তেলাপোকার বাসায় তৈরি হচ্ছে খাবার! (ভিডিও)
jugantor
তেলাপোকার বাসায় তৈরি হচ্ছে খাবার! (ভিডিও)

  ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

১৩ মে ২০২১, ১৯:৪৬:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বিএসটিআইয়ের অনুমোদনহীন বেকারি কারখানায় তেলাপোকার বাসা নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন খাবার। কোনো নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে ময়মনসিংহ কিশোরগঞ্জ সড়কের পাশে উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়ন পরিষদ সম্মুখে লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারে তৈরি করা হচ্ছে বিভিন্ন বেকারি পণ্য।

আর এই সব খাবার যাচ্ছে পাড়া-মহল্লার বিভিন্ন দোকান থেকে শুরু করে নামীদামী দোকানে। বিক্রি হচ্ছে বিস্কুট, কেক, রুটি, টোস্ট নানা বাহারি খাবার।

কখনও কি কেউ ভেবে দেখেছেন এই খাবারগুলো কোথায় তৈরি হচ্ছে? কী দিয়ে তৈরি হচ্ছে কেমন জায়গায়? এসব খাদ্য পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণ ও যাচাই করার দায়িত্বে যারা আছেন তারা তাদের দায়িত্ব কতটা পালন করছেন? এক কথায় না।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, খাদ্য তৈরির এ বেকারিতে মানা হয় না নিরাপদ খাদ্য তৈরির কোনো নিয়ম। তৈরি করা খাবারে বসছে মশা-মাছি আর তেলাপোকার বাসা। আর ধূলা বালি ও শ্রমিকের ঘাম। কারখানায় নেই স্যানিটেশন এবং অগ্নিনির্বাপণ কোনো ব্যবস্থা। এমনকি প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড পর্যন্ত নেই।

রয়েছে ক্ষতিকারক রাসায়নিক পদার্থ, কেমিক্যাল ও একাধিক পাম ওয়েলের ড্রাম। আশপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে নানা ধরনের তৈরি পণ্য। ডালডা দিয়ে তৈরি করা ক্রিম রাখা পাত্রগুলোতে ঝাঁকে ঝাঁকে মাছি আর তেলাপোকা।

উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণ বাহারি মোড়কে বনরুটি, পাউরুটি, কেক, বিস্কুট। কারখানার নেই কোনো সরকারি অনুমোদন। খাবার দেখে বোঝার উপায় নেই এটি কোনো বেকারির উৎপাদন।

লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারের বিতরে প্রবেশ করে বেকারি কারখানার ম্যানেজার জামাল উদ্দিনের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, এ বেকারির নাম দেশবাংলা। আর এ বেকারির মালিক হোসেন সরকার।

এ বেকারির বিএসটিআইয়ের অনুমোদনের আছে কিনা এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, অনুমোদন নেই।

এ সময় মালিককে খোঁজ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বেকারির পাশেই স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কার্যালয়। ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার পারভেজ ও কয়েকজন ইউপি সদস্যকে নিয়ে কারখানার ভেতরে প্রবেশ করে কারখানার অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে বেকারি খাবার তৈরি দৃশ্য দেখ তারা নিজেরাই হতভম্ব হয়ে পড়েন।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুরুর হুদা খান জানান, এমন পরিবেশে খাদ্য তৈরি খাবার খেয়ে মানুষ চর্ম ও ক্যান্সারের মতো রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি দেখছি।

তেলাপোকার বাসায় তৈরি হচ্ছে খাবার! (ভিডিও)

 ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
১৩ মে ২০২১, ০৭:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বিএসটিআইয়ের অনুমোদনহীন বেকারি কারখানায় তেলাপোকার বাসা নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন খাবার। কোনো নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে ময়মনসিংহ কিশোরগঞ্জ সড়কের পাশে উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়ন পরিষদ সম্মুখে লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারে তৈরি করা হচ্ছে বিভিন্ন বেকারি পণ্য।

আর এই সব খাবার যাচ্ছে পাড়া-মহল্লার বিভিন্ন দোকান থেকে শুরু করে নামীদামী দোকানে। বিক্রি হচ্ছে বিস্কুট, কেক, রুটি, টোস্ট নানা বাহারি খাবার।

কখনও কি কেউ ভেবে দেখেছেন এই খাবারগুলো কোথায় তৈরি হচ্ছে? কী দিয়ে তৈরি হচ্ছে কেমন জায়গায়? এসব খাদ্য পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণ ও যাচাই করার দায়িত্বে যারা আছেন তারা তাদের দায়িত্ব কতটা পালন করছেন? এক কথায় না।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, খাদ্য তৈরির এ বেকারিতে মানা হয় না নিরাপদ খাদ্য তৈরির কোনো নিয়ম। তৈরি করা খাবারে বসছে মশা-মাছি আর তেলাপোকার বাসা। আর ধূলা বালি ও শ্রমিকের ঘাম। কারখানায় নেই স্যানিটেশন এবং অগ্নিনির্বাপণ কোনো ব্যবস্থা। এমনকি প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড পর্যন্ত নেই।

রয়েছে ক্ষতিকারক রাসায়নিক পদার্থ, কেমিক্যাল ও একাধিক পাম ওয়েলের ড্রাম। আশপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে নানা ধরনের তৈরি পণ্য। ডালডা দিয়ে তৈরি করা ক্রিম রাখা পাত্রগুলোতে ঝাঁকে ঝাঁকে মাছি আর তেলাপোকা।

উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণ বাহারি মোড়কে বনরুটি, পাউরুটি, কেক, বিস্কুট। কারখানার নেই কোনো সরকারি অনুমোদন। খাবার দেখে বোঝার উপায় নেই এটি কোনো বেকারির উৎপাদন।

লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারের বিতরে প্রবেশ করে বেকারি কারখানার ম্যানেজার জামাল উদ্দিনের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, এ বেকারির নাম দেশবাংলা। আর এ বেকারির মালিক হোসেন সরকার।

এ বেকারির বিএসটিআইয়ের অনুমোদনের আছে কিনা এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, অনুমোদন নেই।

এ সময় মালিককে খোঁজ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বেকারির পাশেই স্থানীয়  ইউপি চেয়ারম্যানের কার্যালয়। ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার পারভেজ ও কয়েকজন ইউপি সদস্যকে নিয়ে কারখানার ভেতরে প্রবেশ করে কারখানার অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে বেকারি খাবার তৈরি দৃশ্য দেখ তারা নিজেরাই হতভম্ব হয়ে পড়েন।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুরুর হুদা খান জানান, এমন পরিবেশে খাদ্য তৈরি খাবার খেয়ে মানুষ চর্ম ও ক্যান্সারের মতো রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি দেখছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন