ঈদের দিনে গরীব-অসহায়দের পাশে এক দল তরুণ
jugantor
ঈদের দিনে গরীব-অসহায়দের পাশে এক দল তরুণ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৫ মে ২০২১, ১২:৪৬:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ঈদের নামাজ আদায় করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ যখন ঘোরাঘুরি কিংবা বিনোদন পার্কগুলোতে সময় কাটাতে ব্যস্ত তখন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে পঞ্চগড়ের একদল তরুণ।

হৃদয়ে গ্রামবাংলা ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকরা ঈদের নামাজের পরপরই মোটরসাইকেল নিয়ে বের হয়ে যান বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে। উদ্দেশ্যে অসহায় গরীব মানুষদের বাড়িতে ঈদ সামগ্রী বিতরণ।

ঈদের দিন সকাল সাড়ে আটটার পর থেকে সংগঠনের সদস্যরা কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে মোটরসাইকেল যোগে জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের পাঁচ শতাধিক অসহায় পরিবারের মধ্যে এই ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দেন।

ঈদ সামগ্রীর মধ্যে ছিলো লাচ্চা সেমাই, চিনি, আতব চাল, মুড়ি ও সাবান। যেসব গরীব অসহায় মানুষ টাকার অভাবে ঈদ সামগ্রী কিনতে পারেন নি, মূলত তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়েই ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন হৃদয়ে গ্রামবাংলা ফাউন্ডেশনের সদস্যরা।

ঈদ সামগ্রী পেয়ে মাগুড়া গ্রামের আবদুল হামিদ বলেন, বয়স হয়েছে কামকাজ করতে পারি না, তাই কেউ কাজও দিতে চায় না। হাতে টাকা ছিলো না তাই ঈদের কেনাকাটা করতে পারি নি। এদের দেওয়া ঈদ সামগ্রী রাতে রান্না করে বউ ছেলেমেয়েদের নিয়ে একসাথে খাব।

ঈদের দিন কেন ঈদ সামগ্রী বিতরণ জানতে চাইলে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শান্তি বলেন, গতকাল রাতে আমাদের হটলাইন ও ফেইসবুকে বহু অসহায় মানুষ যোগাযোগ করে জানান যে তীব্র অভাব অনটনের কারনে আগামীকাল ঈদের জন্য তারা কোন কেনাকাটা করতে পারেননি।

এসব অসহায় মানুষের কথা শুনে রাতেই আমরা তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিই। তাই আজ ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেই আমরা ঈদ সামগ্রী নিয়ে ছুটে চলে যাই এসব অসহায়দের বাড়ি বাড়ি।

সংগঠনের সদস্যরা দশম রোজার পর থেকে ঈদুল ফিতরের আগের দিন পর্যন্ত রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ১৬ জেলায় পয়ত্রিশ শত অসহায় ও দুস্থ মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন।

হৃদয়ে গ্রামবাংলা ফাউন্ডেশন চেয়ারম্যান জাফরিন আক্তার জানান, করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন নিম্নআয়ের লোকজন। আসন্ন ঈদুল ফিতরে অনেকেরই ঘরে খাবার নেই। অনেকে আবার কারো কাছে হাত পেতে কিছু গ্রহণ করতে লজ্জা পান। আমরা ওই সকল পরিবারগুলো খুঁজে তাদের বাড়িতে গিয়ে এই ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দেই।

ঈদের দিনে গরীব-অসহায়দের পাশে এক দল তরুণ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৫ মে ২০২১, ১২:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঈদের নামাজ আদায় করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ যখন ঘোরাঘুরি কিংবা বিনোদন পার্কগুলোতে সময় কাটাতে ব্যস্ত তখন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে পঞ্চগড়ের একদল তরুণ।

 হৃদয়ে গ্রামবাংলা ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকরা ঈদের নামাজের পরপরই মোটরসাইকেল নিয়ে বের হয়ে যান বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে। উদ্দেশ্যে অসহায় গরীব মানুষদের বাড়িতে ঈদ সামগ্রী বিতরণ। 

ঈদের দিন সকাল সাড়ে আটটার পর থেকে সংগঠনের সদস্যরা কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে মোটরসাইকেল যোগে জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের পাঁচ শতাধিক অসহায় পরিবারের মধ্যে এই ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দেন। 

ঈদ সামগ্রীর মধ্যে ছিলো লাচ্চা সেমাই, চিনি, আতব চাল, মুড়ি ও সাবান। যেসব গরীব অসহায় মানুষ টাকার অভাবে ঈদ সামগ্রী কিনতে পারেন নি, মূলত তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়েই ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন হৃদয়ে গ্রামবাংলা ফাউন্ডেশনের সদস্যরা। 

ঈদ সামগ্রী পেয়ে মাগুড়া গ্রামের আবদুল হামিদ বলেন, বয়স হয়েছে কামকাজ করতে পারি না, তাই কেউ কাজও দিতে চায় না। হাতে টাকা ছিলো না তাই ঈদের কেনাকাটা করতে পারি নি। এদের দেওয়া ঈদ সামগ্রী রাতে রান্না করে বউ ছেলেমেয়েদের নিয়ে একসাথে খাব। 

ঈদের দিন কেন ঈদ সামগ্রী বিতরণ জানতে চাইলে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শান্তি  বলেন, গতকাল রাতে আমাদের হটলাইন ও ফেইসবুকে বহু অসহায় মানুষ যোগাযোগ করে জানান যে তীব্র অভাব অনটনের কারনে আগামীকাল ঈদের জন্য তারা কোন কেনাকাটা করতে পারেননি। 

এসব অসহায় মানুষের কথা শুনে রাতেই আমরা তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিই। তাই আজ ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেই আমরা ঈদ সামগ্রী নিয়ে ছুটে চলে যাই এসব অসহায়দের বাড়ি বাড়ি।

সংগঠনের সদস্যরা দশম রোজার পর থেকে  ঈদুল ফিতরের আগের দিন পর্যন্ত রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের ১৬ জেলায় পয়ত্রিশ শত অসহায় ও দুস্থ মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন।

হৃদয়ে গ্রামবাংলা ফাউন্ডেশন চেয়ারম্যান জাফরিন আক্তার জানান, করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন নিম্নআয়ের লোকজন। আসন্ন ঈদুল ফিতরে অনেকেরই ঘরে খাবার নেই। অনেকে আবার কারো কাছে হাত পেতে কিছু গ্রহণ করতে লজ্জা পান। আমরা ওই সকল পরিবারগুলো খুঁজে তাদের বাড়িতে গিয়ে এই ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দেই।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন