বাবার শোক না কাটতেই পদদলিত হয়ে প্রাণ গেল শরিফুলের
jugantor
বাবার শোক না কাটতেই পদদলিত হয়ে প্রাণ গেল শরিফুলের

  স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) ও শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

১৩ মে ২০২১, ১৫:৩১:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

নিহত শরিফুল

মাদারীপুরের শিবচরের বাংলাবাজার ফেরিঘাটে পদদলিত হয়ে মারা যাওয়া পাঁচ ব্যক্তির মধ্যে পিরোজপুরের স্বরূপকাঠির মো. শরিফুল ইসলামের (২৭) বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।

৪৫ দিন আগে মারা যাওয়া বাবা আব্দুর জব্বার মিয়ার দোয়া অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে ওই যুবক ফেরীতে পদদলিত হয়ে মারা যান গত বুধবার। শরিফুল উপজেলার জলাবাড়ী ইউনিয়নের আরামকাঠি গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে। তিনি ওই দিন সড়ক পথে ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ী রওনা দিয়ে ফেরিতে উঠে বাংলাবাজারে নামার সময় পদদলিত হয়ে মারা যান।

শরিফুল ঢাকায় থেকে একটি কলেজে মাস্টার্সে পড়াশুনা করতেন। তিনি পড়াশুনার পাশাপাশি টিউশনি করে নিজের পড়ার খরচসহ বাড়িতেও কিছু খরচ পাঠাতেন।

এদিকে শিবচর থানা পুলিশ নিহত অন্যান্যদের পরিচয় জানিয়েছে। শরিফুল ছাড়াও নিহত অন্যরা হলেন- বরিশালের মুলাদি উপজেলার ইসমাইল আকন্দের ছেলে নুরুদ্দিন মাদবর (৪০), গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলা পদ্মবিলা গ্রামে মজিবুর রহমান শেখের মেয়ে পোশাক শ্রমিক, শিল্পী আক্কার (৩০) এবং মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার গোপালপুর গ্রামের আল আমিনের স্ত্রী নিপা আক্তার (৩৫)।

শিবচর থানার ওসি মো. মিরাজ হোসেন জানান, গতকাল বুধবারে ফেরিতে হুড়োহুড়ি করতে গিয়ে মানুষের ভিড় ও অতিরিক্ত গরমে যাত্রী নিহত ও আহতের পরিচয় পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দুটি ফেরিতে নিহত ৫ জন এবং আহত ৮ জনের নাম পরিচয় জানতে পেরেছে পুলিশ। নিহত ও আহতদের ফেরিতে পড়ে থাকা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নৌ -পুলিশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করছে।

বাবার শোক না কাটতেই পদদলিত হয়ে প্রাণ গেল শরিফুলের

 স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) ও শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
১৩ মে ২০২১, ০৩:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নিহত শরিফুল
নিহত শরিফুল

মাদারীপুরের শিবচরের বাংলাবাজার ফেরিঘাটে পদদলিত হয়ে মারা যাওয়া পাঁচ ব্যক্তির মধ্যে পিরোজপুরের স্বরূপকাঠির মো. শরিফুল ইসলামের (২৭) বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। 

৪৫ দিন আগে মারা যাওয়া বাবা আব্দুর জব্বার মিয়ার দোয়া অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে ওই যুবক ফেরীতে পদদলিত হয়ে মারা যান গত বুধবার। শরিফুল উপজেলার জলাবাড়ী ইউনিয়নের আরামকাঠি গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে। তিনি ওই দিন সড়ক পথে ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ী রওনা দিয়ে ফেরিতে উঠে বাংলাবাজারে নামার সময় পদদলিত হয়ে মারা যান। 

শরিফুল ঢাকায় থেকে একটি কলেজে মাস্টার্সে পড়াশুনা করতেন। তিনি পড়াশুনার পাশাপাশি টিউশনি করে নিজের পড়ার খরচসহ বাড়িতেও কিছু খরচ পাঠাতেন। 

এদিকে শিবচর থানা পুলিশ নিহত অন্যান্যদের পরিচয় জানিয়েছে। শরিফুল ছাড়াও নিহত অন্যরা হলেন- বরিশালের মুলাদি উপজেলার ইসমাইল আকন্দের ছেলে নুরুদ্দিন মাদবর (৪০), গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলা পদ্মবিলা গ্রামে মজিবুর রহমান শেখের মেয়ে পোশাক শ্রমিক, শিল্পী আক্কার (৩০) এবং মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার গোপালপুর গ্রামের আল আমিনের স্ত্রী নিপা আক্তার (৩৫)।  

শিবচর থানার ওসি মো. মিরাজ হোসেন জানান, গতকাল বুধবারে ফেরিতে হুড়োহুড়ি করতে গিয়ে মানুষের ভিড় ও অতিরিক্ত গরমে যাত্রী নিহত ও আহতের পরিচয় পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দুটি ফেরিতে নিহত ৫ জন এবং আহত ৮ জনের নাম পরিচয় জানতে পেরেছে পুলিশ। নিহত ও আহতদের ফেরিতে পড়ে থাকা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নৌ -পুলিশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন