আম কুড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার এক সন্তানের জননী
jugantor
আম কুড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার এক সন্তানের জননী

  ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১৯ মে ২০২১, ২০:৩৫:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নে বাগানে আম কুড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক সন্তানের জননী। মঙ্গলবার গভীর রাতে ঝড়ের পরে আম কুড়াতে গেলে হাত-পা-মুখ বেঁধে তাকে গণধর্ষণ করে চারজনের একটি সংঘবদ্ধ দল।

এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়ার পরপরই জড়িত তিন ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে বুড়িচং থানা পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সন্তান নিয়ে পিতার বাড়িতে বসবাস করেন নির্যাতিতা ওই নারী। মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে ঝড়ের পরে আম কুড়াতে বের হন ওই নারী। আম কুড়ানোর একপর্যায়ে বাড়ির পাশের বাগানে প্রবেশ করলে চারজনের সংঘবদ্ধ দল ভুক্তভোগীর ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে হাত ও পা চেপে ধরে তার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালায়। বুধবার সকালে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে বুড়িচং থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

বুড়িচং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাসুদ খান বলেন, অভিযোগের পরপরই অভিযান চালিয়ে বুড়িচং উপজেলার বেড়াজাল এলাকার মৃত আকমত আলীর ছেলে আ. রহিম (৩২), বুরবুরিয়া গ্রামের সিরাজ (সিরু) মিয়ার ছেলে স্বপন (৩৫) ও রংপুর জেলার গঙ্গানগর উপজেলার মণ্ডলপাড়া এলাকার মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে মমতাজ উদ্দিনকে (৩৫) আটক করা হয়েছে।

তিনি জানান, আসামিরা দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেছেন। আদালত আসামিদের জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন। জড়িত অপর এক আসামি পলাতক রয়েছেন। ওই নারীকে মেডিকেল চেকআপের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আম কুড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার এক সন্তানের জননী

 ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১৯ মে ২০২১, ০৮:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নে বাগানে আম কুড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক সন্তানের জননী। মঙ্গলবার গভীর রাতে ঝড়ের পরে আম কুড়াতে গেলে হাত-পা-মুখ বেঁধে তাকে গণধর্ষণ করে চারজনের একটি সংঘবদ্ধ দল।

এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়ার পরপরই জড়িত তিন ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে বুড়িচং থানা পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সন্তান নিয়ে পিতার বাড়িতে বসবাস করেন নির্যাতিতা ওই নারী। মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে ঝড়ের পরে আম কুড়াতে বের হন ওই নারী। আম কুড়ানোর একপর্যায়ে বাড়ির পাশের বাগানে প্রবেশ করলে চারজনের সংঘবদ্ধ দল ভুক্তভোগীর ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে হাত ও পা চেপে ধরে তার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালায়। বুধবার সকালে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে বুড়িচং থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

বুড়িচং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাসুদ খান বলেন, অভিযোগের পরপরই অভিযান চালিয়ে বুড়িচং উপজেলার বেড়াজাল এলাকার মৃত আকমত আলীর ছেলে আ. রহিম (৩২), বুরবুরিয়া গ্রামের সিরাজ (সিরু) মিয়ার ছেলে স্বপন (৩৫) ও রংপুর জেলার গঙ্গানগর উপজেলার মণ্ডলপাড়া এলাকার মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে মমতাজ উদ্দিনকে (৩৫) আটক করা হয়েছে।

তিনি জানান, আসামিরা দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেছেন। আদালত আসামিদের জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন। জড়িত অপর এক আসামি পলাতক রয়েছেন। ওই নারীকে মেডিকেল চেকআপের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন