পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা
jugantor
পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা

  পাবনা ও সাঁথিয়া প্রতিনিধি  

১৫ মে ২০২১, ১৫:২৪:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনা সাঁথিয়া উপজেলার করমজা স্বামীর পরকীয়ার জেরে কানিজ ফাতেমা (২০) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে তার স্বামী রাকিবুল ইসলাম (২৪)।

নিখোঁজের ২ দিন পর শনিবার সকালে সাঁথিয়ার পাড় করমজা এলাকার একটি ডোবা থেকে ওই গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত কানিজ ফাতেমা পাবনার বেড়া পৌর এলাকার মো. আব্দুল কাদের মেয়ে।

পাবনা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুই বছর আগে সাঁথিয়ার ফেজয়েন গ্রামের মো. চাদু শেখের ছেলের রাকিবুলের সঙ্গে বিয়ে হয় কানিজ ফাতেমার। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে কলহ চলতে থাকে।

এরই জের ধরে কানিজ ফাতেমা কিছুদিন আগে বাবার বাড়িতে চলে আসে। ২ দিন আগে ঈদের রাতে কানিজকে তার বাবার বাড়ি থেকে কৌশলে সাঁথিয়ার করমজা এলাকায় ডেকে নিয়ে যায় রাকিবুল।

পরে সে কানিজকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার পর একটি ডোবায় ফেলে পালিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে বেড়া থানায় একটি নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করে কানিজ এর স্বজনরা। এরপরই পুলিশ স্বামী রাকিবুলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে কানিজকে হত্যার ঘটনা স্বীকার করে।

এ ঘটনায় বেড়া থানা একটি হত্যা মামলা দায়েরের পর গৃহবধূ কানিজের ভাই ফরিদ হোসেন জানান, দুই বছর আগে রাকিবুলের সঙ্গে বিয়ে হয় কানিজের। বিয়ের সময় সাড়ে ৫ লাখ টাকা যৌতুক নেয় রাকিবুলের পরিবার। বিয়ের পরে বিভিন্ন সময় আরও টাকার জন্য কানিজকে নির্যাতন করতো রাকিবুর ও তার পরিবার। এছাড়াও রাকিবুলের অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। এসব কারণে আমার বোনকে হত্যা করেছে।

পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা

 পাবনা ও সাঁথিয়া প্রতিনিধি 
১৫ মে ২০২১, ০৩:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনা সাঁথিয়া উপজেলার করমজা স্বামীর পরকীয়ার জেরে কানিজ ফাতেমা (২০) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে তার স্বামী রাকিবুল ইসলাম (২৪)। 

নিখোঁজের ২ দিন পর শনিবার সকালে সাঁথিয়ার পাড় করমজা এলাকার একটি ডোবা থেকে ওই গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত কানিজ ফাতেমা পাবনার বেড়া পৌর এলাকার মো. আব্দুল কাদের মেয়ে।

পাবনা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুই বছর আগে সাঁথিয়ার ফেজয়েন গ্রামের মো. চাদু শেখের ছেলের রাকিবুলের সঙ্গে বিয়ে হয় কানিজ ফাতেমার। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে কলহ চলতে থাকে। 

এরই জের ধরে কানিজ ফাতেমা কিছুদিন আগে বাবার বাড়িতে চলে আসে। ২ দিন আগে ঈদের রাতে কানিজকে তার বাবার বাড়ি থেকে কৌশলে সাঁথিয়ার করমজা এলাকায় ডেকে নিয়ে যায় রাকিবুল।

পরে সে কানিজকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার পর একটি ডোবায় ফেলে পালিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে বেড়া থানায় একটি নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করে কানিজ এর স্বজনরা। এরপরই পুলিশ স্বামী রাকিবুলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে কানিজকে হত্যার ঘটনা স্বীকার করে। 

এ ঘটনায় বেড়া থানা একটি হত্যা মামলা দায়েরের পর গৃহবধূ কানিজের ভাই ফরিদ হোসেন জানান, দুই বছর আগে রাকিবুলের সঙ্গে বিয়ে হয় কানিজের। বিয়ের সময় সাড়ে ৫ লাখ টাকা যৌতুক নেয় রাকিবুলের পরিবার। বিয়ের পরে বিভিন্ন সময় আরও টাকার জন্য কানিজকে নির্যাতন করতো রাকিবুর ও তার পরিবার। এছাড়াও রাকিবুলের অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। এসব কারণে আমার বোনকে হত্যা করেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন