রাজশাহীতে বজ্রপাতে ৪ জনের মৃত্যু
jugantor
রাজশাহীতে বজ্রপাতে ৪ জনের মৃত্যু

  রাজশাহী ব্যুরো  

১৫ মে ২০২১, ২২:৪২:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীতে বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বিকালে চলমান ঝড়-বৃষ্টির সময় জেলার বিভিন্ন স্থানে তাদের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে জেলার বাগমারা এলাকায় তিনজন ও বাঘায় একজন মারা গেছেন। তারা এ সময় মাঠে ও আমবাগানে আম পাড়ার কাজ করছিলেন।

জানা গেছে বাগমারায় নিহত তিনজনের মধ্যে দুইজনের বাড়ি দুর্গাপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে। তারা আমপাড়া শ্রমিক হিসেবে বাগমারার তাহেরপুরে কাজ করতে গিয়েছিলেন। এসব ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমেছে।

নিহতরা হলেন, দুর্গাপুর উপজেলার মাড়িয়া গ্রামের এছার আলীর ছেলে বাবু ইসলাম (২৩), একই গ্রামের মৃত সাইদুল চৌকিদারের ছেলে রনি ইসলাম (৩৩), বাগমারার হাজড়া পাড়া গ্রামের নিজাম উদ্দিন (৫৫) ও বাঘার বাউসা ইউনিয়নের চকরপাড়া গ্রামের জহুরুল ইসলাম বাবু (৩২)।

বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহমেদ জানিয়েছেন, শনিবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে দুর্গাপুরের বাবু ও রনিসহ চারজন বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভার সুলতানপুর তালতালি নদীর পাড়ের একটি আমবাগানে আম পাড়ার কাজ করছিলেন। ঘটনার সময় ঝড়বৃষ্টি শুরু হলে বজ্রপাতে চারজন আহত হন। পরে স্থানীয়রা দ্রুত তাদের উদ্ধার করে তাহেরপুর বাজারের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাবু ও রনিকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত বাকি দুইজনকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নিহত আহতরা আম বাগানে শ্রমিক হিসেবে আম পাড়তে গিয়েছিলেন।

অন্যদিকে স্থানীয়রা জানান, বাগমারা উপজেলার হাজরাপুকুর গ্রামে ঝড়-বৃষ্টির সময় মাঠ থেকে ধান নিয়ে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে নিজাম উদ্দিন ও হাবিবুর নামের দুইজন আহত হয়। পরে তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা নিজামকে মৃত ঘোষণা করে। আহত হাবিবুর চিকিৎসাধীন আছেন।

অপরদিকে বাঘা উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক জানান, বিকাল পৌনে ৩টার দিকে বাড়ির পাশে আম কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে জহুরুল ইসলাম বাবু গুরুতর আহত হন। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাজশাহীতে বজ্রপাতে ৪ জনের মৃত্যু

 রাজশাহী ব্যুরো 
১৫ মে ২০২১, ১০:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীতে বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বিকালে চলমান ঝড়-বৃষ্টির সময় জেলার বিভিন্ন স্থানে তাদের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে জেলার বাগমারা এলাকায়  তিনজন ও বাঘায় একজন মারা গেছেন। তারা এ সময় মাঠে ও আমবাগানে আম পাড়ার  কাজ করছিলেন।

জানা গেছে বাগমারায় নিহত তিনজনের মধ্যে দুইজনের বাড়ি দুর্গাপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে। তারা আমপাড়া শ্রমিক হিসেবে বাগমারার তাহেরপুরে কাজ করতে গিয়েছিলেন। এসব ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমেছে।

নিহতরা হলেন, দুর্গাপুর উপজেলার মাড়িয়া গ্রামের এছার আলীর ছেলে বাবু ইসলাম (২৩), একই গ্রামের মৃত সাইদুল চৌকিদারের ছেলে রনি ইসলাম (৩৩), বাগমারার হাজড়া পাড়া গ্রামের নিজাম উদ্দিন (৫৫) ও বাঘার বাউসা ইউনিয়নের চকরপাড়া গ্রামের জহুরুল ইসলাম বাবু (৩২)।

বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহমেদ জানিয়েছেন, শনিবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে  দুর্গাপুরের বাবু ও রনিসহ চারজন বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভার  সুলতানপুর তালতালি নদীর পাড়ের একটি আমবাগানে আম পাড়ার কাজ করছিলেন। ঘটনার সময় ঝড়বৃষ্টি শুরু হলে বজ্রপাতে চারজন আহত হন। পরে স্থানীয়রা দ্রুত তাদের উদ্ধার করে তাহেরপুর বাজারের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাবু ও রনিকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত বাকি দুইজনকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নিহত আহতরা আম বাগানে  শ্রমিক হিসেবে আম পাড়তে গিয়েছিলেন।

অন্যদিকে স্থানীয়রা জানান, বাগমারা উপজেলার হাজরাপুকুর গ্রামে ঝড়-বৃষ্টির সময় মাঠ থেকে ধান নিয়ে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে নিজাম উদ্দিন ও হাবিবুর নামের দুইজন আহত হয়। পরে তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা নিজামকে মৃত ঘোষণা করে। আহত হাবিবুর চিকিৎসাধীন আছেন।

অপরদিকে বাঘা উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক জানান, বিকাল পৌনে ৩টার দিকে বাড়ির পাশে আম কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে জহুরুল ইসলাম বাবু গুরুতর আহত হন। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন