তালশাস কাটা নিয়ে সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য নিহত
jugantor
তালশাস কাটা নিয়ে সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য নিহত

  বাগেরহাট প্রতিনিধি  

১৭ মে ২০২১, ০৯:৩১:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

তালশাস কাটা নিয়ে সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য নিহত

বাগেরহাটে সদর উপজেলায় তালশাস কাটা কেন্দ্র করে দুগ্রুপের সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য ফজলু তরফদার (৬০) নিহত হয়েছেন।

রোববার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রোববার বিকালে উপজেলার ডেমা গ্রামের মিঠাপুকুরের দক্ষিণপাড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ফজলু তরফদার সদর উপজেলার ডেমা গ্রামের আশাব তরফদারের ছেলে।

নিহতের ছেলে গিয়াস তরফদার বলেন, স্থানীয় দেলোয়ার গাজীর পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে আমাদের একটি জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। আমার বাবা রোববার বিকালে জমির একটি তালগাছের শাস কাটতে গেলে দেলোয়ার গাজী ও তার ছেলে আব্দুল্লাহ গাজীসহ আরও কয়েকজন বাধা দেয়।

এ সময় বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে দেলোয়ার গাজী, ছেলে আব্দুল্লাহ গাজী ও তাদের সহযোগীরা আমার বাবার মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে তাকে ফেলে রেলে রেখে চলে যায়। তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে রাতে তিনি মারা যান। তাদের হামলায় আমার বাবা মারা গেছেন।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর শাফিন মাহামুদ জানান, বাগেরহাট সদর উপজেলার ডেমা গ্রামে তালশাস কাটা কেন্দ্র করে দুগ্রুপের সংঘর্ষে দুজন গুরুতর আহত হন। এদের মধ্যে ফজলু তরফদার পরে মারা যান। জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

তালশাস কাটা নিয়ে সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য নিহত

 বাগেরহাট প্রতিনিধি 
১৭ মে ২০২১, ০৯:৩১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালশাস কাটা নিয়ে সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য নিহত
ছবি: যুগান্তর

বাগেরহাটে সদর উপজেলায় তালশাস কাটা কেন্দ্র করে দুগ্রুপের সংঘর্ষে সাবেক ইউপি সদস্য ফজলু তরফদার (৬০) নিহত হয়েছেন।

রোববার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রোববার বিকালে উপজেলার ডেমা গ্রামের মিঠাপুকুরের দক্ষিণপাড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ফজলু তরফদার সদর উপজেলার ডেমা গ্রামের আশাব তরফদারের ছেলে।

নিহতের ছেলে গিয়াস তরফদার বলেন, স্থানীয় দেলোয়ার গাজীর পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে আমাদের একটি জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। আমার বাবা রোববার বিকালে জমির একটি তালগাছের শাস কাটতে গেলে দেলোয়ার গাজী ও তার ছেলে আব্দুল্লাহ গাজীসহ আরও কয়েকজন বাধা দেয়।

এ সময় বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে দেলোয়ার গাজী, ছেলে আব্দুল্লাহ গাজী ও তাদের সহযোগীরা আমার বাবার মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে তাকে ফেলে রেলে রেখে চলে যায়। তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে রাতে তিনি মারা যান। তাদের হামলায় আমার বাবা মারা গেছেন।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর শাফিন মাহামুদ জানান, বাগেরহাট সদর উপজেলার ডেমা গ্রামে তালশাস কাটা কেন্দ্র করে দুগ্রুপের সংঘর্ষে দুজন গুরুতর আহত হন।  এদের মধ্যে ফজলু তরফদার পরে মারা যান।  জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন