মহাসড়কে পরিবহন সংকট, দুর্ভোগে ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা
jugantor
মহাসড়কে পরিবহন সংকট, দুর্ভোগে ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা

  আলমগীর হোসেন, কালিয়াকৈর (গাজীপুর)  

১১ মে ২০২১, ২৩:২৩:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ঈদের ছুটি, গ্রামের বাড়িতে যাবেন কিন্তু নেই পরিবহন। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা এলাকায় পরিবহনের জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেছেন ঈদযাত্রীরা।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় গণপরিবহন সংকটের জেরে দুর্ভোগে পড়েছেন ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা। মঙ্গলবার সকাল থেকেই ঈদের ছুটিতে পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামের বাড়িতে ফিরতে শুরু করেছেন মানুষ। কিন্তু নেই কোনো যাত্রীবাহী পরিবহন। এতে দীর্ঘ সময় ধরে অপেক্ষা করতে হচ্ছে বিকল্প পরিবহনের জন্য।

সরজমিন দেখা যায়, চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় হাজার হাজার মানুষ ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে পরিবহনের জন্য অপেক্ষা করছেন। মাঝে-মধ্যে দুই একটি যাত্রীবোঝাই পিকআপভ্যান চোখে পড়লেও মহাসড়কে ছিল না গণপরিবহন। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন হাজারো ঘরমুখো ঈদযাত্রী।

চন্দ্রা এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন আয়েশা নামে এক গার্মেন্টকর্মী। তিনি যাবেন গোবিন্দগঞ্জ। তিনি জানান, বাড়ি যেতে হবে যে কোনো উপায়ে। এজন্য দুই ঘণ্টা ধরে বিকল্প পরিবহনের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। তিনি এখনো জানেন না কীভাবে যাবেন আর কত সময় লাগবে তার বাড়ি পৌঁছাতে।

সালনা (কোনাবাড়ি) হাইওয়ে থানার ওসি মো. মীর গোলাম ফারুক জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় গণপরিবহন সংকটের জেরে দুর্ভোগে পড়েছেন ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা। তবে আমরা যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১৫০ জন পুলিশ ফোর্স নিয়োগ করেছি চন্দ্রা এলাকায়। তারা রাস্তার শৃঙ্খলা রক্ষাসহ ওই এলাকায় চুরি, ছিনতাই যেন না হয় সেজন্য রাত-দিন কাজ করছেন। সরকার ঘোষিত নির্দেশনা পালনে আমরা কঠোর অবস্থানে আছি।

এছাড়া দায়িত্বরত সব পুলিশ সদস্যের ক্ষেত্রে কোনো অনিয়মের খবর পেলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া আছে বলে তিনি জানান।

মহাসড়কে পরিবহন সংকট, দুর্ভোগে ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা

 আলমগীর হোসেন, কালিয়াকৈর (গাজীপুর) 
১১ মে ২০২১, ১১:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঈদের ছুটি, গ্রামের বাড়িতে যাবেন কিন্তু নেই পরিবহন। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা এলাকায় পরিবহনের জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেছেন ঈদযাত্রীরা।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় গণপরিবহন সংকটের জেরে দুর্ভোগে পড়েছেন ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা। মঙ্গলবার সকাল থেকেই ঈদের ছুটিতে পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামের বাড়িতে ফিরতে শুরু করেছেন মানুষ। কিন্তু নেই কোনো যাত্রীবাহী পরিবহন। এতে দীর্ঘ সময় ধরে অপেক্ষা করতে হচ্ছে বিকল্প পরিবহনের জন্য।

সরজমিন দেখা যায়, চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় হাজার হাজার মানুষ ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে পরিবহনের জন্য অপেক্ষা করছেন। মাঝে-মধ্যে দুই একটি যাত্রীবোঝাই পিকআপভ্যান চোখে পড়লেও মহাসড়কে ছিল না গণপরিবহন। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন হাজারো ঘরমুখো ঈদযাত্রী।

চন্দ্রা এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন আয়েশা নামে এক গার্মেন্টকর্মী। তিনি যাবেন গোবিন্দগঞ্জ। তিনি জানান, বাড়ি যেতে হবে যে কোনো উপায়ে। এজন্য দুই ঘণ্টা ধরে বিকল্প পরিবহনের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। তিনি এখনো জানেন না কীভাবে যাবেন আর কত সময় লাগবে তার বাড়ি পৌঁছাতে।

সালনা (কোনাবাড়ি) হাইওয়ে থানার ওসি মো. মীর গোলাম ফারুক জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় গণপরিবহন সংকটের জেরে দুর্ভোগে পড়েছেন ঘরমুখো ঈদযাত্রীরা। তবে আমরা যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১৫০ জন পুলিশ ফোর্স নিয়োগ করেছি চন্দ্রা এলাকায়। তারা রাস্তার শৃঙ্খলা রক্ষাসহ ওই এলাকায় চুরি, ছিনতাই যেন না হয় সেজন্য রাত-দিন কাজ করছেন। সরকার ঘোষিত নির্দেশনা পালনে আমরা কঠোর অবস্থানে আছি।

এছাড়া দায়িত্বরত সব পুলিশ সদস্যের ক্ষেত্রে কোনো অনিয়মের খবর পেলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া আছে বলে তিনি জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন