হেফাজতের তাণ্ডবে মদদ ছিল শাহজাহান চৌধুরীর (ভিডিও)
jugantor
হেফাজতের তাণ্ডবে মদদ ছিল শাহজাহান চৌধুরীর (ভিডিও)

  সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১৫ মে ২০২১, ২০:০৫:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফর ঘিরে হাটহাজারীতে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার সাবেক এমপি ও জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হাটহাজারীতে হেফাজতের তাণ্ডবে শাহজাহান চৌধুরীর মদদ ছিল বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে।

শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে সাতকানিয়া পৌরসভার ছমদর পাড়ার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে ২০১৮ সালে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে পাহাড়তলীতে বিএনপির এক কাউন্সিলরের মুরগির ফার্ম থেকে গ্রেফতার হন সাবেক এই এমপি।

সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসন থেকে জামায়াতের টিকিটে ১৯৯১ এবং ২০০১ সালে এমপি নির্বাচিত হন শাহজাহান চৌধুরী। চট্টগ্রাম মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমির এবং কেন্দ্রীয় জামায়াতের মজলিশে সূরা সদস্য তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে হাটহাজারী থানা, ভূমি অফিস, ডাক-বাংলোতে ব্যাপক হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতের নেতাকর্মীরা। সেদিনের ঘটনায় চারজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছিলেন।

এসব ঘটনায় জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরীর ইন্ধন ও মদদের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এসব ঘটনায় তিনটি মামলায় হাটহাজারী মডেল থানা পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতারে অভিযানে নামে সাতকানিয়া থানা পুলিশ।

এছাড়াও জাতীয় নির্বাচনসহ বিভিন্ন সময়ে নাশকতার প্রায় ২০টি মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ খবর পায় তিনি নিজ বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। সেই খবরে ভোররাতে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিতু ও থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম তাকে গ্রেফতারে অভিযান চালায়।

অভিযানের প্রায় তিন ঘণ্টার মাথায় রাত ৩টার দিকে বাড়ির ভেতরে একটি কক্ষের ওপরে স্টোর রুমে লেপ-তোষক মুড়িয়ে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন তিনি। হাটহাজারীতে তাণ্ডবের ঘটনায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম শহরের বাকলিয়া রাহাত্তার পুল সুরভী আবাসিক এলাকায় থাকতেন। চাঁদ রাতে সাতকানিয়া গ্রামের বাড়িতে আসেন তিনি। ঈদের দিন দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তিনি।

সাতকানিয়া থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, হাটহাজারীতে তাণ্ডবের ঘটনায় তিনটি মামলায় জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরীকে গ্রেফতারের জন্য আবেদন করে হাটহাজারী থানা পুলিশ। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি টিম প্রায় তিন ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে তাকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। বাড়ির ভেতরে একটি কক্ষের বাথরুমের ওপরে স্টোর রুমে লুকিয়ে ছিলেন তিনি। শনিবার দুপুরে তাকে আদালতের পাঠানো হয়েছে।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরকে কেন্দ্র করে হাটহাজারীতে তাণ্ডবের ঘটনায় যুক্ত ছিলেন জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরী। হেফাজতের ২৬ ও ২৭ মার্চের তাণ্ডবে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে।

হেফাজতের তাণ্ডবে মদদ ছিল শাহজাহান চৌধুরীর (ভিডিও)

 সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১৫ মে ২০২১, ০৮:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফর ঘিরে হাটহাজারীতে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার সাবেক এমপি ও জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হাটহাজারীতে হেফাজতের তাণ্ডবে শাহজাহান চৌধুরীর মদদ ছিল বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে।

শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে সাতকানিয়া পৌরসভার ছমদর পাড়ার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে ২০১৮ সালে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে পাহাড়তলীতে বিএনপির এক কাউন্সিলরের মুরগির ফার্ম থেকে গ্রেফতার হন সাবেক এই এমপি। 

সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসন থেকে জামায়াতের টিকিটে ১৯৯১ এবং ২০০১ সালে এমপি নির্বাচিত হন শাহজাহান চৌধুরী। চট্টগ্রাম মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমির এবং কেন্দ্রীয় জামায়াতের মজলিশে সূরা সদস্য তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে হাটহাজারী থানা, ভূমি অফিস, ডাক-বাংলোতে ব্যাপক হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতের নেতাকর্মীরা। সেদিনের ঘটনায় চারজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছিলেন।

এসব ঘটনায় জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরীর ইন্ধন ও মদদের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এসব ঘটনায় তিনটি মামলায় হাটহাজারী মডেল থানা পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতারে অভিযানে নামে সাতকানিয়া থানা পুলিশ।

এছাড়াও জাতীয় নির্বাচনসহ বিভিন্ন সময়ে নাশকতার প্রায় ২০টি মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ খবর পায় তিনি নিজ বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। সেই খবরে ভোররাতে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিতু ও থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম তাকে গ্রেফতারে অভিযান চালায়।

অভিযানের প্রায় তিন ঘণ্টার মাথায় রাত ৩টার দিকে বাড়ির ভেতরে একটি কক্ষের ওপরে স্টোর রুমে লেপ-তোষক মুড়িয়ে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন তিনি। হাটহাজারীতে তাণ্ডবের ঘটনায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম শহরের বাকলিয়া রাহাত্তার পুল সুরভী আবাসিক এলাকায় থাকতেন। চাঁদ রাতে সাতকানিয়া গ্রামের বাড়িতে আসেন তিনি। ঈদের দিন দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তিনি।

সাতকানিয়া থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, হাটহাজারীতে তাণ্ডবের ঘটনায় তিনটি মামলায় জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরীকে গ্রেফতারের জন্য আবেদন করে হাটহাজারী থানা পুলিশ। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি টিম প্রায় তিন ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে তাকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। বাড়ির ভেতরে একটি কক্ষের বাথরুমের ওপরে স্টোর রুমে লুকিয়ে ছিলেন তিনি। শনিবার দুপুরে তাকে আদালতের পাঠানো হয়েছে।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরকে কেন্দ্র করে হাটহাজারীতে তাণ্ডবের ঘটনায় যুক্ত ছিলেন জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরী। হেফাজতের ২৬ ও ২৭ মার্চের তাণ্ডবে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : হেফাজতে অস্থিরতা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন