সেই মেয়রের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার জিডি (ভিডিও)
jugantor
সেই মেয়রের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার জিডি (ভিডিও)

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১২ মে ২০২১, ২২:৩৮:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

কেশবপুর পৌর মেয়র রফিকুল ইসলামের নামে কেশবপুর থানায় জিডি (সাধারণ ডায়রি) করা হয়েছে। উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. হাবিবুর রহমান খান মুকুল তার ও তার পরিবারের জীবন রক্ষার্থে এই জিডি করেন।

কেশবপুর পৌর সভার মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়লের মদের আসরের ভিডিও প্রকাশ করার জন্য হাবিবুর রহমান খান মুকুলকে সন্দেহ করে তাকে ফোন করে মদের আসরের ভিডিও কে প্রকাশ করেছে তা ৭ দিনের মধ্যে জানাতে নির্দেশ দেয়। এ সময় ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অডিও ফাঁস হয়ে হয়।

মেয়র বলেন, ‘আমি যা বলেছি, এইটুকু বলেছি এর বেশি আর বলবো না। এর বেশি বললে সে বলা হলো সারাজীবন পৃথিবীর আলো দেখা বন্ধ হয়ে যাবে।’

এই অডিও প্রকাশ হলে মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল দ্বিতীয় বার মো. হাবিবুর রহমান খান মুকুলকে আবারও অশ্রাব্য ভাষায় গালি দেয়। তার ও তার পরিবারের বসতি থেকে উচ্ছেদ করার হুমকি দেন বলে জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে। তাছাড়া ১ মে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ও ১১ মে দুপুর ১টা ৩৬ মিনিটে মেয়র রফিকুল ইসলামের মোবাইল নম্বর থেকে দুই দফা হুমকির কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান খান মুকুল কেশবপুর থানায় তার ও পরিবারে জানমাল রক্ষার জন্য কেশবপুর থানায় মঙ্গলবার রাতে জিডি করেন।

ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, তিনি ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে সময় পার করছেন। বিশেষ করে মেয়রের সন্ত্রাসী সমাজ বিরোধী জামাল বাহিনী এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।

কেশবপুর থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানান, এ বিষয়ে থানায় জিডি হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে তিনি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যা জানার মুকুলের কাছে জানেন; ও যা বলে তাই লেখেন।

সেই মেয়রের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার জিডি (ভিডিও)

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১২ মে ২০২১, ১০:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কেশবপুর পৌর মেয়র রফিকুল ইসলামের নামে কেশবপুর থানায় জিডি (সাধারণ ডায়রি) করা হয়েছে। উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. হাবিবুর রহমান খান মুকুল তার ও তার পরিবারের জীবন রক্ষার্থে এই জিডি করেন।

কেশবপুর পৌর সভার মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়লের মদের আসরের ভিডিও প্রকাশ করার জন্য হাবিবুর রহমান খান মুকুলকে সন্দেহ করে তাকে ফোন করে মদের আসরের ভিডিও কে প্রকাশ করেছে তা ৭ দিনের মধ্যে জানাতে নির্দেশ দেয়। এ সময় ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অডিও ফাঁস হয়ে হয়।

মেয়র বলেন, ‘আমি যা বলেছি, এইটুকু বলেছি এর বেশি আর বলবো না। এর বেশি বললে সে বলা হলো সারাজীবন পৃথিবীর আলো দেখা বন্ধ হয়ে যাবে।’

এই অডিও প্রকাশ হলে মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল দ্বিতীয় বার মো. হাবিবুর রহমান খান মুকুলকে আবারও অশ্রাব্য ভাষায় গালি দেয়। তার ও তার পরিবারের বসতি থেকে উচ্ছেদ করার হুমকি দেন বলে জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে। তাছাড়া  ১ মে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ও ১১ মে দুপুর ১টা ৩৬ মিনিটে মেয়র রফিকুল ইসলামের মোবাইল নম্বর থেকে দুই দফা হুমকির কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান খান মুকুল কেশবপুর থানায় তার ও পরিবারে জানমাল রক্ষার জন্য কেশবপুর থানায় মঙ্গলবার রাতে জিডি করেন।

ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, তিনি ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতার  মধ্যে সময় পার করছেন। বিশেষ করে মেয়রের সন্ত্রাসী সমাজ বিরোধী জামাল বাহিনী এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।

কেশবপুর থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানান, এ বিষয়ে থানায় জিডি হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে তিনি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যা জানার মুকুলের কাছে জানেন; ও যা বলে তাই লেখেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন