ফেরিতে গাদাগাদি, যানবাহনে ভাড়া কয়েকগুণ (ভিডিও)
jugantor
ফেরিতে গাদাগাদি, যানবাহনে ভাড়া কয়েকগুণ (ভিডিও)

  শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

১১ মে ২০২১, ১৬:১৮:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

শিমুলিয়া থেকে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের ঢল অব্যাহত রয়েছে। যাত্রী সংখ্যা বেশি হলেও সব ফেরি চলাচল করায় গাদাগাদি কিছুটা কম।

উল্টো চিত্র বাংলাবাজার ঘাটে। এ ঘাটে সংকট দেখা দিয়েছে পরিবহনের। ফেরিতে গাদাগাদি করে পার হলেও গন্তব্যে পৌঁছাতে ভাড়া গুনতে হচ্ছে কয়েকগুণ।

ঢাকা ও দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলো থেকে মোটরসাইকেল, ৩ চাকার যানবাহনে এসে ঘাটে ও গন্তব্যে কয়েকগুণ ভাড়া গুনে পৌঁছচ্ছেন। এর পর ঘাটে বেদেদের দৌরাত্ম্যে যাত্রীরা হেনস্থা হচ্ছেন।

বিআইডব্লিউটিসিসহ ঘাট সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল থেকেই বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীদের ঢল শুরু হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রী ঢল আরও বৃদ্ধি পায়। শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে আসা প্রতিটি ফেরিতেই যাত্রী ও যানবাহনে রয়েছে পরিপূর্ণ। তবে সব ফেরি চালু থাকায় ফেরিতে যাত্রীদের গাদাগাদি কম রয়েছে। যাত্রী চাপ সামাল দিতে বাংলাবাজার ঘাট থেকে খালি ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে পাঠানো হচ্ছে।

এদিকে ঢাকা থেকে বিভিন্ন উপায়ে অতিরিক্ত ভাড়া ব্যয় করে বাংলাবাজার ঘাটে এসে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীরা পড়েন আরও ভোগান্তিতে। পরিবহন বন্ধ থাকায় মোটরসাইকেল, থ্রি হুইলার, ইজিবাইকসহ বিভিন্ন হালকা যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছচ্ছেন যাত্রীরা।

বরিশাল গামী বরিউল হাসান জানান, আগে বাংলাবাজার ঘাট থেকে বরিশাল যেতে ভাড়া লাগতো মাত্র ৫০০ টাকা। এখন মাইক্রো বাসে ভাড়া নেয় ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা পর্যন্ত। এত টাকা দিয়ে কীভাবে বাড়ি যাবো।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট ম্যানেজার মো. সালাউদ্দিন বলেন, ঈদে ঘরে ফেরা দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের চাপ রয়েছে। আমাদের সব ফেরি চলাচল করছে। বাংলাবাজার ঘাটে তেমন চাপ নেই। তাই যাত্রী চাপ সামাল দিতে ফেরিগুলো বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রী ও যানবাহন নামিয়ে খালি ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

ফেরিতে গাদাগাদি, যানবাহনে ভাড়া কয়েকগুণ (ভিডিও)

 শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
১১ মে ২০২১, ০৪:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শিমুলিয়া থেকে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের ঢল অব্যাহত রয়েছে। যাত্রী সংখ্যা বেশি হলেও সব ফেরি চলাচল করায় গাদাগাদি কিছুটা কম।

উল্টো চিত্র বাংলাবাজার ঘাটে। এ ঘাটে সংকট দেখা দিয়েছে পরিবহনের। ফেরিতে গাদাগাদি করে পার হলেও গন্তব্যে পৌঁছাতে ভাড়া গুনতে হচ্ছে কয়েকগুণ।

ঢাকা ও দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলো থেকে মোটরসাইকেল, ৩ চাকার যানবাহনে এসে ঘাটে ও গন্তব্যে কয়েকগুণ ভাড়া গুনে পৌঁছচ্ছেন। এর পর ঘাটে বেদেদের দৌরাত্ম্যে যাত্রীরা হেনস্থা হচ্ছেন।

বিআইডব্লিউটিসিসহ ঘাট সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল থেকেই বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীদের ঢল শুরু হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রী ঢল আরও বৃদ্ধি পায়। শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে আসা প্রতিটি ফেরিতেই যাত্রী ও যানবাহনে রয়েছে পরিপূর্ণ। তবে সব ফেরি চালু থাকায় ফেরিতে যাত্রীদের গাদাগাদি কম রয়েছে। যাত্রী চাপ সামাল দিতে বাংলাবাজার ঘাট থেকে খালি ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে পাঠানো হচ্ছে।

এদিকে ঢাকা থেকে বিভিন্ন উপায়ে অতিরিক্ত ভাড়া ব্যয় করে বাংলাবাজার ঘাটে এসে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীরা পড়েন আরও ভোগান্তিতে। পরিবহন বন্ধ থাকায় মোটরসাইকেল, থ্রি হুইলার, ইজিবাইকসহ বিভিন্ন হালকা যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছচ্ছেন যাত্রীরা।

বরিশাল গামী বরিউল হাসান জানান, আগে বাংলাবাজার ঘাট থেকে বরিশাল যেতে ভাড়া লাগতো মাত্র ৫০০ টাকা। এখন মাইক্রো বাসে ভাড়া নেয় ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা পর্যন্ত। এত টাকা দিয়ে কীভাবে বাড়ি যাবো।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট ম্যানেজার মো. সালাউদ্দিন বলেন, ঈদে ঘরে ফেরা দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের চাপ রয়েছে। আমাদের সব ফেরি চলাচল করছে। বাংলাবাজার ঘাটে তেমন চাপ নেই। তাই যাত্রী চাপ সামাল দিতে ফেরিগুলো বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রী ও যানবাহন নামিয়ে খালি ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন