গরু বাংলাদেশে থাকার কথা নয়। শুধু ইন্ডিয়াতেই নয়, সারা বিশ্বে প্রাণিটি বিপন্নের তালিকায়।

টাঙ্গাইল বনবিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক (মধুপুর) জামাল উদ্দিন তালুকদার ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, গত দুইমাস আগে গাজীপুর বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক থেকে ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া নীলগাইটি পালিয়ে যায়। ধারণা করা হচ্ছে গাজীপুর, মির্জাপুর, সখিপুর বনাঞ্চল হয়ে গাইটি মধুপুরে চলে এসেছে।

তিনি আরও জানান, এর আগে গাইটি পঞ্চগড় জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে সাধারণ জনগণ আটক করে। সেখান থেকে এটিকে সাফারি পার্কে আনা হয়।

আলোকদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাইদ তালুকদার দুলাল ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকেলে দক্ষিণ লাউফুলা গ্রামের স্থানীয়দের নজরে বিরল প্রজাতির একটি গরু নজরে আসে। তারপর তারা এটিকে ধাওয়া করে। কয়েক ঘন্টা ধাওয়া খেয়ে পরিশ্রান্ত হয়ে জনৈক ফরমান আলীর বাড়িতে উঠলে সেখান থেকে এটিকে আটক করা হয়। বিরল প্রজাতির এ গরুটিকে দেখতে হাজারো উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়। খবর পেয়ে আলোকদিয়া পুলিশ ফাঁড়ি ও বনবিভাগের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে গাইটিকে উদ্ধার করে তাদের হেফাজতে নেয়। 

আলোকদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক এসআই সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের নিকট নীলগাইটিকে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন