গণধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধূকে কুপিয়ে জখম
jugantor
গণধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধূকে কুপিয়ে জখম

  হাতিয়া প্রতিনিধি   

২০ মে ২০২১, ১৭:৫৪:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর হাতিয়ায় স্বামীর অনুপস্থিতিতে ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে গণধর্ষণের চেষ্টা করে তিন যুবক। ব্যর্থ হয়ে তারা গৃহবধূর শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করে জখম করে। পরে গৃহবধুর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে বখাটেরা পালিয়ে যায়।

বুধবার রাতে নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হাতিয়া উপজেলার চরঈশ্বর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে তিনজকে আসামি করে হাতিয়া থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় তিন আসামি হলো- চরঈশ্বর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের খালেকের ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৩), একই এলাকার নুরুল হকের ছেলে জসিম (৩২) এবং মোস্তফার ছেলে হাসান (২০)।

ওই গৃহবধূ বলেন, দীর্ঘদিন থেকে নজরুল আমাকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। আমার স্বামী একটি যাত্রীবাহী ট্রলারের শ্রমিক। নজরুল এক সময় আমার স্বামীর সঙ্গে কাজ করত। সে গোপনে আমার স্বামীর মোবাইল থেকে আমার মোবাইল নম্বরটি নিয়ে মাঝে মধ্যেই কল দিয়ে কুপ্রস্তাব দিত।

ঘটনার দিন রাত ১১টার সময় আমার স্বামী বাড়িতে নেই নিশ্চিত হয়ে নজরুল তার তিন সহযোগীকে নিয়ে আমাদের বাড়ি আসে। আমি ঘুমিয়েছিলাম। এ সুযোগে তারা আমার ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে তারা আমার শরীরে, গলায়, বুকে ও পায়ে আঘাত করে রক্তাক্ত করে ফেলে। পরে আমার চিৎকারে পাশের লোকজন এসে আমাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, গৃহবধূ বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন। তাদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযানে নেমেছে।

গণধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধূকে কুপিয়ে জখম

 হাতিয়া প্রতিনিধি  
২০ মে ২০২১, ০৫:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর হাতিয়ায় স্বামীর অনুপস্থিতিতে ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে গণধর্ষণের চেষ্টা করে তিন যুবক। ব্যর্থ হয়ে তারা গৃহবধূর শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করে জখম করে। পরে গৃহবধুর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে বখাটেরা পালিয়ে যায়।

বুধবার রাতে নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হাতিয়া উপজেলার চরঈশ্বর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে তিনজকে আসামি করে হাতিয়া থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় তিন আসামি হলো- চরঈশ্বর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের খালেকের ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৩), একই এলাকার নুরুল হকের ছেলে জসিম (৩২) এবং মোস্তফার ছেলে হাসান (২০)।

ওই গৃহবধূ বলেন, দীর্ঘদিন থেকে নজরুল আমাকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। আমার স্বামী একটি যাত্রীবাহী ট্রলারের শ্রমিক। নজরুল এক সময় আমার স্বামীর সঙ্গে কাজ করত। সে গোপনে আমার স্বামীর মোবাইল থেকে আমার মোবাইল নম্বরটি নিয়ে মাঝে মধ্যেই কল দিয়ে কুপ্রস্তাব দিত।

ঘটনার দিন রাত ১১টার সময় আমার স্বামী বাড়িতে নেই নিশ্চিত হয়ে নজরুল তার তিন সহযোগীকে নিয়ে আমাদের বাড়ি আসে। আমি ঘুমিয়েছিলাম। এ সুযোগে তারা আমার ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে তারা আমার শরীরে, গলায়, বুকে ও পায়ে আঘাত করে রক্তাক্ত করে ফেলে। পরে আমার চিৎকারে পাশের লোকজন এসে আমাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করেন।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, গৃহবধূ বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন। তাদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযানে নেমেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন